শাবির হল খোলার দাবিতে উপাচার্য ভবনে তালা

সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হল খুলে দেওয়ার দাবিতে উপাচার্যের ভবনের ফটকে তালা দিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 20 Feb 2021, 06:44 PM
Updated : 20 Feb 2021, 06:44 PM

শনিবার সন্ধ্যা থেকে উপাচার্যের ভবনের সামনে প্রথমে অবস্থান নেন শিক্ষার্থীরা। রাত সোয়া ৮টার দিকে উপাচার্যের ভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন তারা।

দাবি না মানলে টানা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা।

তালা দেওয়ার আগে সন্ধ্যায় হল খোলার বিষয়ে প্রশাসনের সিদ্ধান্ত জানতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি পাঠান শিক্ষার্থীরা। আবেদনের প্রেক্ষিতে ছাত্র উপদেশ ‍ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক রাশেদ তালুকদার এসে পরীক্ষা শুরুর সাত দিন আগে হল খুলে দেওয়ার আশ্বাস দিলে তা নাকচ করে দেন তারা।

রাত ৮টার দিকে ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হল খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়ে উপাচার্যের ভবনের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে থাকে।

দাবি মেনে না নিলে আগামীকাল রোববার থেকে আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি দেওয়া হবে বলেও শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

করোনাভাইরাস মহামারীর শুরুতে গত বছরের ১৮ মার্চ থেকে আবাসিক হল খালি করে সব একাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সেশনজট নিরসনের লক্ষ্যে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ থেকে অনলাইনে ক্লাস নেওয়া শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

অনলাইনে দুই সেমিস্টারের ক্লাস শেষে দীর্ঘ ১০ মাস পর চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি থেকে অনার্স চূড়ান্ত বর্ষ এবং মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের ক্লাসরুমে স্বশরীরে পরীক্ষা নেওয়া শুরু করে কর্তৃপক্ষ।

ক্লাসরুমে স্বশরীরে পরীক্ষা নেওয়া শুরু করলেও আবাসিক হল বন্ধ রাখে এ বিশ্ববিদ্যালয়।

পরীক্ষায় বসার আগে থেকেই আবাসিক হল খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে শিক্ষার্থীরা। এ নিয়ে কয়েক দফায় উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করে তারা। ‘করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার অনুমতি দিলে হল খুলে দেওয়া হবে’ এমন আশ্বাসে তখন আন্দোলন থেকে সরে আসে শিক্ষার্থীরা।

আবাসিক হল বন্ধ থাকায় বাধ্য হয়ে শিক্ষার্থীদের শহরের বিভিন্ন ছাত্রনিবাস (মেস), হোস্টেলে ভাড়ায় উঠতে হয়েছে। কিন্তু এক্ষেত্রেও শিক্ষার্থীরা নানা ভোগান্তিতে পড়ার কথা বিভিন্ন সময় জানিয়ে আসছে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায়সহ মেয়েদের হোস্টেলগুলোতে নিরাপত্তাহীনতা, চুরি-ছিনতাইয়ের ঘটনাও ঘটতে থাকে।

নগরীর সুবিদবাজার এলাকার এক ছাত্রনিবাস থেকে গত শুক্রবার নৃবিজ্ঞান বিভাগের কয়েকজন শিক্ষার্থীর ল্যাপটপ, মোবাইলসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র চুরির অভিযোগ ওঠে। মাস খানেক আগে ২১ জানুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের অধীনে থাকা প্রধান ফটক সংলগ্ন ছাত্রীদের এক নিবাসে (মেস) ইনায়া মেনশনে রুমের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশের চেষ্টাকালে বহিরাগত এক যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী।

সম্প্রতি অনার্স চূড়ান্ত বর্ষ ও মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নেওয়া শেষ হলে বাকি তিন সেমিস্টারের শিক্ষার্থীদেরও পরীক্ষা নেওয়ার ঘোষণা দেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষা শুরুর আগে হল খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আসছে শিক্ষার্থীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. রাশেদ তালুকদার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “শিক্ষার্থীদের দাবির বিষয়টি নিয়ে আমরা সরকারের উচ্চ মহলের সাথে যোগাযোগ করছি। পরীক্ষা শুরুর এক সপ্তাহ আগে হল খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদও সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষা শুরুর এক সপ্তাহ আগে সব আবাসিক হল খুলে দেওয়া হবে।

ইতোমধ্যে কয়েকটি বিভাগ ১ মার্চ থেকে দ্বিতীয় দফায় অনার্সের তিন সেমিস্টারের পরীক্ষার সিডিউল ঘোষণা করেছে। সেই অনুযায়ী আবাসিক হল ২৩ ফেব্রুয়ারি খুলে দেওয়ার কথা।

এক্ষেত্রে আবাসিক হল ২৩ তারিখ খোলা হবে নাকি সংশ্লিষ্ট বিভাগের পরীক্ষা পেছানো হবে এমন প্রশ্নে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আবু হেনা পহিল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “হল খোলার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবে সরকার। সরকার যদি এই মুহূর্তে হল খোলার সিদ্ধান্ত দেয় তবে পরীক্ষার সিডিউল ঠিক থাকবে। না হয় পরীক্ষা পেছানো হবে। সরকারের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত আসলে পরীক্ষা শুরুর এক সপ্তাহ আগে হল খোলা হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক