বার্সাকে হারিয়ে নতুন শুরুর আশায় ইন্টার কোচ

লা লিগার ক্লাবটির বিপক্ষে দলের খেলায় দারুণ খুশি সিমোন ইনজাগি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Oct 2022, 12:09 PM
Updated : 5 Oct 2022, 12:09 PM

মৌসুমের শুরু থেকে দল নেই ছন্দে। বার্সেলোনার বিপক্ষে হেরে গেলে শঙ্কা জাগত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায়ের। হাইভোল্টেজ ম্যাচটিই জিতে যেন হারানো আত্নবিশ্বাস ফিরে পেয়েছে ইন্টার মিলান। এই জয় দিয়ে হতাশার গণ্ডি ভেঙে নতুন শুরুর ব্যাপারে আশাবাদী হয়ে উঠেছেন দলটির কোচ সিমোন ইনজাগি।

সান সিরোয় গত মঙ্গলবার ‘সি’ গ্রুপের ম্যাচে হাকান কালহানোগলুর একমাত্র গোলে বার্সেলোনাকে হারিয়েছে ইন্টার। এই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে দুই নম্বরে আছে ইনজাগির দল। 

৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে বায়ার্ন মিউনিখ, ৩ পয়েন্ট নিয়ে তিনে বার্সেলোনা।

স্বস্তির জয়ের আগে সাম্প্রতিক ফর্মের কারণে বেশ চাপে ছিল ইন্টার ও ইনজাগি। সেরি আয় গতবারের রানার্সআপরা চলতি লিগে আট ম্যাচের চারটিতে হেরে নেমে গেছে নবম স্থানে, চার জয়ের তাদের পয়েন্ট ১২। লিগে এখন পর্যন্ত ১৩ গোল হজম করেছে মিলানের দলটি।

বার্সেলোনার বিপক্ষে জয় না পেলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের পথচলাও কঠিন হয়ে যেত ইন্টারের জন্য। শাভি এরনান্দেসের দলের কাছে হেরে গেলে হয়তো চাকরিটাও হারাতে হতো ইনজাগিকে, শোনা গিয়েছিল এমন গুঞ্জনও।

দারুণ জয়ে শঙ্কার সব মেঘ আপাতত সরিয়ে দিতে পেরে উচ্ছ্বসিত ৪৬ বছর বয়সী ইনজাগি। বার্সেলোনা ম্যাচের পর স্কাই স্পোর্ট ইতালিয়াকে বলেন, দল যেভাবে খেলেছে তাতে সন্তুষ্ট তিনি।

“আমরা এমন কিছুর জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষায় ছিলাম। সমর্থক ও ক্লাবের জন্য আমি খুশি, কিন্তু আমরা এখনও কিছুই জিতিনি। রাতটা উজ্জ্বল করতে এটার প্রয়োজন ছিল, একই সঙ্গে এটা দারুণ কিছুর শুরুও।”

“আমি বলব না যে এটি অপ্রত্যাশিত। আমি গতকাল (সোমবার) বলেছিলাম, যে বিশ্বের সেরা দলগুলোর একটির বিপক্ষে আমাদের জন্য দারুণ এক সুযোগ। আমরা আগ্রাসন ও সংকল্প নিয়ে খেলেছি, কারণ এটাই এই ধরনের প্রতিপক্ষকে হারানোর একমাত্র উপায়।”

২০২১-২২ মৌসুমে ইন্টারের দায়িত্ব নেন ইনজাগি। প্রথম মৌসুমে তার হাত ধরে ক্লাবটি দুটি ঘরোয়া শিরোপা জিতলেও ব্যর্থ হয় সেরি আ শিরোপা ধরে রাখতে। তাদের পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হয় নগর প্রতিদ্বন্দ্বী এসি মিলান।

ইনজাগি বললেন, এই মৌসুমে শুরুটা খুব ভালো না হলেও দলের ওপর বিশ্বাস হারাননি তিনি।

কঠিন সময় পেছনে ফেলে ঘুরে দাঁড়ানোর ব্যাপারে ইনজাগির মতো আশাবাদী কালহানোগলুও। বার্সেলোনার বিপক্ষে জালের দেখা পেয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিজের ছয় বছরের গোল খরা কাটানো তুর্কি মিডফিল্ডার জানালেন, এই জয় তাদের এগিয়ে চলার পথে অনুপ্রেরণা যোগাবে।

“এই ম্যাচটি সত্যিই আমাদের বদলে দিতে পারে এবং আমাদের মৌসুমের পথচলা পাল্টে দিতে পারে, কারণ আমরা এখান থেকে ভিত গড়ে তুলতে চাই। আর (চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোয়) জায়গা করে নিতে হলে আমাদের শান্ত থাকতে হবে এবং প্রতিটি ম্যাচ ধরে ধরে এগিয়ে যেতে হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক