পদ্মা, মেঘনা নামেই নতুন বিভাগ, প্রস্তাব উঠছে নিকারে

কুমিল্লা অঞ্চল নিয়ে নতুন বিভাগ মেঘনা এবং ফরিদপুর অঞ্চল নিয়ে নতুন বিভাগ পদ্মা হবে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Nov 2022, 10:39 AM
Updated : 22 Nov 2022, 10:39 AM

স্থানের নামে নয়, নদীর নামেই হচ্ছে বাংলাদেশের নতুন দুটি বিভাগ।

‘পদ্মা’ ও ‘মেঘনা’ নামে নতুন দুই বিভাগের নামের প্রস্তাব প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) আগামী সভায় অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করার কথা রয়েছে।

নিকারের সায় পেলে দেশে বিভাগের সংখ্যা বেড়ে হবে ১০টি।

বর্তমানে দেশে যত বিভাগ রয়েছে, তার সবই জেলার নামে। সেগুলো হল- ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, রংপুর, সিলেট ও ময়মনসিংহ।

কুমিল্লা অঞ্চল নিয়ে নতুন বিভাগ মেঘনা এবং ফরিদপুর অঞ্চল নিয়ে নতুন বিভাগ পদ্মা হবে।

আগামী রোববার নিকার’র সভা রয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (সমন্বয় অনুবিভাগ) মো. রাহাত আনোয়ার, ওই সভায়ই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের পক্ষ থেকে পদ্মা ও মেঘনা প্রশাসনিক বিভাগ সৃজনের প্রস্তাব উঠছে।

কুমিল্লা ও ফরিদপুর অঞ্চল নিয়ে নতুন দুটি বিভাগ করার বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে কয়েক বছর ধরেই। কিন্তু নতুন বিভাগের নাম কী হবে, তা নিয়ে পাল্টাপাল্টি দাবি রয়েছে কুমিল্লা ও নোয়াখালী জেলার রাজনৈতিক নেতাদের।

সবশেষ গত বছরের ডিসেম্বরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুমিল্লা ও ফরিদপুরের প্রস্তাবিত বিভাগকে যথাক্রমে ‘মেঘনা’ ও ‘পদ্মা’ হিসেবে নামকরণের আগ্রহ প্রকাশ করেন।

একনেক পরবর্তী সভায় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলম বলেছিলেন, “বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আগেও বলেছি, কুমিল্লা ও ফরিদপুরকে নতুন বিভাগ করতে চাই। এবং এই দুই বিভাগের দুই বড় নদীর নামে করতে চাই। একটি হবে মেঘনা, আরেকটি হবে পদ্মা।”

Also Read: নদীর নামেই নতুন বিভাগের নাম: একনেকে প্রধানমন্ত্রী

এর আগে গত ২১ অক্টোবর কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের অফিস ভবনের উদ্বোধনী আয়োজনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, “স্বাধীনতা যুদ্ধের ‘তোমার আমার ঠিকানা, পদ্মা-মেঘনা-যমুনা’ স্লোগানের আদলে নদীর নামে হবে এ বিভাগ দুটির নাম। ফরিদপুর বিভাগের নাম হবে ‘পদ্মা’ আর ‘মেঘনা’ হবে কুমিল্লা বিভাগের নাম।

নতুন বিভাগ, জেলা, উপজেলা, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, থানা গঠন বা স্থাপনের প্রস্তাব বিবেচনা করে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাস সংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটি-নিকার। এছাড়া বিভাগ, জেলা, উপজেলা, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা এবং থানার সীমানা পুনর্নির্ধারণ সংক্রান্ত প্রস্তাব বিবেচনা করাও হবে এর কাজ।

নতুন সরকার গঠনের পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আহ্বায়ক করে ২০১৯ সালে ২৯ জানুয়ারিতে ২৫ সদস্যের নিকার গঠিত হয়। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কমিটিকে সাচিবিক সহায়তা দেয়।

আলোচ্যসূচিতে আরও প্রস্তাব

দুটি বিভাগ ছাড়াও বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের আরও চার প্রস্তাব রয়েছে নিকার’র আলোচ্যসূচিতে।

জন নিরাপত্তা বিভাগের পক্ষ থেকে কুষ্টিয়ার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানাকে ঝাউদিয়া এলাকায় স্থানান্তর করে ‘ঝাউদিয়া থানা’ নামকরণ এবং কাউদিয়া পুলিশ ক্যাম্পকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে স্থানান্তর করে ‘ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় পুলিশ ক্যাম্প’ হিসেবে নামকরণের প্রস্তাব উপস্থাপনের কথা রয়েছে।

স্থানীয় সরকার বিভাগের পক্ষ থেকে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলায় পৌরসভা গঠন; বগুড়ার সারিয়াকান্দি উপজেলার কাজলা ও বোয়াইল ইউনিয়নের ‘বিরোধপূর্ণ’ অংশ বিয়োজন করে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার সঙ্গে সংযোজন করে মাদারগঞ্জ উপজেলার সীমানা পুনর্গঠন এবং ময়মনসিংহের নান্দাইল পৌরসভার সীমানা সম্প্রসারণের প্রস্তাব নিকারের আলোচ্যসূচির প্রাথমিক তালিকায় রয়েছে। 

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক