পুঁজিবাজারের জন্য নিজস্ব গবেষণার গুরুত্বারোপ

বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম এতে গুরুত্ব দিচ্ছেন।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Sept 2022, 07:23 PM
Updated : 20 Sept 2022, 07:23 PM

বাংলাদেশের পুঁজিবাজারের জন্য লাগসই নিজস্ব গবেষণার প্রতি গুরুত্বারোপ করলেন নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল ইসলাম।

বাজার উন্নয়নের লক্ষ্যে গঠিত সিএমএসএফের (পুঁজিবাজার স্থিতিশীলতা তহবিল) উদ্যোগে মঙ্গলবার আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে একথা বলেন তিনি।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে সিএমএসএফের উদ্যোগে গঠিত হয়েছে ‘আইসিবি এএমসিএল সিএমএসএফ গোল্ডেন জুবিলি মিউচুয়াল ফান্ড’।

এই মিউচুয়াল ফান্ডের উদ্বোধন ও বিনিয়োগকারীদের অদাবিকৃত লভ্যাংশ বিতরণ উপলক্ষে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হয়।

রীতি অনুযায়ী তালিকাভুক্তির পর লেনদেনের পূর্বে মিউচুয়াল ফান্ডটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয় বিশেষ ঘণ্টা বাজানোর মধ্য দিয়ে, পুঁজিবাজারে যা ‘রিং দ্যা বেল সিরিমনি’ নামে পরিচিত।

মঙ্গলবার রাতে ঢাকার একটি হোটেলে মিউচুয়াল ফান্ডটির ‘রিং দ্যা বেল’ আয়োজন করা হলেও দুই পুঁজিবাজারে লেনদেন শুরু হবে বুধবার থেকে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত বলেন, “আমাদের অর্থনীতি ও পুঁজিবাজারের ধরন অনুযায়ী নিজস্ব গবেষণা থাকতে হবে। আজ যা ভালো লাগছে, কয়েক বছর পর তা কিন্তু বদলে যাবে। যদি সেই পরিবর্তন আনতে না পারি তাহলে আমরা পিছিয়ে পড়ব।”

তিনি বলেন, “তালিকাভুক্ত কোম্পানির একটি অংশ তাদের সব ধরনের ব্যয় যেমন; বিদ্যুত, গ্যাস, শ্রমিক মজুরি ব্যাংকের ঋণ পরিশোধ করলেও বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ দিতে চায় না। একারণে বিশাল জনগোষ্ঠী এখনও পুঁজিবাজার বিমুখ। আমরা সেই সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে চেষ্টা করছি।”

মিউচুয়াল ফান্ডকে বিনিয়োগের ভালো গন্তব্য হিসেবে তুলে ধরে বিএসইসি কমিশনার শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বলেন, এজন্যই সিএমএসএফের উদ্যোগে মিউচুয়াল ফান্ড গঠন করা হয়েছে।

বিএসইসির কমিশনার মিজানুর রহমান বলেন, “আমরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করছি বাজার উন্নয়নের জন্য। মিউচুয়াল ফান্ড পরিচালনার পাশাপাশি সিএমএসএফ নিজেদের সক্ষমতাও বাড়াবে।”

অনুষ্ঠানে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) চেয়ারম্যান ইউনুসুর রহমান গুরুত্বরোপ করেন বাজার সম্প্রসারনের উপর।

তিনি বলেন, “আশপাশের দেশগুলোতে মিউচুয়াল ফান্ডের অবস্থান ও বাজার পরিধি অনেক বড়। ভারতেও এ বাজার অনেক বড়। আমরা আশা করছি, বাংলাদেশেও এক সময়ে ব্যাংকের ফিক্সড ডিপোজিট থেকে আয়ের বিকল্প উৎস হবে এই মিউচুয়াল ফান্ড।”

বর্তমান কমিশন দায়িত্ব নেওয়ার সময়ে দেশের পুঁজিবাজারের আকার ছিল ৩ লাখ কোটি টাকার ঘরে। এখন তা ৫ লাখ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে।

ডিএসই সহযোগিতা করলে এক মাসের মধ্যেই পুঁজিবাজারের আকার ৮ লাখ কোটি টাকায় উন্নীত হবে মনে করেন বিএসইসি চেয়ারম্যান।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিএমএসএফের চেয়ারম্যান, সাবেক মুখ্য সচিব নজিবুর রহমান, সঞ্চালনা করেন সিএমএসএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন।

অনুষ্ঠানে শহীদ জননী জাহানারা ইমামের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকৃত ও অদাবিকৃত লভ্যাংশের অর্থ বুঝে নেন তার পরিবারের মনোনীত প্রতিনিধি মো. হাবিবুর রহমান।

এ সময়ে আরও ৪২ জন বিনিয়োগকারীকে তাদের অদাবিকৃত লভ্যাংশ বুঝিয়ে দেওয়া হয়।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত ২১৫ জন বিনিয়োগকারী অদাবিকৃত অর্থ দাবি করেছেন সিএমএসএফ এর কাছে। টাকার অঙ্কে যা ১ কোটি ৩৬ লাখ টাকা বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

এর মধ্যে এ পর্যন্ত ১৮৮ জনের দাবি মিটিয়ে দেওয়া হয়েছে সিএমএফ এর মাধ্যমে। এ পর্যন্ত দাবিকৃত ৯৭ শতাংশই নিস্পত্তি করে অর্থ দেওয়া হয়েছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক