১০ হাজার ডলারে নেমে আসবে বিটকয়েন?

২০২২ সালে বিটকয়েনের বাজারমূল্য ২০ হাজার ডলারের ঘরে নেমে আসতে পারে বলে আগেই ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন মোবিয়াস।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 2 Dec 2022, 08:23 AM
Updated : 2 Dec 2022, 08:23 AM

ক্রিপ্টো মুদ্রা খাতে বছর জুড়ে মন্দার মধ্যেই এক বাজার বিশ্লেষক ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, ২০২৩ সালে বিটকয়েনের বাজার মূল্য ১০ হাজার ডলারে নেমে আসতে পারে।

সম্প্রতি বিটকয়েনের ভবিষ্যৎ নিয়ে এই অশনি সংকেত দিয়েছেন বাজার বিশ্লেষক ও বিনিয়োগকারী মার্ক মোবিয়াস। তার ভবিষ্যদ্বাণী সত্যি হলে বর্তমান বাজারমূল্যের আরও ৪০ শতাংশ হারানোর পথে রয়েছে ‘শীর্ষ’ এই ক্রিপ্টো মুদ্রা।

নব্বইয়ের দশকের শেষে বিশ্ব ব্যাংকের ‘গ্লোবাল কর্পোরেট গভর্নেন্স ফোরাম’ এবং ‘ইনভেস্টর রেসপনসিবিলিটি টাস্কফোর্স’-এর সদস্য হিসেবে কাজ করেছেন এই জার্মান বংশদ্ভূত বিনিয়োগকারী। নির্ভরযোগ্য বাজার বিশ্লেষক হিসেবে আলাদা গ্রহণযোগ্যতা আছে ‘মোবিয়াস ক্যাপিটাল পার্টনার্স’-এর সহ-প্রতিষ্ঠাতার।

সিএনবিসি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০২২ সালে বিটকয়েনের বাজারমূল্য ২০ হাজার ডলারের ঘরে নেমে আসতে পারে বলে আগেই ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন মোবিয়াস।

তা কেবল সত্যিই হয়নি, ক্রিপ্টো মুদ্রাটির বাজার মূল্য ১৭ থেকে ১৮ হাজার ডলারের মধ্যে নেমে আসায় এর মাইনিং চালু রাখতে এবং ব্লকচেইন রক্ষণাবেক্ষণের খরচ মেটাতেই বেগ পেতে হচ্ছে মাইনারদের।

মোবিয়াসের মতে, গত কয়েক বছরে পশ্চিমা বাজারে ক্রিপ্টো মুদ্রার সাফল্যের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নতুন ডলার ছাপানোর সরাসরি সংযোগ ছিল।

“গত কয়েক বছরে প্রিন্টিং মেশিনগুলো বাড়তি সময় কাজ করায় যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে অর্থ সরবরাহ ৪০ শতাংশের বেশি বেড়েছিল। তাই ক্রিপ্টো মুদ্রায় ঝুঁকি নেওয়ার জন্য নগদ অর্থের কমতি ছিল না,” বলেছেন মোবিয়াস।

গত কয়েক বছরে সুদের হার লক্ষণীয় হারে কমিয়ে রেখেছিল যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক, আর্থিক লেনদেনের শর্তগুলোও ছিল তুলনামূলক সহজ। ফলে ব্যবসা বৃদ্ধির সুযোগ পেয়েছিল প্রযুক্তি ও ক্রিপ্টো মুদ্রা খাত।

কিন্তু মহামারী পরবর্তী বাজার আর ইউক্রেইন যুদ্ধের বাস্তবতায় চলতি বছরে থেকে আর্থিক নীতিমালায় কড়াকড়ি আরোপ করে সুদের হার বাড়িয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মোবিয়াস বলেন, “কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাজার থেকে নগদ অর্থ তুলে নেওয়া শুরু করায় পুঁজিবাজারে মানুষের ঝুঁকে নেওয়া এখন অনেক বেশি কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

বিটকয়েন নিয়ে মোবিয়াস এখন পর্যন্ত তুলনামূলক সঠিক ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন বলে উঠে এসেছে সিএনবিসির প্রতিবেদনে।

মে মাসে ক্রিপ্টো মুদ্রা বাজারে প্রতিটি বিটকয়েন বিক্রি হচ্ছিল ২৮ হাজার ডলারে। সে সময়ে মোবিয়াস বাণিজ্য প্রকাশনা ফাইন্যান্সিয়াল নিউজকে বলেছিলেন, ২০ হাজারের ঘরে নেমে আসবে বিটকয়েনের দাম; তারপর কিছু দিনের জন্য দাম বাড়লেও চূড়ান্ত অবস্থায় ১০ হাজার ডলারে নেমে আসবে ক্রিপ্টো মুদ্রাটি।

১০ হাজার ডলারে না নামলেও এ বছরে বিটকয়েনের সর্বনিম্ন দাম ছিল ১৫ হাজার ৪৮০ ডলার। অথচ গতবছরের নভেম্বর মাসে সর্বোচ্চ ৬৮ হাজার ৭৬৮ ডলার দামে লেনদেনের রেকর্ড গড়েছিল বিটকয়েন।

সিএনবিসি বলছে, মোবিয়াসের ভবিষ্যদ্বাণী সত্যি হলে সামনের মাসগুলোতেও ক্রিপ্টো বাজারের দুর্দিন কাটছে না। ইতোমধ্যে এক লাখ ৩০ হাজার কোটি ডলারের বাজার মূল্য হারিয়েছে আন্তর্জাতিক ক্রিপ্টো মুদ্রা বাজার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক