রাঁসের মাঠে পয়েন্ট হারাল পিএসজি

বদলি নেমে তেমন কিছু করতে পারেননি ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমারও।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Oct 2022, 08:59 PM
Updated : 8 Oct 2022, 08:59 PM

লিওলেন মেসির শূণ্যতা পূরণ করতে পারলেন না কেউ। ছায়া হয়ে থাকলেন কিলিয়ান এমবাপে। বদলি নেমে নির্ণায়ক হয়ে উঠতে পারলেন না নেইমারও। ফরোয়ার্ডদের ব্যর্থতায় রাঁসের মাঠে হোঁচট খেল পিএসজি।

লিগ ওয়ানে শনিবার রাতে রাঁসের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র করে অনেকটা সময় একজন কম নিয়ে খেলা পিএসজি। টানা পাঁচ জয়ের পর ফের পয়েন্ট হারাল তারা এবং সব মিলিয়ে লিগে এটি তাদের দ্বিতীয় ড্র।

জয়ের ধারায় থাকতে না পারলেও ১০ ম্যাচে ২৬ পয়েন্ট নিয়ে ঠিকই লিগ টেবিলে শীর্ষে আছে পিএসজি। ৩ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে মার্সেই।

চতুর্দশ স্থানে থাকা রাঁসের পয়েন্ট ৮।

মেসি ও নেইমারকে বেঞ্চে রেখে একাদশ সাজান পিএসজি কোচ। তাতে এমবাপের সঙ্গে পাবলো সারাবিয়া ও কার্লো সোলেরের কাঁধে ওঠে গোল এনে দেওয়ার ভার।

কিক অফের পর প্রথম আক্রমণ থেকে গোল পেতে পারত তারা। দ্বিতীয় মিনিটে ডান দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা সারারিয়ার ক্রসে গোলমুখে দরকারি টোকা দিতে পারেননি কেউ।

রাঁসের রক্ষণে চাপ ধরে রাখা পিএসজি আরেকটি সুযোগ পায় ত্রয়োদশ মিনিটে। অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বলের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া এমবাপে বক্সে বল বাড়ান সারাবিয়ার উদ্দেশে। এক ডিফেন্ডারের চার্জে শট না নিয়ে এই স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড বল ঠেলে দেন ফাবিয়ান রুইজকে। তার বুলেট গতির শট আটকান গোলরক্ষক। পোস্টে এটাই ছিল পিএসজির প্রথম শট।

৩১তম মিনিটে সোলেরের থ্রু পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলরক্ষককে একা পেয়েছিলেন এমবাপে, কিন্তু তার গায়ে মেরে বসেন। নুর্দি মুকিয়েলের ফিরতি শট হতাশা বাড়িয়ে উড়ে যায় পোস্টের উপর দিয়ে।

একটু পরই পিএসজির ত্রাতা গোলরক্ষক জানলুইজি দোন্নারুম্মা। বক্সে প্রথম ছোঁয়ায় বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে মার্শাল মুনেতসির নেওয়া জোরাল সাইড ভলি আটকান তিনি।

পিএসজির বারবার সুযোগ হারানোর হতাশার সঙ্গে যোগ হয় আরেক ধাক্কা। ৪১তম মিনিটে রেফারির সাথে বচসায় দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন সের্হিও রামোস। একই ঘটনায় হলুদ কার্ড দেখেন দলটির মার্কো ভেরাত্তিও।

বলের নিয়ন্ত্রণে যোজন যোজন পিছিয়ে থাকা রাঁসের আরেকটি সুযোগ নষ্ট হয় প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে। গোলমুখ থেকে এমানুয়েল আগবাদৌয়ের টোকায় বল ক্রসবারের উপর দিয়ে উড়ে যায়।

৫১তম মিনিটে আরবের জেনেলির কাছের পোস্টে নেওয়া নিচু শট আটকে আবারও পিএসজির ত্রাতা দোন্নারুম্মা। ছয় মিনিট পর সোলেরেকে তুলে নেইমারকে নামান কোচ।

৬৭তম মিনিটে অবিশ্বাস্য শট নিয়ে হতাশ করেন নেইমার। মাঝমাঠে রাঁস বল হারালে পেয়ে যান এমবাপে। তার থ্রু পাস ধরে গোলরক্ষককে একা পেয়েও বাইরে মারেন ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। এমন সুযোগ হারিয়ে হতাশা ফুটে ওঠে নেইমারের অভিব্যক্তিতে।

সারাবিয়াকে তুলে ৮৭তম মিনিটে আশরাফ হাকিমিকে নামান ক্রিস্তফ গালতিয়ে। শেষ দিকে একটি ফাউলের ঘটনা কেন্দ্র করে দুই পক্ষ ধাক্কাধাক্কিতে জড়ায়। নেইমারের ফ্রি কিক হেডে ক্লিয়ার করেন এক ডিফেন্ডার।

এরপরই পাল্টা আক্রমণে ওঠা রাঁসের খেলোয়াড়কে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখেন নেইমার। এই ঘটনায় ফের শুরু হয় হাতাহাতি! গোলহীন ম্যাচের শেষটা ছিল এমনই উত্তাপ ছড়ানো।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে মঙ্গলবার বেনফিকার মুখোমুখি হবে পিএসজি। রাঁসের বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ, কিন্তু পারল না তারা।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক