অতপঃর ২১ হাজারের গণ্ডি পেরোলো বিটকয়েন

রোববারের আগ পর্যন্ত এই সব ক্রিপ্টোমুদ্রা তাদের উত্থান ধরে রাখায় টানা দ্বিতীয় সপ্তাহ উত্থানের পাশাপাশি গত এক মাসে নিজেদের সেরা সপ্তাহ কাটাচ্ছে বিটকয়েন।

প্রযুক্তি ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Sept 2022, 11:20 AM
Updated : 11 Sept 2022, 11:20 AM

দুই সপ্তাহে প্রথমবারের মতো ২১ হাজার ডলার ছাড়ালো বিটকয়েনের মূল্য। ২০২০ সালের পর বিটকয়েনের দাম সর্বনিম্ন সাড়ে ১৮ হাজার ডলারে নেমে যাওয়ার পর এই ঊর্ধগতি দেখা যাচ্ছে।

ক্রিপ্টো বিশ্লেষক সাইট কয়েনডেস্ক ডটকমের তথ্য অনুযায়ী, রোববার বিটকয়েনের মূল্য দাঁড়ায় ২১ হাজার ৬১৬ ডলারে।

বিটকয়েনের দাম নয় শতাংশের বেশি বেড়ে ২১ হাজার ২৫৪ ডলারে পৌঁছায় শুক্রবার, যা ছিল এর আগের দুই সপ্তাহের মধ্যে ক্রিপ্টোমুদ্রাটির সর্বোচ্চ দাম।

রয়টার্সের প্রতিবেদন বলছে, এই ধারা অব্যাহত থাকলে ফেব্রুয়ারি পরবর্তী সময়ে সর্বোচ্চ দৈনিক মূল্য বৃদ্ধির হার দেখবে বিটকয়েন।

অন্যদিকে, দ্বিতীয় প্রভাবশালী ক্রিপ্টোমুদ্রা ইথারের দাম পাঁচ শতাংশ বেড়ে এক হাজার সাতশ ৪৬ ডলারে পৌঁছানোয় গত তিন সপ্তাহে নিজের সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত বুধবার বিটকয়েনের দাম কমে দাঁড়িয়েছিল ১৮ হাজার ৫৪০ ডলারে।

লেনদেনকারীরা বলেছেন, শুক্রবার থেকে চলমান এই উত্থানের পেছনে তেমন কোনো নির্দিষ্ট কারণ খুঁজে পাননি তারা। তবে, ডলারের দাম কমে যাওয়ার পর বৈশ্বিক শেয়ারে বিভিন্ন ইতিবাচক উত্থানের বিষয়টি উল্লেখ করেছেন তারা।

গ্লোবালব্লকের বাজার বিশ্লেষক মার্কাস সতিরিওউ বলেছেন, বিটকয়েনের এই উত্থান বলছে, আগামী সপ্তাহে মুদ্রাস্ফীতি কমার খবর জানাতে পারে যুক্তরাষ্ট্র।

মুদ্রাস্ফীতি কমে আসা ক্রিপ্টোমুদ্রার মতো ডিজিটাল সম্পদের জন্য লাভজনক হতে পারে। কারণ, বাজারে ইতিবাচক প্রভাব থাকলে তুলনামূলক ভালো ফলাফল দেখায় ক্রিপ্টোমুদ্রাগুলো।

রোববারের আগ পর্যন্ত এই সব ক্রিপ্টোমুদ্রা তাদের উত্থান ধরে রাখায় টানা দ্বিতীয় সপ্তাহ উত্থানের পাশাপাশি গত এক মাসে নিজেদের সেরা সপ্তাহ কাটাচ্ছে বিটকয়েন।

সপ্তাহ শেষে ইথারের ‘অস্থিরতা’ বাড়তে পারে ‘মার্জ’ নামে পরিচিত একটি সফটওয়্যার আপগ্রেডের কারণে। এই আপগ্রেডের সময় নিশ্চিত না করলেও এটি ১০ থেকে ২০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে হবে বলে অনুমান প্রকাশ করছে রয়টার্স।

এই আপগ্রেডের কারণে লেনদেন প্রক্রিয়ায় আসবে আমূল পরিবর্তন। এ ছাড়া, মাইনিংয়ে শক্তির খরচও কমিয়ে আনবে এটি। আপগ্রেড চলাকালীন জমা ও উত্তোলন বন্ধ রাখার পরিকল্পনা করছে কয়েকটি কোম্পানি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক