কাবুলের পাকিস্তান দূতাবাসে বন্দুক হামলা, একজন আহত

আফগানিস্তানে নিযুক্ত পাকিস্তানের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স উবাইদ-উর-রেহমান নিজামানিকে হত্যা করতে এ হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি ইসলামাবাদের।

রয়টার্স
Published : 2 Dec 2022, 06:40 PM
Updated : 2 Dec 2022, 06:40 PM

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে অবস্থিত পাকিস্তানের দূতাবাসে বন্দুক হামলায় এক নিরাপত্তারক্ষী আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

শুক্রবার এ হামলা হয়। আফগানিস্তানে নিযুক্ত পাকিস্তানের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স উবাইদ-উর-রেহমান নিজামানিকে হত্যা করতেই হামলা চালানো হয়েছে বলে দাবি করেছে ইসলামাবাদ।

তবে নিজামানি অক্ষত আছেন। তার কোনও ক্ষতি হয়নি। দূতাবাসে এই হামলায় কে বা কারা জড়িত তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি দল কাবুলে তালেবান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকের কয়েকদিন পরই এ হামলা হল। দু’দেশের সীমান্তে উত্তেজনা নিরসনে কাবুলে বৈঠক করেছিলেন দুই দেশের কর্মকর্তারা।

হামলার ঘটনাটি সম্পর্কে সরাসরি জনেন এমন দুইজন বলেছেন, কাছের একটি ভবন থেকে দূতাবাস প্রাঙ্গণকে নিশানা করে গুলিবর্ষণ করা হয়। কয়জন বন্দুকধারী ছিল এবং তারা ধরা পড়েছে কিনা তা জানা যায়নি।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, “কাবুলে পাকিস্তানের দূতাবাস কম্পাউন্ড আজ (শুক্রবার) হামলার শিকার হয়েছে। নিশানা ছিলেন মিশন প্রধান উবাইদ-উর-রেহমান নিজামানি।”

“নিজামানি নিরাপদে আছেন। তবে পাকিস্তানের একজন নিরাপত্তারক্ষী ইসরার মোহাম্মদ রাষ্ট্রদূতকে হামলা থেকে রক্ষা করতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছেন,” বলে জানানো হয় বিবৃতিতে।

গত মাসে কাবুলে পাকিস্তান দূতাবাসের কাজে যোগ দেন নিজামানি। ২০২১ সালের অগাস্টে কট্টর ইসলামপস্থি তালেবান ক্ষমতায় আসার পর কাবুলে যে কয়টি দূতাবাস চালু রয়েছে পাকিস্তানের দূতাবাস তার একটি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ টুইটারে এক পোস্টে দূতাবাসে এই হামলাকে ‘হত্যাচেষ্টা’ আখ্যা দিয়েছেন এবং ঘটনার তদন্ত ও অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

আফগানিস্তানের তালেবান পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ও পাকিস্তান দূতাবাসে এই হামলার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে।

আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে একইদিনে আরেকটি হামলার ঘটনায় একজন নিহতও হয়েছেন। দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী গুলবুদ্দিন হেকমতিয়ারের দল হেজব-ই-ইসলামির কার্যালয়ের কাছে আত্মঘাতী বোমা হামলায় এই প্রাণহানি হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক