ইউক্রেইনে রাশিয়ার ‍অভিযান ব্যর্থ: সিআইএ পরিচালক

ইউক্রেইন আভিযান নিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের ‘অনুমান গভীরভাবে ভুল প্রমাণিত’ হয়েছে বলেই মনে করেন মার্কিন এই গোয়েন্দা সংস্থাটির প্রধান উইলিয়াম বার্নস।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 05:22 PM
Updated : 12 Sept 2022, 05:22 PM

ইউক্রেইন যুদ্ধের ছয়মাস পেরিয়ে গেছে। এখনও রুশ বাহিনীকে ভালোমতই ঠেকিয়ে রেখেছে ইউক্রইনীয় সেনারা। এমনকী কিছু কিছু এলাকায় পাল্টা আক্রমণ করে জয় ছিনিয়ে নিচ্ছে। তাই ইউক্রেইন আভিযান নিয়ে পুতিনের ‘অনুমান গভীরভাবে ভুল প্রমাণিত’ হয়েছে বলেই মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র পরিচালক উইলিয়াম বার্নস।

তিনি বলেন, ইউক্রেইনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের আগ্রাসন এরই মধ্যে ব্যর্থ বলে বিবেচনা করা যায়। দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলে রাশিয়ার দখলদার বাহিনীর বিরুদ্ধে ইউক্রেইনীয় সেনাদের পাল্টা আক্রমণ অব্যাহত আছে।

গত ফেব্রুয়ারিতে পুতিন যখন ইউক্রেইনে আক্রমণের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, তখন তিনি কিইভের সক্ষমতাকে খাটো করে দেখেছিলেন বলেও মনে করেন বার্নস। আর এখন কিইভের পক্ষে আন্তর্জাতিক সমর্থনের বিষয় নিয়েও হিসেবে পুতিন একই ভুল করছেন বলে মত এই মার্কিন কর্মকর্তার।

ওয়াশিংটনে এক সম্মেলনে বার্নস বলেন, ‘‘এ মুহূর্তে পুতিনের পণ হল ইউক্রেইনীয়, ইউরোপীয় এবং আমেরিকানদের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়া। আমি ও আমার সহকর্মীদের বিশ্বাস, পুতিন গত ফেব্রয়ারিতে ইউক্রেইনীয়রা তার বাহিনীর হামলা প্রতিহত করতে পারবে না বলে যে ভুল ধারণা করেছিলেন, এই সংকল্পের বেলায়ও তিনি ঠিক সেই ভুলই করছেন।

‘‘এখানে শুধুমাত্র রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর দুর্বলতাই উন্মোচিত হয়নি বরং রাশিয়ার অর্থনীতি দীর্ঘ সময়ের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হতে যাচ্ছে, সঙ্গে রুশ প্রজন্মও।”

ইউক্রেইনীয় বাহিনী বসন্তে প্রথম বড় ধরনের পাল্টা হামলা চালানোর পর থেকে এ পর্যন্ত তারা উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি অর্জন করেছে। খারকিভ অঞ্চলের কয়েকটি এলাকা থেকে রুশ বাহিনী পিছু হটেছে।

বিবিসি’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পূর্বাঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ শহর ইজিয়ুম ও খারকিভ অঞ্চলকে দখলমুক্ত করায় গত রোববার ইউক্রেইনীয় সেনাদের প্রশংসা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

রুশ অভিযান শুরুর ২০০তম দিনে জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে বালাকলিয়া, ইজিয়ুম, কুপিয়ানস্কসহ কয়েকশ’ শহর ও গ্রাম দখলমুক্ত করার জন্য সেনাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন তিনি।

জেলেনস্কি বলেছেন, ইউক্রেইনের সেনারা গত বৃহস্পতিবার থেকে রোববার সন্ধ্যা নাগাদ তিন হাজার বর্গকিলোমিটারের বেশি এলাকা দখলমুক্ত করতে পেরেছে।

দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, পাল্টা আক্রমণের কৌশল হিসেবে ইউক্রেইন কর্তৃপক্ষ পুরো সম্মুখসারি জুড়ে ‘কঠোর নীরবতা বজায় রেখেছে’। সাংবাদিকদের ফ্রন্টলাইনে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে এবং রুশ বাহিনীর উপর অতর্কিতে পাল্টা আক্রমণের গুরুত্বের উপর জোর দিয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে অনুমান করা হচ্ছিল, তারা খেরসন অঞ্চলের দক্ষিণে পাল্টা আক্রমণ চালাবে। কিন্তু এখন ইউক্রেইনীয় বাহিনীর মূল লক্ষ্য খারকিভের উত্তর-পূর্বাঞ্চল। সেখানে তারা বালাকলিয়া শহর পুনঃদখল করছে। ওই শহরে ২৭ হাজার মানুষ বাস করে।

ইউক্রেইনের সেনাবাহিনীর আক্রমণে রুশ বাহিনী যে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে তা স্বীকার করে নিয়েছেন খারকিভ অঞ্চলে রাশিয়ার মোতায়েন করা কর্মকর্তা ভিতালি গানশেভ।

রাষ্টীয় টেলিভিশনে তিনি বলেন, আমাদের প্রতিরক্ষা ধসে পড়ার ঘটনাটি ইতিমধ্যেই ইউক্রেইনের সশস্ত্র বাহিনীর জন্য একটি উল্লেখযোগ্য বিজয়।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক