ইব্রাহিমোভিচ জাদুতে ইউনাইটেডের শিরোপা

দলের সবচেয়ে প্রয়োজনের সময় সাড়া দিয়েছেন জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচ। গোল করেছেন, সামলেছেন রক্ষণ। তার জাদুকরী ফুটবলে লিগ কাপের শিরোপা জিতেছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 Feb 2017, 06:50 PM
Updated : 26 Feb 2017, 07:34 PM

ফাইনালে দারুণ ফুটবল খেলেও ৩-২ গোলে হেরেছে সাউথ্যাম্পটন। ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকে সমতা ফিরিয়েছিল দলটি। তৈরি করেছিল অসংখ্য সুযোগ। কিন্তু ভাগ্যকে পাশে পায়নি; লাইন থেকে ফিরেছে বল, পোস্টে লেগে ব্যর্থ হয়েছে প্রচেষ্টা।

ইব্রাহিমোভিচ ও জেসে লিনগার্ডের গোলে এগিয়ে যায় ইউনাইটেড। মানোলো গাব্বিয়াদিনির জোড়া গোলে সমতায় ফেরে সাউথ্যাম্পটন। শেষের দিকে ইব্রাহিমোভিচের হেড জালে গেলে আবার এগিয়ে যায় প্রতিপক্ষ। এবার আর সমতা ফেরাতে পারেনি সাউথ্যাম্পটন। তাতে ইউনাইটেডের প্রথম কোচ হিসেবে প্রথম মৌসুমেই শিরোপা জয়ের কীর্তি গড়েন জোসে মরিনিয়ো।

ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে রোববার রাতে শুরু থেকেই ইউনাইটেডকে চেপে ধরে সাউথ্যাম্পটন। একাদশ মিনিটে গাব্বিয়াদিনি জালে বলও পাঠান। কিন্তু রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে বেঁচে যায় ইউনাইটেড। গাব্বিয়াদিনি নন, অফসাইডে ছিলেন রায়ান বার্ট্রান্ড।

খেলার ধারার বিপরীতেই ১৯তম মিনিটে ইব্রাহিমোভিচের দারুণ ফ্রি-কিকে এগিয়ে যায় ইউনাইটেড। বুলেট গতির শট ঝাঁপিয়ে নাগালে পাননি সাউথ্যাম্পটন গোলরক্ষক ফর্স্টার।

২৮তম মিনিটে গাব্বিয়াদিনি আর ৩২তম মিনিটে দুসান তাদিচের দুটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ করে দেন ইউনাইটেড গোলরক্ষক দাভিদ দে হেয়া। ছয় মিনিট পর পাল্টা আক্রমণ থেকে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন লিনগার্ড।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে আর গাব্বিয়াদিনিকে ঠেকিয়ে রাখতে পারেননি দে হেয়া। ডাইভ না দিয়ে পা বাড়িয়ে ঠেকাতে গিয়ে ব্যর্থ হন এই স্প্যানিশ গোলরক্ষক।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই সমতা ফেরান সাম্পদরিয়া থেকে চলতি বছরই সাউথ্যাম্পটনে আসা ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড গাব্বিয়াদিনি। এবার তাকে ফেরানোর চেষ্টাও করতে পারেননি গোলরক্ষক। তাকিয়ে দেখা ছাড়া আর কিছুই করার ছিল না দে হেয়ার।

৬৩তম মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো সাউথ্যাম্পটন। ওরিয়ল রোমেওর হেড পোস্টে লাগলে বেঁচে যায় ইউনাইটেড। ৭৬তম মিনিটে অনেক ওপর দিয়ে শট নিয়ে দলকে এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করেন লিনগার্ড।

সময় যত গড়িয়েছে, গতি কমেছে সাউথ্যাম্পটনের। আক্রমণে গেছে ইউনাইটেড। এর মধ্যেও সুযোগ তৈরি করে সাউথ্যাম্পটন। ৮৬তম মিনিটে জ্যাক স্টিভেনের প্রচেষ্টা লাইন থেকে হেড করে ফেরান ইব্রাহিমোভিচ। পরের মিনিটে ভক্তদের আনন্দের আরও বড় উপলক্ষ্য এনে দেন এই সুইডিশ স্ট্রাইকার। আন্দের এররেরার ক্রসে তার আরেকটি দুর্দান্ত হেডে এগিয়ে যায় ইউনাই্টেড।

গোলের আশায় বেঞ্চ থেকে ওয়েইন রুনিকে মাঠে নামাচ্ছিলেন মরিনিয়ো। ইব্রাহিমোভিচের দ্বিতীয় গোলের পর আর নামা হয়নি তার। ফেলাইনিকে নামিয়ে রক্ষণ আরও জমাট করে বাকি সময়টুকু কাটিয়ে দেয় ইউনাইটেড।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক