জাহাজে হুতি হামলার জবাবে যুক্তরাষ্ট্রকে সংযত থাকার আহ্বান সৌদি আরবের

রিয়াদ হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধ আরও ব্যাপক পরিসরে ছড়িয়ে পড়া ঠেকানোর চেষ্টা নিয়েছে।

রয়টার্স
Published : 6 Dec 2023, 04:45 PM
Updated : 6 Dec 2023, 04:45 PM

লোহিত সাগরে জাহাজ চলাচল রুটের বাণিজ্যিক জাহাজে ইয়ৈমেনের হুতি গোষ্ঠীর হামলার জবাবে সংযম দেখানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে আহ্বান জানিয়েছে সৌদি আরব। হুতিদের দাবি, তারা ওই এলাকায় ইসরায়েলি জলযানে হামলা চালিয়েছে।

রিয়াদ হামাস-ইসরায়েল যুদ্ধ আরও ব্যাপক পরিসরে ছড়িয়ে পড়া ঠেকানোর চেষ্টা নিয়েছে বলে জানিয়েছে সৌদি আরবের সংশ্লিষ্ট দুই সূত্র।

গত ৭ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া ইসরায়েল-হামাস যুদ্ধ মধ্যপ্রাচ্য জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। এ যুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে ইরান-সম্পৃক্ত হুতিরাও। তারা গুরুত্বপূর্ণ জাহাজ চলাচল রুটে জাহাজগুলোকে আক্রমণ করছে এবং ইসরায়েলেও ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাচ্ছে।

হুতিরা বলছে, তারা ফিলিস্তিনিদের প্রতি সমর্থন প্রকাশ করতে এইসব হামলা চালাচ্ছে। ইসরায়েল গাজায় হামলা বন্ধ না করা পর্যন্ত তাদের এই হামলা চলবে।

ইরান-সমর্থিত প্রতিরোধের অক্ষে যে কয়েকটি গোষ্ঠী আছে তার একটি হচ্ছে হুতি। গাজায় যুদ্ধের শুরু থেকেই এ গোষ্ঠী ইসরায়েল এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন নিশানায় হামলা চালিয়ে আসছে।

তাদের ভূমিকা ইসরায়েল-হামাস সংঘাতের আঞ্চলিক ঝুঁকিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। সাগরের জাহাজ চলাচল রুটগুলোর জন্য হুমকি সৃষ্টি হয়েছে। যে রুটে চলাচল করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের তেলবাহী জাহাজ।

তাছাড়া, ইসরায়েলের দিকে হুতিদের রকেট এবং ড্রোন হামলার কারণে লোহিত সাগর অঞ্চলের দেশগুলোও উদ্বেগের মধ্যে পড়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তেল রপ্তানিকারক দেশ সৌদি আরবও একইরকম উদ্বেগ নিয়ে পরিস্থিতি লক্ষ্য করছে।

গত সপ্তাহে হুতিরা জাহাজে হামলা জোরদার করেছে। এরপরই সৌদি আরব যুক্তরাষ্ট্রকে সংযত থাকার আহ্বান জানাল। পরিস্থিতি যাতে আরও বিগড়ে না যায় সে উদ্দেশ্যেই ওয়াশিংটনকে সংযম দেখানোর বার্তা রিয়াদ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই দুই সৌদি সূত্র।

তারা আরও বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এতদিন যেভাবে পরিস্থিতি সামাল দিয়েছে তাতে রিয়াদ সন্তুষ্ট।

 সর্বসম্প্রতি লোহিত সাগরের দক্ষিণাংশে আন্তর্জাতিক জলসীমায় তিনটি বাণিজ্যিক জাহাজে হামলা হয়েছে। ইয়েমেনের হুতি গোষ্ঠী দাবি করে, তারা ওই এলাকায় দু’টি ইসরায়েলি জলযানে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে।  

এরপর যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর সেন্ট্রাল কমান্ড জানায়, হুতি নিয়ন্ত্রিত অঞ্চল থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন ছোড়ার পর মার্কিন যুদ্ধজাহাজ কার্নি বিপদ সঙ্কেতে সাড়া দিয়েছে এবং সহযোগিতা করেছে।

ইয়েমেনের হুতি গোষ্ঠী জানায়, তাদের নৌবাহিনী সশস্ত্র ড্রোন ও নৌ-ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ‘ইউনিটি এক্সপ্লোরার’ ও ‘নাম্বার নাইন’ নামের দু’টি ইসরায়েলি জাহাজে হামলা চালিয়েছে।

তবে আক্রান্ত জাহাজ দু’টির সঙ্গে ইসরায়েলের কোনো সম্পর্ক নেই বলে দাবি করেন দেশটির সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র রিয়ার অ্যাডমিরাল ড্যানিয়েল হ্যাগারি।