আবারও মৃত জেলিফিশে ভরে গেছে কক্সবাজার সৈকত

গত অগাস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে দুই দফা এবং ১১ নভেম্বর সৈকতে ব্যাপক হারে জেলিফিশ ভেসে আসার ঘটনা ঘটেছে।

কক্সবাজার প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Dec 2022, 10:52 AM
Updated : 4 Dec 2022, 10:52 AM

ভেসে আসা শত শত মরা `সাদা নুইন্যা’ বা ‘হোয়াইট টাইপ জেলিফিশে’ আবারও ভরে গেছে কক্সবাজার সৈকত। 

রোববার সকাল ৯টায় সৈকতের লাবনী পয়েন্টে এসব জেলিফিশ ভেসে আসে। শনিবারও একই স্থানে ভেসে এসেছিল কয়েকশ মৃত জেলিফিশ। 

এছাড়া সমুদ্র সৈকতের কলাতলী, দরিয়ানগর, হিমছড়ি ও ইনানী পয়েন্টেও জেলিফিশ ভেসে আসার খবর পাওয়া গেছে। 

খবর পেয়ে রোববার সকালে বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের কয়েকজন বিজ্ঞানী সরেজমিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারা জেলিফিশের মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধানে নমুনা সংগ্রহ করেছেন। 

সংশ্লিষ্টদের ধারণা, সাগরে জেলেদের টানা জালে মাছের সঙ্গে ঝাঁকে ঝাঁকে আটকা পড়ার পর এসব সাদা প্রজাতির জেলিফিশ সৈকতে ভেসে আসছে। 

কক্সবাজারের সৈকতে প্রায়ই জেলিফিশ ভেসে আসলেও গত অগাস্ট মাসের প্রথম সপ্তাহে দুই দফা, গত ১১ নভেম্বরের পর শনিবার ও রোববার ব্যাপক হারে ভেসে আসার ঘটনা ঘটেছে। 

জেলা প্রশাসনের বিচ কর্মী বেলাল হোসেন বলেন,  “রোববার সকাল ৯টায় লাবণী পয়েন্টের সাগরে মহেশখালী থেকে আসা একটি মাছ ধরার ট্রলারের টানা জালে মাছের সঙ্গে আটকা পড়ে অসংখ্য জেলিফিশ। জেলেরা বলেছিলেন মাছগুলো জাল থেকে ছাড়িয়ে নেওয়ার পর জেলিফিশগুলো সাগরে ফেলে দেওয়া হয়।” 

ট্রলারটির মাঝি নেজাম উদ্দিন বলেন, “এক সঙ্গে এত সাদা নুইন্যা জালে আটকা পরার ঘটনা আগে ঘটেনি। কোনো মতে তীরে এনে জাল ঝেড়ে ফেলছি। এতে বেশিরভাগ সাদা নুইন্যা মারা পড়েছে।” 

বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ও সমুদ্রবিজ্ঞানী সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার বলেন, “প্রায় সময়ই জেলেদের বিহুন্দি ও টানা জালে জেলিফিশ বা সাদা নুইন্যাগুলো অযাচিতভাবে আটকা পড়ে মারা যায়। পরে তা কক্সবাজার ও পটুয়াখালীসহ বিভিন্ন সমুদ্র উপকূলে ভেসে আসে।”  

এ সমুদ্রবিজ্ঞানী আরও বলেন, “এইসব জেলিফিশ খাদ্য হিসেবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ব্যবহৃত। তবে বাংলাদেশে এখনও খাবার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত হয়নি। এটি ওষুধ ও প্রসাধন শিল্পেও ব্যবহার হয়। ” 

" বিশ্বে জেলিফিশের ৫ দশমিক ৬০ বিলিয়ন ডলারের বাজার রয়েছে। আমরাও অবহেলিত এই সামুদ্রিক প্রাণীটির স্থানীয় বাজার সৃষ্টিসহ রপ্তানি করে সুনীল অর্থনীতিতে বড় ভূমিকা রাখতে পারি ", বলেন বেলাল হায়দার। 

তিনি জানান, সম্প্রতি বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা সাদা নুইন্যা নিয়ে গবেষণা শুরু করেছে। গত ৩ নভেম্বর বিশ্ব জেলিফিশ দিবস উপলক্ষে ইনস্টিটিউটের সম্মেলন কক্ষে দেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে সাদা নুইন্যার বাণিজ্যিক গুরুত্ব তুলে ধরা হয়েছে। 

আরও পড়ুন 

Also Read: কক্সবাজার সৈকতে আবারও ভেসে এলো শত শত মৃত জেলিফিশ

Also Read: কক্সবাজার সৈকতে ভেসে আসছে শত শত মৃত জেলিফিশ, সতর্কতা

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক