চীনের বাজার থেকে ১৬ লাখেরও বেশি গাড়ি সরিয়ে নিচ্ছে টেসলা

২০২৩ সালের ৪র্থ প্রান্তিকে চীনের বিওয়াইডি বিশ্বব্যাপী টেসলার বিদ্যুচ্চালিত গাড়ি বিক্রিকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পর এই ঘটনা দেশটিতে টেসলার জন্য বড় দ্বিতীয় ধাক্কা।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Jan 2024, 07:37 AM
Updated : 7 Jan 2024, 07:37 AM

স্টিয়ারিং সফটওয়্যার ও দরজার লকিং সিস্টেমে সমস্যার কারণে চীনের বাজারে থাকা ১৬ লাখেরও বেশি গাড়ি সরিয়ে নিচ্ছে টেসলা।

সরিয়ে নেওয়া গাড়িগুলোর মধ্যে রয়েছে মডেল এস, এক্স, থ্রি এবং ওয়াই। এছাড়া আরও সাত হাজার পাঁচশ ৩৮টি আমদানি করা গাড়ি অন্তর্ভুক্ত আছে। — প্রতিবেদনে বলেছে বিবিসি।

এই গাড়িগুলোর মধ্যে থাকা সমস্যাগুলোকে দূর থেকেই সফটওয়্যার আপডেটের মাধ্যমে ঠিক করা যাবে। ফলে গাড়িগুলোকে ডিলারের কাছে বা গ্যারাজে নেওয়ার প্রয়োজন হবে না।

অটোপাইলট সফটওয়্যার সমস্যার কারণে টেসলা যুক্তরাষ্ট্র থেকে ২০ লাখ গাড়ি সরিয়ে নেওয়ার এক মাসেরও কম সময়ের মধ্যে এই খবর এল।

এর আগে গত বছরের মে মাসে চীনা নিয়ন্ত্রক সংস্থা স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ফর মার্কেট রেগুলেশন (এসএএমআর) বলেছিল, টেসলার ১০ লাখেরও বেশি গাড়িতে অ্যাকিলেরেশন ও ব্রেকিং সিস্টেমের সমস্যা থাকতে পারে।

এর পরেই গাড়ির অ্যাসিস্ট ড্রাইভিং ফাংশন ও দরজার লকিং সিস্টেমে সমস্যা খুঁজে পেল টেসলা।

এদিকে চীনা নিয়ন্ত্রক সংস্থা ‘এসএএমআর’ গাড়িগুলোকে প্রত্যাহার বা সরিয়ে নেওয়া হিসেবে বর্ণনা করেছে, যদিও এগুলোকে গ্যারাজে নেওয়া হচ্ছে না বলে প্রতিবেদনে লিখেছে বিবিসি।

এসএএমআর বলেছে, টেসলার মোট ১৬ লাখ ১০ হাজার গাড়িতে ‘ওভার-দ্য-এয়ার’ সফটওয়্যার আপডেট দেওয়া হবে। এর মধ্যে আমদানি করা এস ও এক্স মডেলের গাড়ি আছে। পাশাপাশি ২০১৪ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে তৈরি চীনের তৈরি মডেল থ্রি ও ওয়াই মডেলের গাড়িও আছে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি আরও বলেছে, অটোস্টিয়ার ফাংশনের সমস্যাগুলো মোকাবেলা করতে এবং সংঘর্ষের ঝুঁকি কমাতে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

“এই গাড়িগুলোর অটোমেটিক অ্যাসিস্টেড স্টিয়ারিং ফাংশন চালু থাকাকালে চালক এই ফাংশনের অপব্যবহার করতে পারে। যা গাড়িগুলোর সংঘর্ষের ঝুঁকি বাড়ায় এবং নিরাপত্তা বিপত্তি তৈরি করতে পারে।” – বলেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

আলাদাভাবে টেসলা সাত হাজার পাঁচশ ৩৮টি মডেলের এস ও এক্স গাড়ির জন্য সফটওয়্যারটি আপগ্রেড করবে যাতে দরজার সমস্যা দূর করা যায়।

২০২৩ সালের শেষ ত্রৈমাসিক অর্থাৎ ৪র্থ প্রান্তিকে চীনের বিওয়াইডি বিশ্বব্যাপী টেসলার বিদ্যুচ্চালিত গাড়ি বিক্রিকে ছাড়িয়ে যাওয়ার পরে এই ঘটনা দেশটিতে টেসলার জন্য বড় দ্বিতীয় ধাক্কা। — বলেছে  বিবিসি।

এর আগে ২০২২ সালে এরকম আরেকটি ঘটনা দেখেছিল টেসলা। সে সময় গাড়ির পেছনের মোটর ইনভার্টার ত্রুটির জন্য চীনের বাজারের প্রায় ১ লাখ ২৮ হাজার গাড়ি সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল।

চীনে সাধারণ মানুষকে ভর্তুকি দিয়ে বিদ্যুচ্চালিত ও হাইব্রিড গাড়ি কিনতে উৎসাহিত করা হয় এবং সেখানে টেসলার একটি বড় বাজার আছে। দেশটির লক্ষ্য, ২০৩৫ সালের মধ্যে বেশিরভাগ গাড়ি পরিবেশবান্ধব জ্বালানীতে চলবে।

চীনের সাংহাইতে একটি বড় গাড়ি উৎপাদন কারখানাও রয়েছে টেসলার, যেটি বিদেশে টেসলার প্রথম ‘গিগাফ্যাক্টরি’।

চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ‘সিনহুয়া’র তথ্য অনুসারে এই ফ্যাক্টরিতে ২০২৩ সালে ৯ লাখ ৪৭ হাজার গাড়ি তৈরি হয়েছে।