বার্সায় আসা নিয়ে বায়ার্নের ‘রাজনীতির’ সমালোচনায় লেভানদোভস্কি

বায়ার্ন মিউনিখে শেষ দিকে তার সম্পর্কে অনেক বাজে কথা বলা হয়েছিল বলে দাবি পোলিশ তারকার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 July 2022, 12:24 PM
Updated : 30 July 2022, 12:24 PM

রবের্ত লেভানদোভস্কির বায়ার্ন মিউনিখ ছেড়ে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়া নিয়ে নাটকীয়তা কম হয়নি। শেষ দিকে জার্মান চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে পোলিশ তারকার শীতল সম্পর্ক নিয়েও চর্চা হয়েছে অনেক। আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় আট বছরের অধ্যায় যে তিক্ততায় শেষ হয়েছে, তা যেন ভুলতে পারছেন না লেভানদোভস্কি। সাবেক ক্লাবের অমন আচরণের কড়া সমালোচনা করেছেন তিনি।

এই মাসেই চার বছরের চুক্তিতে লেভানদোভস্কিকে দলে টানে বার্সেলোনা। সংবাদমাধ্যমের খবর, এজন্য কাতালান দলটির খরচ হয়েছে প্রায় পাঁচ কোটি ইউরো।

লেভানদোভস্কির বায়ার্ন ছাড়ার আলোচনা চলছিল অনেক দিন ধরে। গত মে মাসে তিনি বলে দেন, বায়ার্নে তার অধ্যায় শেষ হয়েছে, খেলে ফেলেছেন দলটির হয়ে শেষ ম্যাচ।

বায়ার্নে গত কয়েক মৌসুমে গোলের পর গোল করেছেন লেভানদোভস্কি। ক্লাবটির হয়ে সব মিলিয়ে ৩৭৫ ম্যাচে ৩৪৪ গোল তার। বুন্ডেসলিগার ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ গোলস্কোরারকে কিছুতেই হারাতে চায়নি বায়ার্ন। তবে লেভানদোভস্কির ভাঙা মনকে আর জোড়া লাগাতে পারেনি তারা।

বয়স ৩৩ হলেও লেভানদোভস্কির মনে ছিল আসলে নতুন চ্যালেঞ্জ নেওয়ার বাসনা। এজন্যই বায়ার্ন ছাড়তে চেয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই ইচ্ছা প্রকাশের পর তাকে নিয়ে শেষ কয়েক সপ্তাহে ক্লাবটিতে যা হয়েছে, সেটা লেভানদোভস্কির কাছে এক কথায় রাজনীতি। শুক্রবার ইএসপিএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন তিনি।

“বায়ার্নে আমার সতীর্থ, স্টাফ, কোচদের সঙ্গে খুবই ভালো সম্পর্ক ছিল এবং এই বিষয়গুলো আমি মিস করব। কারণ, সেখানে আমি সুন্দর সময় কাটিয়েছি। তবে আমি বায়ার্ন ছাড়ার আগের কয়েক সপ্তাহ যা ঘটেছে, অবশ্যই এখানে অনেক রাজনীতি ছিল।”

“ক্লাব একটি যুক্তি খোঁজার চেষ্টা করেছিল যে, কেন তারা আমাকে অন্য ক্লাবে বিক্রি করতে পারে। কারণ, আগে এটা হয়তো সমর্থকদের বোঝানো কঠিন ছিল। আমার সম্পর্কে অনেক বাজে কথা বলা হলেও আমাকে তা মেনে নিতে হয়েছিল।”

বুন্ডেসলিগার আরেক দল বরুশিয়া ডর্টমুন্ড ছেড়ে আর্লিং হলান্ড ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ায় লেভানদোভস্কিও ক্লাব বদলেছেন বলে গুঞ্জন আছে। তবে পোলিশ তারকা এমন ধারণাকে উড়িয়ে দিয়েছেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক