গোল হজমের পর দুর্ভাবনায় পড়ে গিয়েছিলেন মেসিরা

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা শেষ হওয়ার আগমুহূর্ত পর্যন্ত স্বস্তিতে থাকতে পারেনি আর্জেন্টিনা।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Dec 2022, 03:25 AM
Updated : 4 Dec 2022, 03:25 AM

২-০ গোলের নিরাপদ ব্যবধানে এগিয়ে চলছিল আর্জেন্টিনা। মোটামুটি নিস্তরঙ্গ সেই আবহে হঠাৎ ঝড়ো হাওয়া হয়ে আসে আত্মঘাতী গোল। নতুন মোড় নিয়ে খেলা জমে ওঠে দারুণভাবে। শেষ পর্যন্ত আর এক গোলের ব্যবধান ধরে রাখতে পারে আর্জেন্টিনা। তবে গোল হজমের পর যে তারা বড় চাপে পড়ে গিয়েছিলেন, ম্যাচ শেষে অকপটেই বললেন লিওনেল মেসি।

কাতার বিশ্বকাপের শেষ ষোলোর এই ম্যাচে শনিবার অস্ট্রেলিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালে পা রাখে আর্জেন্টিনা। প্রথমার্ধে মেসির দারুণ এক গোলের পর দ্বিতীয়ার্ধে অস্ট্রেলিয়ান গোলকিপারের ভুলকে কাজে লাগিয়ে দলকে আরও এগিয়ে নেন হুলিয়ান আলভারেস।

৭৭তম মিনিটে অস্ট্রেলিয়ার ক্রেইগ গুডউইনের শট আর্জেন্টিনার এনসো ফার্নান্দেসের মুখের এক পাশে লেগে দিক পরিবর্তন করে ঢুকে যায় জালে। খেলায় উত্তেজনা ফেরে প্রবলভাবে। পরের সময়টায় আর্জেন্টিনা যেমন দারুণ কিছু সুযোগ হাতছাড়া করে, তেমনি সমতায় ফেরার সুযোগ আসে অস্ট্রেলিয়ার সামনেও। গোল যদিও আর হয়নি। একদম শেষ সময়ে অস্ট্রেলিয়া সুবর্ণ এক সুযোগ পেয়েছিল গোলের, যেখানে আর্জেন্টিনাকে বাঁচান গোলরক্ষক।

জিততে শেষ পর্যন্ত ঘাম ছুটে যায় মেসিদের। তবে বিশ্বকাপের ম্যাচে এমনটি প্রত্যাশিতই, বললেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক।

“শেষ দিকে ওদের গোলটি হওয়ার পর পরিস্থিতি জটিল হয়ে গিয়েছিল। এটা বিশ্বকাপের ম্যাচ, এখানে কাজটা কখনোই সহজ নয়। বিশ্বকাপ এবার শুরু থেকেই ছিল কঠিন, তবে এই পর্যায়ে তা আরও কঠিন।”

কঠিন এক লড়াইয়ে জয়ের তৃপ্তি ছিল আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনির কণ্ঠেও।

“আমরা সন্তুষ্ট। আজকের ম্যাচ ভীষণ কঠিন ছিল। তারা প্রবল চাপে ফেলে দিয়ে আমারে নাভিশ্বাস তুলে ছেড়েছিল।”

“শেষ সময়ে এমন ভোগান্তিতে পড়া আমাদের উচিত হয়নি। কারণ আমাদের সামনে সুযোগ ছিল আরও এগিয়ে যাওয়ার। তবে আমার ছেলেদের জন্ম হয়েছে এই ধরনের ম্যাচ খেলার জন্যই।”

৩৬ বছরের শিরোপা খরা ঘোচানোর লক্ষ্যে আরেকধাপ এগিয়ে যাওয়ার পথে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ এবার নেদারল্যান্ডস। সেমি-ফাইনালে ওঠার এই লড়াই আগামী শুক্রবার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক