বরিশালে গৃহবধূকে কুপিয়ে হত্যা, ‘পরিকল্পিত’ বলছে পুলিশ

নিহতের ভাসুর জানায়, বাসার কলাপসিবল গেট ভেঙে ডাকাতরা ভেতরে প্রবেশ করে; লুটের সময় বাধা দিলে এ হত্যাকাণ্ড ঘটায় তারা।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 Nov 2022, 05:05 AM
Updated : 22 Nov 2022, 05:05 AM

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলায় এক নারীকে গলাকেটে হত্যা ও তার স্বামী যুবদলের নেতাকে কুপিয়ে জখম করার পর টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ঘটনা ঘটেছে।

পরিবারের লোকজন ঘটনাটিকে ‘ডাকাতি’ বললেও পুলিশের ধারণা, ‘পরিকল্পিতভাবে’ হত্যা করা হয়েছে।

উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নের রাকুদিয়া গ্রামে সোমবার রাত দেড়টার দিকে এ ঘটনায় নিহত গৃহবধূর নাম মারুফা বেগম বলে বাবুগঞ্জ থানার ওসি মাহাবুবুর রহমান জানান।

দুই ছেলের জননী ৩০ বছর বয়সী মারুফা ওই গ্রামের রড সিমেন্ট ব্যবসায়ী ও বাবুগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন খানের দ্বিতীয় স্ত্রী।

আহত মিলন খানকে (৪১) বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মিলনের বড় ভাই সবুজ খান সাংবাদিকদের বলেন, রাত দেড়টার দিকে বাসার কলাপসিবল গেট ভেঙে ডাকাত দল প্রবেশ করে। এ সময় বাসায় থাকা নগদ আড়াই লাখ টাকা ও তিন ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার লুট করার সময় মারুফা ডাকাতদের বাধা দেয়।

“এ সময় ডাকাতরা গলাকেটে তাকে হত্যা করে। স্ত্রীকে রক্ষা করতে মিলন এগিয়ে গেলে তাকেও কুপিয়ে জখম করা হয়।”

তিনি বলেন, বিষয়টি টের পেয়ে গিয়ে দেখতে পান, মিলনের স্ত্রী মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। আর ভাইয়ের মুখমণ্ডল কাপড় দিয়ে এবং হাত পা রশি দিয়ে খাটের সঙ্গে বাঁধা রয়েছে।

এটা ডাকাতি না হত্যাকাণ্ড জানতে চাইলে সবুজ বলেন, “এটা তো ডাকাতিই মনে হচ্ছে। সব কিছু ভাইঙা, চুইরা নিয়া গেছে তারা।”

তবে গৃহবধূ মারুফাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যাকাণ্ড করা হয়েছে বলে ধারণা ওসি মাহাবুবুর রহমানের। তিনি বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। পাশাপাশি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মিলনও পুলিশের নজরদারিতে রয়েছেন।

জেলার পুলিশ সুপার ওয়াহিদুল ইসলাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পারিবারিক বিরোধ ছিলো; সেই জেরেও এ ঘটনা ঘটতে পারে। তাদের তদন্ত চলছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক