টাঙ্গাইলে সাংবাদিকের মাকে হত্যা: দুই যুবক গ্রেপ্তার

১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় প্রতিবেশী ও পরিবারের সদস্যরা ঘরের মেঝেতে সুলতানা সুরাইয়ার গলাকাটা মরদেহ দেখতে পান।

টাঙ্গাইল প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Feb 2024, 04:37 AM
Updated : 10 Feb 2024, 04:37 AM

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর উপজেলায় এক সাংবাদিকের মাকে গলা কেটে হত্যার মামলায় দুই যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই।

বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে টাঙ্গাইল পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পুলিশ সুপার মো. সিরাজ আমিন এ তথ্য জানান।

গ্রেপ্তাররা হলেন- ভূঞাপুর উপজেলার পশ্চিম ভূঞাপুর গ্রামের আল আমিন আকন্দ (২২) এবং সদর উপজেলার সায়েদাবাদের মো. লাবু (২৯)।

নিহত সুলতানা সুরাইয়া (৬৫) ইংরেজি দৈনিক দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড পত্রিকার বার্তা সম্পাদক আবু সায়েম আকন্দের মা এবং পশ্চিম ভূঞাপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রহিম আকন্দের স্ত্রী।

পুলিশ সুপার বলেন, ১৪ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় প্রতিবেশী ও পরিবারের সদস্যরা সুরাইয়ার ব্যবহৃত ফোন বন্ধ পেয়ে বাড়িতে গিয়ে গেইট টপকে ঘরে উঁকি দেয়। তারা ঘরের মেঝেতে তার গলাকাটা মরদেহ দেখতে পায়।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে সাংবাদিক আবু সায়েম আকন্দ বাদী হয়ে শুক্রবার বিকালে থানায় মামলা করেন। এতে কয়েকজন অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করা হয়।

তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে ওই নারীকে হত্যার পর যে মোবাইল ফোন চুরি হয় সেই সূত্র ধরে মো. লাবুকে সিরাজগঞ্জ থেকে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ভূঞাপুর থেকে আল আমিনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আল আমিন জানান, তিনি সুরাইয়ার প্রতিবেশী। তিনি বুঝতে পারেন তার কাছে টাকাপয়সা আছে। তখন তিনি তার সহযোগী লাবুকে নিয়ে ওই বাড়িতে চুরির পরিকল্পনা করেন।

১৩ সেপ্টেম্বর বুধবার সন্ধ্যায় তারা দুজন সুরাইয়ার ঘরে ঢুকে লুকিয়ে থাকেন। রাতে সুরাইয়া প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বের হন। এ সময় তারা তার মোবাইল ফোন ও কিছু টাকা হাতিয়ে নেন। অন্যান্য মূল্যবান জিনিসপত্র খোঁজার সময় সুরাইয়া ঘরে আসেন। এসময় তিনি ওই দুজনকে চিনতে পেরে চিৎকার করেন।

তখন আল আমিন গামছা দিয়ে তার মুখ বেঁধে ফেলেন। তখন লাবু ধারালো ছুরি চালান তার গলায়।

মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর তারা ওই বাড়ি থেকে লুটের মালামাল নিয়ে চলে যান বলে জানান পিবিআইয়ের এই কর্মকর্তা।

[প্রতিবেদনটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছিল ২০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখে: ফেইসবুক লিংক]