পাবনায় আওয়ামী লীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

মোটরসাইকেলে হেলমেট পরা একদল লোক এসে তাকে এলোপাথাড়ি গুলিতে হত্যা করে চলে যায়।

পাবনা প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Sept 2022, 11:58 AM
Updated : 9 Sept 2022, 11:58 AM

পাবনা সদরের হেমায়েতপুরে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে প্রকাশ্যে গুলিতে হত্যা করেছে একদল হামলাকারী।

শুক্রবার দুপুরে হেমায়েতপুর ইউনিয়নের বাঙ্গাবাড়িয়া মুজিব বাঁধ এলাকায় এ হত্যাকাণ্ড হয়।

নিহত সাইদার রহমান মালিখা (৫০) পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুর দেড়টার দিকে সাইদার রহমান বাঙ্গাবাড়িয়া বাজারে বাঁধের একটি দোকানে বসেছিলেন। এ সময় মোটরসাইকেলে একদল হেলমেট পরিহিত লোক এসে তাকে ঘিরে ধরে। এরপর এলোপাথাড়ি গুলি করে ঘটনাস্থলে তাকে হত্যা করে চলে যায়।

নিহতের নাতি সাদ্দাম মোল্লা জানান, “দাদা দুপুরে ফোন করে আমাকে আসতে বলেন, বাজারে কথা শেষে নামাজ পড়ার জন্য বাড়ির দিকে রওনা হওয়ার দশ মিনিট পরই শুনতে পাই তাকে কারা যেন হত্যা করেছেন।”

নিহতের স্ত্রী দিলরুবা জাহান কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, সাইদার রহমানের সাথে স্থানীয় এক প্রভাবশালী ব্যক্তির জমিজমা নিয়ে বিরোধ ছিল। ওই ব্যক্তি কয়েকদিন ধরে তার স্বামীকে হত্যার হুমকি দিচ্ছিলেন। বৃহস্পতিবারও সাইদারকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছেন।

“আজ প্রকাশ্যে তাকে মেরে ফেলল। আমি নাবালক তিন সন্তান নিয়ে কি করব। যারা আমার স্বামীকে হত্যা করেছে তাদের আমি শাস্তি চাই।”

এ কথা বলেই চিৎকার করে কেঁদে ওঠেন তিনি।

হেমায়েতপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, শরিকানা জমি নিয়ে সাইদার রহমানের বংশের লোকেদের বিরোধ দীর্ঘদিনের। এরই জেরে তাদের মধ্যে বেশ কয়েকবার মারামারি হয়েছে।

“আজকের ঘটনাও সেই বিরোধের জের বলেই শুনেছি। তবে ওই এলাকায় বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের একটি সোলার প্লান্টের জমি কেনা নিয়েও তাদের মধ্যে বিরোধ ছিল।”

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাসুদ আলম বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধারের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জানিয়ে তিনি বলেন, সিসিটিভি ভিডিও সংগ্রহ করে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ কাজ শুরু করেছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক