প্রশ্ন ফাঁস: রিমান্ড শেষে মাউশির কর্মকর্তা মিল্টন কারাগারে

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, ওই নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্রটি ফাঁস করেছিলেন মিল্টন। তিনি ওই নিয়োগ পরীক্ষার ইডেন কলেজ কেন্দ্র সমন্বয় করার দায়িত্বে ছিলেন।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 July 2022, 05:51 PM
Updated : 27 July 2022, 05:51 PM

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা (মাউশি) অধিদপ্তরে অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের মামলায় অধিদপ্তরের কর্মকর্তা চন্দ্র শেখর হালদার মিল্টনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বুধবার ঢাকার মহানগর হাকিম বেগম শুভ্রা চক্রবর্তী তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তেজগাঁও জোনাল টিমের এসআই (নিরস্ত্র) সুকান্ত বিশ্বাস লালবাগ থানার মামলায় আসামিকে আদালতে হাজির করে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন।

আসামির পক্ষের আইনজীবী মো. আবু হানিফ জামিন আবেদন করেন। তবে শুনানির জন্য সময় চান তিনি।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আজাদ রহমান জানান, বিচারক আসামিকে কারাগারে পাঠিয়ে বৃহস্পতিবার জামিন শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

রোববার রাতে রাজধানীর সেগুনবাগিচা থেকে চন্দ্র শেখর হালদারকে গ্রেপ্তার করে ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি)। সোমবার তাকে একদিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

মাউশির ৫১৩টি পদে নিয়োগের জন্য রাজধানীর ৬১টি কেন্দ্রে গত ১৩ মে নিয়োগ পরীক্ষা হয়। পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় লালবাগ থানায় মামলা করেন ইডেন মহিলা কলেজের শিক্ষক আবদুল খালেক।

মামলায় অভিযোগ করা হয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক পদে পরীক্ষা শুরু হয় ১৩ মে বিকাল ৩টায়। পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে সুমন জোয়াদ্দার নামের এক পরীক্ষার্থীকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সুমন জানান, হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে দুপুর ২টা ১৮ মিনিটে তার মুঠোফোনে পটুয়াখালীর সাইফুল ও টাঙ্গাইলের খোকন উত্তরপত্র পাঠান। এর তদন্তের জেরে গ্রেপ্তার হন মিল্টন।

গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানান, ওই নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্রটি ফাঁস করেছিলেন মিল্টন। তিনি ওই নিয়োগ পরীক্ষার ইডেন কলেজ কেন্দ্র সমন্বয় করার দায়িত্বে ছিলেন।

আরও খবর

Also Read: নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস: মাউশি কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক