টুখেলের আবেগঘন বার্তা

১৯ মাসের চেলসি অধ্যায় শেষে আপাতত বেকার জীবন কাটাচ্ছেন টমাস টুখেল।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 12 Sept 2022, 09:47 AM
Updated : 12 Sept 2022, 09:47 AM

চেলসির খুব কঠিন সময়ে হাল ধরেছিলেন টমাস টুখেল। অল্প সময়ে দলটিকে এনে দিয়েছিলেন সর্বোচ্চ সাফল্য। ক্লাবটিকে খুব দ্রুত আপন করে নেন তিনি। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ তার কাছে হয়ে উঠেছিল নিজের বাড়ির মতো। তবে সেসব এখন কেবলই স্মৃতি।

টুখেলের সুখের সেই অধ্যায় এরই মধ্যে ফুরিয়ে গেছে। নতুন মৌসুমের শুরুর কদিনের ব্যর্থতায় সবশেষ গত মঙ্গলবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দিনামো জাগরেবের বিপক্ষে হেরে বসে চেলসি। এতেই যেন ধৈর্যের বাধ ভেঙে যায় ক্লাব কর্তৃপক্ষের। পরদিনই জার্মান এই কোচকে ছাঁটাই করে দেয় তারা।

মালিকপক্ষের হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত টুখেলের জীবনে যেন অনেক বড় ধাক্কা হয়ে আসে, সেটা প্রমাণ পেল তার কথায়। রোববার নিজের টুইটারে আবেগঘন বার্তায় প্রিয় ক্লাবকে বিদায় জানান তিনি।

“জীবনে এ পর্যন্ত আমাকে যতবার বিবৃতি লিখতে হয়েছে, তার মধ্যে এটাই সবচেয়ে কঠিন ও কষ্টের এবং আশা করি, আগামীতে অনেক বছর আমাকে এমন কিছু আর লিখতে হবে না। চেলসিতে আমার সময় শেষ হয়ে যাওয়ায় আমি প্রচণ্ড হতাশ, বিধ্বস্ত।”

“এটা এমন একটা ক্লাব যেখানে আমি স্বচ্ছন্দ বোধ করতাম, পেশাদার ও ব্যক্তিগত দুইভাবেই। ”

চেলসিতে টুখেলের শুরুটা ছিল বিস্ময় জাগানিয়া। ২০২০ সালের জানুয়ারিতে তিনি যখন দায়িত্ব নেন, তখন চেলসি রীতিমত ধুঁকছিল। প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলে তারা নেমে গিয়েছিল আট নম্বরে। ওই দিক হারা দলটির ডাগআউটে টুখেল যেন পরশপাথরের মতো হাজির হন।

তার হাত ধরে প্রথম চার ম্যাচ জয়সহ লিগে টানা ১৩ ম্যাচ অপরাজিত ছিল চেলসি, দলটির নতুন কোচের হিসেবে যা রেকর্ড। শেষ পর্যন্ত তারা আসর শেষ করেছিল শীর্ষ চারে থেকে। সবচেয়ে বড় চমক তারা দেখিয়েছিল চ্যাম্পিয়ন্স লিগে। অবিশ্বাস্য এক যাত্রায় দ্বিতীয়বারের মতো ইউরোপ সেরার মুকুট পরে তারা। পরে ওই বছর উয়েফা সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপও জেতে দলটি।

পরের মৌসুমে অবশ্য কোনো শিরোপা জিততে পারেনি তারা। প্রিমিয়ার লিগ শেষ করে তৃতীয় স্থানে থেকে। আর এই মৌসুমে লিগে প্রথম ৬ ম্যাচে মাত্র তিনটি জিততে পারে দলটি। এরপরই ওই চ্যাম্পিয়ন্স লিগে হার। তারপরও মৌসুম শুরুর এক মাসের মাথায় কোনো দলের কোচ ছাঁটাই বেশ অবাক করার ঘটনাই।

তবে বিদায়বেলায় আর সেসব মনে রাখতে চাইলেন না টুখেল। শিরোপা জয়ের সুখস্মৃতি মনে নিয়েই বিদায় বললেন তিনি।

“এই দলকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ক্লাব বিশ্বকাপ জিতিয়ে যে আনন্দ ও গর্ব আমি অনুভব করেছি, তা সারাজীবন আমার মনে থাকবে। এই ক্লাবের অংশ হতে পেরে আমি সম্মানিত। এখানে গত ১৯ মাসের স্মৃতি আমার হৃদয়ে বিশেষ জায়গা নিয়ে থাকবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক