নেইমার-এমবাপের নৈপুণ্যে পিএসজির বড় জয়

মৌসুমে প্রথম প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচ খেলতে নেমে গোল পেলেন কিলিয়ান এমবাপে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 August 2022, 08:56 PM
Updated : 13 August 2022, 08:56 PM

দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে নেইমার করলেন জোড়া গোল। শুরুতে পেনাল্টি মিসের হতাশা পেছনে ফেলে জালের দেখা পেলেন কিলিয়ান এমবাপেও। দাপুটে পারফরম্যান্সে মোঁপেলিয়েকে উড়িয়ে লিগ ওয়ানে জয়ের ধারা ধরে রাখল পিএসজি।

প্যারিসে নিজেদের মাঠে শনিবার রাতে লিগ ম্যাচটি ৫-২ গোলে জিতেছে ক্রিস্তফ গালতিয়ের দল। স্বাগতিকদের আরেক গোলদাতা রেনাতো সানচেস, অন্যটি প্রতিপক্ষের আত্মঘাতী।

নতুন মৌসুমে প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচে এই প্রথম মাঠে নামলেন এমবাপে। নঁতকে ৪-০ গোলে গুঁড়িয়ে পিএসজির ফরাসি সুপার কাপ জয়ের ম্যাচে তিনি খেলতে পারেননি নিষেধাজ্ঞার কারণে। এরপর চোটের জন্য লিগে ক্লেহমোঁর বিপক্ষে ৫-০ ব্যবধানে জয়ের ম্যাচে ছিলেন না বিশ্বকাপ জয়ী তারকা।

প্রথম মিনিট থেকে মোঁপেলিয়ের রক্ষণে প্রবল চাপ বাড়ায় পিএসজি। নিশ্চিত সুযোগ যদিও মিলছিল না। সপ্তদশ মিনিটে দারুণ পজিশনে নেইমারকে খুঁজে নেন প্রথম ম্যাচে জোড়া গোল করা লিওনেল মেসি। তবে প্রথম ছোঁয়ায় বল নিয়ন্ত্রণে নিতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান তারকা।

এর কিছুক্ষণ পর দলকে এগিয়ে নেওয়ার সুবর্ণ সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন এমবাপে। তার স্পট কিক ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক। মোঁপেলিয়ের ডি-বক্সে তাদের মিডফিল্ডার জর্দান ফেরির হাতে বল লাগলে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টি দেন রেফারি।

পিএসজির একের পর এক আক্রমণের সামনে দেয়াল হয়ে ওঠেন ইয়োনাস অমলিন। ২৬তম মিনিটে মেসির বাঁকানো ফ্রি কিক দারুণ নৈপুণ্যে ঠেকানোর তিন মিনিট পর তার আরেকটি শটও কর্নারের বিনিময়ে রুখে দেন সুইস গোলরক্ষক। খানিক পর ডি-বক্সে বল পায়ে ঢুকে ডান পায়ের শটটা লক্ষ্যে রাখতে পারেননি সাবেক বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড।

অমলিনের নৈপুণ্যে প্রতিপক্ষকে বেঁধে রাখতে পারলেও ৩৯তম মিনিটে নিজেদের ভুলেই পিছিয়ে পড়ে মোঁপেলিয়ে। ডি-বক্সে ডান দিক থেকে এমবাপের গোলমুখে বাড়ানো জোরাল পাস ঠেকাতে গিয়ে নিজেদের জালে জড়ান ডিফেন্ডার সাকো।

তিন মিনিট পর দ্বিতীয় গোলও পেয়ে যায় চ্যাম্পিয়নরা। ডি-বক্সে মালির রাইট-ব্যাক সাকোর হাতে বল লাগলে ম্যাচে দ্বিতীয় পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। ট্রেডমার্ক পেনাল্টি শটে গোলরক্ষককে ফাঁকি দিয়ে স্কোরলাইন ২-০ করেন নেইমার।

দ্বিতীয়ার্ধের ষষ্ঠ মিনিটে চমৎকার গোলে ব্যবধান আরও বাড়ান এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। বল ক্লিয়ার করতে শট নেন অমলিন, সেটা আটকে দেন এমবাপে। এরপর তিনি বক্সের ডান দিকে পাস দেন আশরাফ হাকিমিকে। এই ডিফেন্ডারের ক্রস প্রতিপক্ষের একজনের পায়ে লাগার পর কাছ থেকে ডাইভিং হেডে বল জালে পাঠান নেইমার।

এই নিয়ে এবারের লিগে তৃতীয় ও মৌসুমে পঞ্চম গোল করলেন ৩০ বছর বয়সী তারকা।

৫৮তম মিনিটে লক্ষ্যে প্রথম শট নিতে পারে মোঁপেলিয়ে। ওয়াহির শট জানলুইজি দোন্নারুম্মা ঝাঁপিয়ে ঠেকালেও বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ফিরতি বল পেয়ে বাঁ পায়ের শটে ব্যবধান কমান ওহাবি খাজরি।

৬৯তম মিনিটে তিন গোলের লিড পুনরুদ্ধার করেন এমবাপে। কর্নার ঠিকমতো ক্লিয়ার করতে পারেনি সফরকারীরা। বক্সের মাঝ থেকে ফরাসি ফরোয়ার্ড পা বাড়িয়ে বল জালে পাঠান।

৮৫তম মিনিটে হ্যাটট্রিকের উৎসব শুরু করে দেন নেইমার। ডি-বক্সের বাইরে থেকে মেসির ভলি ছয় গজ বক্সের সামনে বুক দিয়ে নামিয়ে জালে পাঠান তিনি। তবে ভিএআরের সাহায্যে অফসাইডের বাঁশি বাজান রেফারি।

এক মিনিট পরই জালের দেখা পান সানচেস। নুনো মেন্দেসের পাসে বাঁ পায়ের শটে গোলটি করেন একটু আগেই বদলি নামা এই পর্তুগিজ মিডফিল্ডার।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে এনজোর গোলে পরাজয়ের ব্যবধানই কেবল কমে মোঁপেলিয়ের। সতীর্থের থ্রু বল ধরে দুরূহ কোণ থেকে ডান পায়ের শটে গোলটি করেন তিনি।

২ ম্যাচে শতভাগ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ৪ পয়েন্ট করে নিয়ে লিল দুইয়ে ও মোনাকো তিনে আছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক