শিক্ষার্থীর ভাঙা হাতে অস্ত্রোপচার, অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ

সাভারের হাসপাতালটির সঙ্গে ৩৫ হাজার টাকায় তাপসের হাতের অপারেশনের চুক্তি হয়।

সাভার প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Sept 2022, 11:27 AM
Updated : 11 Sept 2022, 11:27 AM

ঢাকার সাভারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকের অবহেলায় এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে।

রোববার দুপুরে সাভারের তালবাগ এলাকার ‘সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতাল লিমিটেড’ এ উপস্থিত নিহতের স্বজনরা এই অভিযোগ করেন।

মৃত তাপস মণ্ডল (১৪) গাজীপুর জেলার কালিয়াকৈর থানার কান্দাপারা গ্রামের শশী মণ্ডলের ছেলে। সে স্থানীয় একটি স্কুলে অষ্টম শ্রেণিতে লেখাপড়া করতো।

শশী মণ্ডল অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার বিকেলে এলাকায় ফুটবল খেলতে গিয়ে হাতের হাড় ভেঙে যায় তাপসের। পরে তাকে স্থানীয় ওষুধ ব্যবসায়ীর পরামর্শে সাভারের সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করেন। চিকিৎসক অপারেশনের কথা বললে ৩৫ হাজার টাকায় হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তি হয়।

“পরে শনিবার রাতে অপারেশনের জন্য চিকিৎসক কামরুজ্জামান জনি অজ্ঞান করার ইনজেকশন পুশ করলে তাপস অসুস্থ হয়ে পড়ে। কিছুক্ষণ পরে সে ছটফট করতে করতে মারা যায়।”

শশী মণ্ডলের অভিযোগ, “পরে তারা টাকা দিয়ে আমাদের ম্যানেজ করার চেষ্টা করেন।”

তিনি আরও বলেন, “আমার ছেলে আমার কাছে যা চাইতো কষ্ট হলেও দিতাম। কোনো কাজ করতে দিতাম না। বলতাম, তুই শুধু লেখাপড়া কর। আমার আদরের ছেলেটাকে ওরা ইনজেকশন দিয়ে মেরে ফেললো। আমি এর বিচার চাই।”

এ ঘটনায় তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার ওসি কাজী মাইনুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে হাসপাতালটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. সায়েমুল হুদা বলেন, “রোগীর মৃত্যুর বিষয়টি শুনেছি। তবে এখনও কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে হাসপাতালটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এ বিষয়ে জানতে সাভার সেন্ট্রাল হাসপাতালের চেয়ারম্যান আবু তাহেরের মুঠোফোনে একাধিকবার কল করার পর তার ছেলে পরিচয় দিয়ে এক যুবক ফোনটি রিসিভ করেন। কিন্তু রোগী মারা যাওয়ার বিষয়ে জিজ্ঞাসা করতেই তিনি ফোনটি রেখে দেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক