এনভিডিয়া-মাইক্রোসফট বানাবে এআই ক্লাউড কম্পিউটার

মাইক্রোসফটের সঙ্গে নতুন যৌথ প্রকল্পের অংশ হিসেবে নিজেদের সবচেয়ে শক্তিশালী জিপিইউয়ের হাজারো ইউনিট ব্যবহার করবে এনভিডিয়া।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Nov 2022, 08:20 AM
Updated : 17 Nov 2022, 08:20 AM

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী এআই সুপারকম্পিউটার নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে শীর্ষ দুই টেক জায়ান্ট। ‘এআই ক্লাউড কম্পিউটার’ নির্মাণে মাইক্রোসফটের সঙ্গে জোট বাঁধার ঘোষণা দিয়েছে গ্রাফিক্স ও মোবাইল কম্পিউটিং হার্ডওয়্যার নির্মাতা এনভিডিয়া।

বুধবারের ঘোষণায় এনভিডিয়া জানিয়েছে, ‘ডিপ লার্নিং’ এবং ‘লার্জ ল্যাঙ্গুয়েজ মডেল’ অ্যাপ্লিকেশনের জন্য তাদের নির্মিত ‘এ১০০’ এবং ‘এইচ১০০’ সংস্করণের হাজারো জিপিইউ ব্যবহার করা হবে নতুন যৌথ প্রকল্পে।

এনভিডিয়ার ‘হপার এইচ১০০’-কে বর্তমান বাজারের সবচেয়ে শক্তিশালী জিপিইউ হিসেবে বর্ণনা করেছে প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট আর্স টেকনিকা। আর কোম্পানির তৈরি সবচেয়ে শক্তিশালী জিপিইউগুলোর মধ্যে দ্বিতীয় হিসেবে বিবেচিত ‘এ১০০’। 

মাইক্রোসফটের সঙ্গে যৌথ প্রকল্পে নিজস্ব ‘কোয়ান্টাম-২ ইনফিনিটিব্যান্ড’ নেটওয়ার্ক প্ল্যাটফর্ম  এনভিডিয়া ব্যবহার করবে বলে উঠে এসেছে আর্স টেকনিকার প্রতিবেদনে। দুই সার্ভারের মধ্যে প্রতি সেকেন্ডে ৪০০ গিগবিট গতিতে ডেটা ট্রান্সফার করতে পারে এ প্ল্যাটফর্ম। 

আর যৌথ প্রকল্পে নিজস্ব ক্লাউড সেবা ‘অ্যাজিউর’-এর অবকাঠামো এবং এনডি ও এনসি সিরিজের ভার্চুয়াল মেশিন ব্যবহার করবে মাইক্রোসফট। 

আর আলাদা আলাদা প্রযুক্তিগুলো সমন্বয়ের কাজ করবে এনভিডিয়ার ‘এআই এন্টারপ্রাইজ’ প্ল্যাটফর্ম। 

এ ছাড়াও, মাইক্রোসফটের এআই সফটওয়্যার ‘ডিপস্পিড’ নিয়ে কাজ করবে দুই কোম্পানি।

যৌথ প্রকল্প প্রসঙ্গে বিবৃতিতে এনভিডিয়া বলেছে, “জোটের অংশ হিসেবে এনভিডিয়া আজিউর ভার্চুয়াল মেশিন কাজে লাগিয়ে গবেষণা এবং জেনারেটিভ এআই প্রযুক্তি উন্নয়নের গতি বাড়াবে।”

সাম্প্রতিক সময়ে ‘জেনারেটিভ এআই মডেল’ নিয়ে আগ্রহ, আলোচনা ও কর্মতৎপরতা বেড়েছে সার্বিক প্রযুক্তি খাতে। 

প্রোগ্রামারদের সরবরাহকৃত এবং অনলাইনে উন্মুক্ত তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে শেখার এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার সক্ষমতা আছে এমন এআই মডেলগুলোই সোজা ভাষায় ‘জেনারেটিভ এআই মডেল’ হিসেবে পরিচিত। এর সাম্প্রতিক উদাহরণ স্টেবল ডিফিউশন এবং ডাল-ই’র মতো হালের আলোচিত এআই ইঞ্জিন। 

ভিডিও বানাতে পারে, কণ্ঠস্বর অনুকরণ করতে পারে এবং অডিও ফাইল থেকে টেক্সট লিখতে পারে এমন এআই মডেলও আছে বাজারে। 

‘জেনারেটিভ এআই মডেল’-এর চাহিদা বাড়তে থাকায় এনভিডিয়া ও মাইক্রোসফট সেই চাহিদাকে সুযোগ হিসেবে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছে আর্স টেকনিকা। 

এনভিডিয়া এবং মাইক্রোসফটের এআই ক্লাউড কম্পিউটার অনলাইনে আসলে সেবাগ্রাহকরা হাজারো জিপিইউকে কাজে লাগিয়ে বৃহত্তম ‘ল্যাঙ্গুয়েজ মডেল’গুলোকেও প্রশিক্ষণ দিতে পারবে বলে দাবি করেছে শীর্ষস্থানীয় জিপিইউ নির্মাতা। 

নতুন যৌথ প্রকল্পের খুঁটিনাটি নিয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য দেয়নি এনভিডিয়া বা মাইক্রোসফট। তবে, একে ‘দীর্ঘমেয়াদী প্রকল্প’ হিসেবে বর্ণনা করেছে উভয় প্রতিষ্ঠান।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে দুই কোম্পানির এআই কেন্দ্রীক ক্লাউড কম্পিউটারের সক্ষমতাও সম্ভবত বাড়তে থাকবে – মন্তব্য আর্সে টেকনিকার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক