এমবাপেকে নিয়ে প্রশ্নে রেয়াল মাদ্রিদ সভাপতি বললেন, ‘২ ম্যাচে ৯ গোল করেছি আমরা’

এমবাপের সঙ্গে রেয়ালের যোগাযোগ কতটা হচ্ছে বা আদৌ হচ্ছে কি না, তা পরিষ্কার করেননি ফ্লোরেন্তিনো পেরেস।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Jan 2024, 08:45 AM
Updated : 15 Jan 2024, 08:45 AM

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের উড়িয়ে ফাইনাল জয় মানে বাড়তি তৃপ্তি। সেই উচ্ছ্বাসই খেলা করছিল ফ্লোরেন্তিনো পেরেসের চোখেমুখে। এই জয়ের মতো আরেকটি প্রশ্নও তো এখন খুবই প্রাসঙ্গিক, কিলিয়ান এমবাপে কি রেয়াল মাদ্রিদে আসবেন? স্প্যানিশ সুপার কাপ জয়ের পর যদিও এই প্রসঙ্গে ঢুকতেই চাইলেন না রেয়াল মাদ্রিদের সভাপতি। তবে গোল করার কাজটি যে তার দল ভালোই করছে, সেটি বুঝিয়ে দিলেন তিনি।

জানুয়ারির ট্রান্সফার উইন্ডো শুরুর আগ থেকেই এমবাপের সম্ভাব্য ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা চলছে। সেই আলোচনায় গত দুই মৌসুমের ধারাবাহিকতায় রেয়াল মাদ্রিদের নামই উঠে এসেছে সবচেয়ে বেশি। পিএসজির এই ফরোয়ার্ডকে রেয়াল এক সপ্তাহ বা দুই সপ্তাহ সময় দিয়েছে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বা দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে বলেছে, এরকম নানা খবর শোনা গেছে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে। তবে কোনো পক্ষ থেকেই আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানা যায়নি।

স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে রোববার বার্সেলানাকে গুঁড়িয়ে শিরোপা জয়ের পর সরাসরিই প্রশ্নটি ছুটে গেল পেরেসের দিকে। কিন্তু সেই প্রশ্নকে খুব একটা পাত্তা দিলেন না রেয়াল মাদ্রিদ সভাপতি।

“এসব নিয়ে কথা বলার দিন আজকে নয়। আজকের দিনটি হলো আমার ফুটবলারদের অভিনন্দন জানানোর দিন, অন্য দলের কাউকে নিয়ে কথা আজ নয়।”

সুপার কাপের ফাইনালে বার্সেলোনাকে ৪-১ গোলে হারায় রেয়াল। প্রথমার্ধেই হ্যাটট্রিক করেন ভিনিসিউস জুনিয়র, ব্রাজিলের প্রথম ফুটবলার হিসেবে তিনি বার্সেলোনার বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করলেন রেয়ালের জার্সি গায়ে। দ্বিতীয়ার্ধে গোল করেন আরেক ব্রাজিলিয়ান রদ্রিগো।

ফাইনালের আগে সেমি-ফাইনালে ৮ গোলের রোমাঞ্চকর লড়াইয়ে রেয়াল ৫-৩ গোলে হারায় আতলেতিকো মাদ্রিদকে। গোল করার জন্য এমবাপের মতো কারও অপেক্ষায় যে তারা কাতর নয়, সেটিই হয়তো পরের কথায় বুঝিয়ে দিতে চাইলে রেয়াল সভাপতি।

“সবশেষ দুই ম্যাচে আমরা ৯ গোল করেছি। রেয়াল মাদ্রিদের সমর্থকদের মনোযোগ নিশ্চিতভাবে এই ফুটবলারদের দিকেই। তাকিয়ে দেখুন ওদের দিকে, কতটা খুশি ওরা…।”

পিএসজির সঙ্গে এমবাপের চুক্তি শেষ হচ্ছে এই মৌসুমেই। ক্লাব প্রেসিডেন্ট নাসের আল খেলাইফি থেকে শুরু করে ক্লাব সংশ্লিষ্ট সবাই বারবারই বলেছেন, ফরাসি তারকাকে ধরে রাখতে তারা মরিয়া। এমবাপে কিছুদিন আগে বলেছেন, এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেননি তিনি।