পাকিস্তানের এফ-১৬ বহরের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্যাকেজে উদ্বিগ্ন ভারত

ইসলামাবাদ এই অত্যাধুনিক বিমান তাদের প্রতিবেশী দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে নয়া দিল্লির।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Sept 2022, 07:21 AM
Updated : 15 Sept 2022, 07:21 AM

পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমান বহরের রক্ষণাবেক্ষণ ও আধুনিকায়নে যুক্তরাষ্ট্র যে প্যাকেজের ঘোষণা দিয়েছে তাতে উদ্বেগ জানিয়েছে ভারত।

ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বুধবার মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রীকে নয়া দিল্লির উদ্বেগের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের বানানো এ যুদ্ধবিমান পাকিস্তানের সামরিক বাহিনীর অস্ত্রভাণ্ডারের গুরুত্বপূর্ণ অংশ; ইসলামাবাদ এই অত্যাধুনিক বিমান তাদের প্রতিবেশী দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে পারে বলে আশঙ্কা নয়া দিল্লির।

কয়েকদিন আগে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পাকিস্তানে এফ-১৬ বহরের জন্য নানান সরঞ্জাম বিক্রির একটি চুক্তি অনুমোদন করে; সম্ভাব্য ওই বিক্রির পরিমাণ ৪৫ কোটি ডলার পর্যন্ত হতে পারে বলে যুক্তরাষ্ট্রের বিবৃতির বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মূলত লকহিড মার্টিন কর্পোরেশনই পাকিস্তানকে সেসব সরঞ্জাম সরবরাহ করবে।

“সম্প্রতি পাকিস্তানের এফ-১৬ বহরের রক্ষণাবেক্ষণ ও আধুনিকায়নে যে প্যাকেজ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, তা নিয়ে ভারতের উদ্বেগের কথা আমি জানিয়ে দিয়েছি,” মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনের সঙ্গে ‘উষ্ণ ও ফলপ্রসু’ টেলিফোন আলাপের কথা জানিয়ে টুইটারে এমনটাই লিখেছেন রাজনাথ সিং।

দুই প্রতিরক্ষামন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্র-ভারত প্রতিরক্ষা সগযোগিতার বিষয়টি পর্যালোচনা করেছেন এবং নিজেদের সামরিক বাহিনীর মধ্যে বন্ধন আরও জোরদারে একে অপরকে আশ্বস্ত করেছেন, বলেছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

ভারতের মতোই পারমাণবিক শক্তিধর রাষ্ট্র পাকিস্তানের বিমানবাহিনী মূলত চীনের বানানো যুদ্ধবিমানের ওপরই বেশি নির্ভরশীল, কিন্তু তাদের বহরে থাকা সবচেয়ে অত্যাধুনিক উড়োজাহাজ হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের এফ-১৬।

প্রতিবেশী এই দুই দেশ মোট তিনবার যুদ্ধে জড়িয়েছে। ২০১৯ সালে বিতর্কিত অঞ্চল কাশ্মীর নিয়ে তাদের মধ্যে হালকা বিমানযুদ্ধও হয়েছে।

সেসময় পাকিস্তান ভারতের একটি জেট ভূপাতিত করার পর নয়া দিল্লি দাবি করেছিল, তারাও পাকিস্তানের একটি এফ-১৬ গুলি করে নামিয়েছে।

পাকিস্তান ওই দাবি প্রত্যাখ্যান করে বলেছে, তাদের কোনো এফ-১৬-ই ভূপাতিত হয়নি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক