মৌসুমের মাঝামাঝি বিশ্বকাপ, খেলোয়াড়দের নিয়ে উদ্বিগ্ন টুখেল-ক্লপ

ভুল সময়ে কাতার বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে বলে মনে করেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 August 2022, 04:15 PM
Updated : 5 August 2022, 04:15 PM

ফুটবলের ঠাসা সূচি নিয়ে এমনিতেই আলোচনা-সমালোচনার শেষ নেই। কাতার বিশ্বকাপ সেখানে যোগ করেছে বাড়তি মাত্রা। ইউরোপিয়ান ক্লাব মৌসুমের মাঝামাঝি সময়ে হতে যাওয়া বৈশ্বিক আসর ফুটবলারদের ওপর মানসিক ও শারীরিকভাবে বিরূপ প্রভাব ফেলবে বলে মনে করেন চেলসি কোচ টমাস টুখেল।

একই কারণে ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলোর কড়া সমালোচনা করেছেন লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লপ। তার মতে, ভুল সময়ে হচ্ছে এবারের বিশ্বকাপ।

ফুটবল বিশ্বকাপ হয়ে থাকে সাধারণত জুন-জুলাইয়ে। তবে ব্যতিক্রম হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপের ক্ষেত্রে। ওই সময়ে মরুর দেশটিতে প্রচণ্ড গরমের কথা মাথায় রেখে নভেম্বর-ডিসেম্বরে বিশ্বকাপ আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেয় ফিফা।

টুখেল মনে করেন, বিশ্বকাপ ঘিরে তৈরি আবেগ ও চাহিদা দিনশেষে ফুটবলারদের নিঃশেষ করে ফেলতে পারে। আর ক্লপ তো আসছে বিশ্বকাপের কথা শুনলেই ‘ক্ষেপে যান’। খেলোয়াড়দের সুরক্ষার জন্য সব পক্ষের একসঙ্গে কাজ করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

কাতার বিশ্বকাপ শুরু হবে আগামী ২১ নভেম্বর, যা চলবে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এর জন্য ১২ নভেম্বর থেকে বিরতি থাকবে প্রিমিয়ার লিগে। বিশ্বকাপ শেষে লিগ আবার মাঠে গড়াবে ২৬ ডিসেম্বর, যা বক্সিং ডে নামে পরিচিত। ইউরোপের অন্য লিগগুলোও এই সময়ে বন্ধ থাকবে।

২০২২-২৩ প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচের আগের দিন শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে টুখেল বলেন, ক্লাব মৌসুমের মাঝামাঝি বিশ্বকাপের কোনো যৌক্তিকতাই খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি।

“এটা যুক্তিসঙ্গত নয়। খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপ নিয়ে খুব মনোযোগী, যা একটি ভালো দিক, কারণ তারা এজন্য শরীরের প্রতি খেয়াল রাখে এবং নিজেদের যত্ন নেয়। একই সঙ্গে এটি খারাপ দিকও, কারণ তারা শুধু ক্লাব নিয়ে নয়, বিশ্বকাপ নিয়েও মনোযোগী। অক্টোবরে বিশ্বকাপ যখন কাছাকাছি আসবে, তখন আমরা দেখতে পারব এটি খেলোয়াড়দের এবং তাদের পারফরম্যান্সকে কীভাবে ও কতটা প্রভাবিত করছে।”

“বিশ্বকাপ খেলোয়াড়দের ওপর মানসিক ও শারীরিকভাবে বড় প্রভাব ফেলবে, তারা নিঃশেষ হয়ে ফিরে আসবে। বড় সাফল্য কিংবা বড় হতাশাও তাদের মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করতে পারে, আর ঠিক তার কয়েকদিন পরই আমাদের বক্সিং ডে। এই সব বিষয় নিয়ে আমি কিছুটা চিন্তিত।”

লিভারপুল কোচ ক্লপ এই পরিস্থিতিকে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে তুলনা করেছেন। তার মতে, সবাই বিষয়টি নিয়ে কথা বলে কিন্তু সমাধানের চেষ্টা কেউ করে না।

"কেউ যদি বিশ্বকাপে ফাইনালে ওঠে এবং জেতে বা হারে অথবা তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ খেলে, তার মানে আগে থেকেই সে ব্যস্ত সময়ের মধ্যে থাকবে, তার এক সপ্তাহ পরই আবার বাকিটা (ক্লাব ফুটবল) শুরু হবে। বিরতিটা যদি সব খেলোয়াড় পেত, তাহলে এটা কোনো সমস্যাই নয়, বরং ভালো।”

“যখন বিষয়টি (শীতকালে বিশ্বকাপ) নিয়ে কথা বলতে শুরু করি, আমি সত্যিই রেগে যাই...বিষয়টা জলবায়ু পরিবর্তনের মতো হয়ে গেছে। আমরা সবাই জানি এই সমস্যার সমাধাণ করতে হবে, কিন্তু কেউ বলছে না আমাদের কী করতে হবে। সব পক্ষকে নিয়ে একটা মিটিং হতে হবে, যেখানে সবাই পরস্পরের সঙ্গে কথা বলবে এবং আলোচনার একমাত্র বিষয় হওয়া উচিত এই খেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ খেলোয়াড়।”

কোনোরকম দ্বিধা ছাড়াই বিরক্তিভরা কণ্ঠে ক্লপ বলে দিলেন, “এবারের বিশ্বকাপ ভুল কারণে ভুল সময়ে হচ্ছে।”

প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে শনিবার চেলসি খেলবে এভারটনের বিপক্ষে, একই দিন লিভারপুলের প্রতিপক্ষ ফুলহ্যাম।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক