‘শান্তির ডাক’ দিয়ে টুইটারে নায়ক থেকে ভিলেন ইলন মাস্ক

“এটা নৈতিক মূর্খতা, ক্রেমলিনের প্রোপাগান্ডার পুনরাবৃত্তি এবং ইউক্রেইনীয়দের সাহস ও ত্যাগের সঙ্গে বিশ্বাঘাতকতা।” - বলেছেন রুশ গ্র্যান্ডমাস্টার গ্যারি কাসপারভ।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Oct 2022, 08:48 AM
Updated : 4 Oct 2022, 08:48 AM

টুইটারে আবারও বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ইলন মাস্ক। এবার সম্ভবত পুরো ইউক্রেইনকেই খেপিয়ে দিয়েছেন এই শীর্ষ ধনী। পাল্টা জবাবে মুখ খুলেছেন ইউক্রেইনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি।

৩ অক্টোবরে টুইটারে নতুন জরিপ চালু করেছেন মাস্ক; শান্তির ডাক দিয়ে সমর্থন চেয়েছেন তার ১০ কোটি ৭৭ লাখ টুইটার ফলোয়ারের কাছে। কিন্তু, জরিপের ফলাফল বলছে, মাস্কের সঙ্গে একমত নন অংশগ্রহণকারীদের সিংহভাগ।

মাস্কের জরিপের প্রতিক্রিয়ায় টুইটারে পাল্টা জরিপ চালু করে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি প্রশ্ন করেছেন, “কোন ইলন মাস্ককে বেশি পছন্দ আপনাদের? যিনি ইউক্রেইনকে সমর্থন করেন, না কি যিনি রাশিয়াকে সমর্থন করেন?” এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত, জরিপের ৮০ শতাংশ ভোট পড়েছে ‘ইউক্রেইন সমর্থক মাস্ক’-এর পক্ষে।

৩ অক্টোবর পরপর কয়েকটি টুইটে ইউক্রেইন-রাশিয়া যুদ্ধের মৃতের সংখ্যা বাড়তেই থাকবে এবং শেষ পর্যন্ত পারমাণবিক হামলার আশঙ্কা উল্লেখ করে রাশিয়া ও ইউক্রেইনের মধ্যে ‘শান্তির ডাক’ দিয়েছেন মাস্ক।

তারপরের টুইটে জরিপ চালু করেছেন তিনি। জরিপের প্রশ্নে ইউক্রেইন আর রাশিয়ার মধ্যে শান্তির জন্য চারটি ‘শর্তের’ কথা উল্লেখ করে তার পক্ষে-বিপক্ষে টুইটার ভক্তদের মতামত চেয়েছেন টেসলা ও স্পেসএক্স প্রধান।

জরিপে শান্তির জন্য মাস্ক যে চারটি ‘শর্ত’ উল্লেখ করেছেন, সেগুলো হলো:

  • রাশিয়ার দখলকৃত অঞ্চলগুলোতে জাতিসংঘের অধীনে নতুন নির্বাচন। নির্বাচনে হারলে ওই অঞ্চলগুলো ছাড়তে হবে রাশিয়াকে।

  • আনুষ্ঠানিকভাবে রাশিয়ার অন্তর্ভূক্ত হবে ক্রাইমিয়া; ১৭৮৩ থেকে যেমনটা ছিল।

  • ক্রাইমিয়ায় পানির সরবরাহ নিশ্চিত করা।

  • নিরপেক্ষ থাকবে ইউক্রেইন। (নেটো জোটভুক্ত হবে না দেশটি)।

মাস্ক যে শর্তগুলো উল্লেখ করেছেন তার সবগুলো কার্যত রাশিয়ার পক্ষে যায়।

এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত মাস্কের ওই ডাকের বিরোধীতা করেছেন ৬০ শতাংশের বেশি অংশগ্রহণকারী।

মাস্কের সাম্প্রতিক মতামত আর জরিপ নিয়ে সংশ্লিষ্ট অনেকেই খেপেছেন বলে উঠে এসেছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি এবং সিএনবিবিসির প্রতিবেদনে।

জার্মানি থেকে ইউক্রেইনের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত আন্দ্রিজ মেলনিক মাস্কের উদ্দেশ্যে রীতির বাইরে গিয়েই ক্রোধ ঝেড়েছেন-

অন্যদিকে একসময়ের শীর্ষ দাবারু ও রাশিয়ান গ্র্যান্ডমাস্টার গ্যারি কাসপারভ বিবিসিকে মাস্কের জরিপ প্রসঙ্গে বলেছেন, “এটা নৈতিক মূর্খতা, ক্রেমলিনের প্রোপাগান্ডার পুনরাবৃত্তি এবং ইউক্রেইনিয়ানদের সাহস ও ত্যাগের সঙ্গে বিশ্বাঘাতকতা।”

ইতোমধ্যেই দখলকৃত চারটি অঞ্চলকে রাশিয়ার ভূখণ্ডের অংশ হিসেবে ঘোষণা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।

ইউক্রেইনে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসন শুরু হওয়ার পরপর দেশটিতে স্টারলিংক ব্রডব্যান্ড সেবা চালু করে প্রশংসিত হয়েছিলেন ইলন মাস্ক। সেখানকার নাগরিকদের কাছে মাস্কের একজন নায়কের সমতুল্য জনপ্রিয়তা ছিল বলে উল্লেখ করেছে সিএনবিসি। যুদ্ধ শেষে মাস্ককে ইউক্রেইন ভ্রমণের আমন্ত্রণও জানিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি।

পাল্টে গেছে সে দৃশ্যপট; সম্ভবত রাতারাতি ইউক্রেইনীয়দের চক্ষুশূলে পরিণত হতে যাচ্ছেন ইলন মাস্ক।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক