ভারত-চীন সীমান্ত সংঘর্ষের পর প্রথম মুখোমুখি হচ্ছেন মোদী-শি

উজবেকিস্তানে আঞ্চলিক নিরাপত্তা সংগঠন ‘সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজশেন’ (এসসিও) এর সম্মেলনে শুক্রবার দুই নেতা মুখোমুখি হবেন।

রয়টার্সবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Sept 2022, 12:55 PM
Updated : 15 Sept 2022, 12:55 PM

লাদাখে ২০২০ সালের সেই প্রাণঘাতী সীমান্ত সংঘর্ষের পর প্রথম মুখোমুখি হতে চলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

শুক্রবার উজবেকিস্তানের সমরখন্দে আঞ্চলিক নিরাপত্তা সংগঠন ‘সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজশেন’ (এসসিও) এর সম্মেলনে দুই নেতা মুখোমুখি হবেন।

সেখানে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গেও মোদী দেখা করবেন। সম্মেলনে যোগ দিতে মোদী বৃহস্পতিবারই উজবেকিস্তানের উদ্দেশে রওনা হবেন।

এক বিবৃতিতে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “এসসিও শীর্ষ সম্মেলনে আমি সমসাময়িক আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন বিষয়, এসসিওর সম্প্রসারণ, সংস্থার বহুমুখীকরণ ও পারস্পরিক সহযোগিতা আরও নিবিড় করা নিয়ে মত বিনিময়ের অপেক্ষায় আছি।”

সম্মেলনে বাণিজ্য, অর্থনীতি, সংস্কৃতি ও পর্যটনের বিষয়েও বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন নরেন্দ্র মোদী।

দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে চলা অচলাবস্থার পর প্রত্যন্ত পশ্চিম হিমালয়ে চীন-ভারত সীমান্তের একটি বিতর্কিত এলাকা থেকে এ সপ্তাহেই দু’দেশের সেনারা নিজ নিজ চৌকিতে ফিরে গেছে।

ওই অচলাবস্থার পর থেকে এতদিন মোদী ও শি একে অপরের সঙ্গে কথা বলেননি। সীমান্ত থেকে সেনাদের পিছু হটার পরই এবার উজবেকিস্তানের সমরখন্দে মুখোমুখি হতে চলেছেন ভারত ও চীনের এই দুই সরকার প্রধান।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রসচিব বিনয় কোয়াত্রা বলেছেন, শুক্রবার এসসিওর সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

তবে চীনের প্রেসিডেন্ট শি’র সঙ্গে মোদীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে কিনা সেটি নিশ্চিত করে বলেননি কোয়াত্রা। অন্যদিকে, চীনও মোদীর সঙ্গে শি’র বৈঠক হবে কিনা সেটি নিশ্চিত করে জানায়নি।

আঞ্চলিক নিরাপত্তা সংগঠন এসসিও’র স্থায়ী সদস্যদেশগুলো হচ্ছে- চীন, ভারত, রাশিয়া, কাজাখস্তান, কিরগিজস্তান, তাজিকিস্তান, উজবেকিস্তান এবং পাকিস্তান।

শি-মোদী বৈঠকের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া না গেলেও উজবেকিস্তানের এসসিও সম্মেলনে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীর দ্বিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে বলে ক্রেমলিন এরই মধ্যে নিশ্চিত করে জানিয়েছে।

বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যের পাশাপাশি রাশিয়ার সার বিক্রি এবং পারস্পরিক খাদ্য সরবরাহ নিয়ে দুই নেতা কথা বলবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক