সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের ধাক্কায় বাল্কহেড ডুবি, নিখোঁজ ২

বাল্কহেডটির মালিকের দাবি, বলগেটে একজন মাঝি ও একজন ইঞ্জিনম্যান নিখোঁজ রয়েছে।

বরিশাল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 August 2022, 06:29 PM
Updated : 8 August 2022, 06:29 PM

বরিশালে সন্ধ্যা নদীতে লঞ্চের ধাক্কায় একটি বাল্কহেড ডুবে গেছে। এতে বাল্কহেডের দুইজন নিখোঁজ রয়েছেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।

সোমবার রাত ৯টার দিকে বানারীপাড়া উপজেলার মসজিদবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে উজিরপুর মডেল থানার পরিদর্শক মোমিন উদ্দিন জানান।

নিখোঁজ দুজন হলেন- পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি উপজেলার সুঠিয়াকাঠি ইউনিয়নের নান্দুহারের মো. বাদশা মিয়ার ছেলে মিলন (২৫) ও একই এলাকার প্রয়াত মাইনউদ্দিনের ছেলে কালাম (৪৭)।

মোমিন উদ্দিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, দুর্ঘটনার পর লঞ্চটি উজিরপুর উপজেলার চৌধুরীরঘাটে নোঙর করা আছে। যাত্রীরা নিরাপদ আছেন।

বাল্কহেডের মালিক কাজী হাবিবুল্লাহ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ‘এমবি ইফতি+রিজভী’ নামের বাল্কহেড খেজুরবাড়ী পয়েন্ট থেকে বালু তুলে স্বরূপকাঠির উদ্দেশ্যে যাওয়ার কথা ছিল। রওনা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীবাহী এমভি মর্নিং সান লঞ্চের ধাক্কায় বাল্কহেডটি ডুবে যায়।

কাজী হাবিবুল্লাহর দাবি, বাল্ক হেডে একজন মাঝি ও একজন ইঞ্জিনম্যান নিখোঁজ রয়েছে। তারা দুইজন বাল্কহেডে ছিলেন।

মর্নিং সান লঞ্চের ২০৩ নম্বর কেবিনের যাত্রী এমদাদুল হক রাসেল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ঢাকাগামী লঞ্চটি খেজুরবাড়ী এলাকায় পৌঁছলে হঠাৎ ঝাঁকুনি দেয়। তখন কেবিন থেকে বের হয়ে একটি বাল্কহেড ডুবে যেতে দেখেন তিনি।

লঞ্চের আরেক যাত্রী জিয়াউর বলেন, “আমরা লঞ্চের ছাদে ছিলাম। লঞ্চটিও দ্রুত গতিতে চলছিল। এর মধ্যে দেখতে পাই, নদীতে আড়াআড়িভাবে আসা দ্রুতগামী বালুবাহী বাল্কহেডের সঙ্গে লঞ্চের ধাক্কা লাগে। এতে বাল্কহেডটি ডুবে যায়। পরে লঞ্চটি দ্রুত চৌধুরীরঘাটে নোঙর করে।”

ঘটনাস্থলে থাকা উজিরপুরের বড়াকোঠা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বলেন, “লঞ্চের যাত্রীরা নিরাপদে আছে; অধিকাংশ যাত্রী চলে গেছে। এ ছাড়া লঞ্চের তলা ফেটে পানি উঠে যাওয়া পানি অপসারণ করা হচ্ছে। এটা হয়ে গেলেই যে যাত্রী আছে তাদের নিয়ে লঞ্চ ছেড়ে যাবে।”

বিআইডব্লিউটিএ-এর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের যুগ্ম-পরিচালক আব্দুর রাজ্জাক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আনুমানিক পাঁচশ যাত্রী ও পণ্য বোঝাই করে লঞ্চটি ঢাকার উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথে বাল্কহেডের সঙ্গে সংঘর্ষে সামনের অংশ ফেটে লঞ্চে পানি প্রবেশ করেছে। পানি অপসারণ করে মেরামত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

“ঘটনাস্থলে আমাদের লোক রয়েছে। তারা যদি মনে করে লঞ্চটি ঢাকা যেতে পারবে, তাহলে যেতে দেওয়া হবে।”

তিনি আরও বলেন, দুর্ঘটনায় লঞ্চযাত্রীদের কোনো ক্ষতি হয়নি। অনেক যাত্রী নেমে গেছে; বর্তমানে এক থেকে দেড়শ’ যাত্রী রয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক