'বার্সার জার্সিতে গোল করা স্বপ্নের মতো'

বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করে উচ্ছ্বসিত স্প্যানিশ মিডফিল্ডার গাভি।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Sept 2022, 10:50 AM
Updated : 16 Sept 2022, 10:50 AM

বার্সেলোনা মূল দলে অভিষেক হয়েছে এইতো গত বছর। গেল মাসেই বয়স পূর্ণ হয়েছে ১৮, এর মধ্যেই কাতালান দলটির মাঝমাঠের বড় ভরসা হয়ে উঠেছেন গাভি। স্বপ্নের ক্লাবের হয়ে খেলছেন নিয়মিত, গোলও পেয়েছেন, করিয়েছেনও। সব কিছু মিলিয়ে তরুণ এই মিডফিল্ডার এখনও যেন আছেন ঘোরের মধ্যে। দীর্ঘ মেয়াদী চুক্তি করে বললেন, ক্লাবের জার্সিতে গোল করাটা তার কাছে স্বপ্নের মত লাগে।

বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি নবায়নের ব্যাপারে আগেই সম্মত হয়েছিলেন গাভি। গত বৃহস্পতিবার কাম্প নউয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে ২০২৬ সাল পর্যন্ত চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন তিনি। আগের চুক্তির মেয়াদ শেষ হতো ২০২৩ সালে।

নতুন চুক্তিতে গাভির রিলিজ ক্লজ রাখা হয়েছে ১০০ কোটি ইউরো। এটাই বলে দেয় ক্লাব তাকে কতটা গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে দেখছে। কোচ শাভি এরনান্দেসের কাছেও তিনি আস্থার প্রতীক।

বার্সেলোনার বিখ্যাত লা মাসিয়া একাডেমি থেকে উঠে আসার পর ২০২১ সালের অগাস্টে লা লিগায় গেতাফের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে গাভির মূল দলে অভিষেক হয়।

এরপর গত মৌসুমে ক্রমেই দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে ওঠেন। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ম্যাচ খেলেন ৪৭টি। গোল করেন দুইটি।

চুক্তি নবায়নের পর সংবাদ সম্মেলনে নিজের অনুভূতি জানাতে গিয়ে গাভি বললেন, বার্সেলোনার জার্সিতে স্বপ্নপূরণের পথে ছুটে চলা অব্যাহত রাখতে চান তিনি।

“(চুক্তি নবায়ন করে) আমি খুব খুশি। আমি সব সময়ই বার্সায় সফল হতে চেয়েছি। আমার পরিবার, আমার প্রতিনিধি এবং আমি-সবাই এ ব্যাপারে পরিষ্কার ছিলাম যে আমরা এখানেই থাকতে চাই।”

"বিশ্বের সেরা সমর্থকদের সামনে এই জার্সি পরে গোল করা স্বপ্নের মতো। আমি বিষয়টা যতটা সম্ভব স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করি। লা মাসিয়াতে তারা আমাকে অনেক সাহায্য করেছে।”

যে লা মাসিয়া থেকে গাভির বার্সেলোনা অধ্যায়ের শুরু হয়েছিল, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ঝরে পড়ল তার কণ্ঠে।

“লা মাসিয়া একটি অতুলনীয় জায়গা এবং আমি সেখানকার প্রত্যেকের কাছে কৃতজ্ঞ। শেফ, শিক্ষক, কোচ, সবাই। তারা আমাকে কাজ করতে এবং নম্র হতে শিখিয়েছে।”

গাভির কাছে তার বার্সেলোনার ক্যারিয়ারের সেরা মুহূর্ত ক্লাবের হয়ে তার প্রথম গোল, “বার্সার সিনিয়র দলের হয়ে প্রথম গোল করার দিনটি সবসময় আমার মনে গেঁথে থাকবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক