‘আরেকটা গুলি যেন বাংলাদেশের ভূমিতে না পড়ে’

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তের ওপারে নিয়মিত গোলাগুলির মধ্যে কখনও কখনও গুলি বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তে এসে পড়ছে।

জসিম মাহমুদ, টেকনাফ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Sept 2022, 07:33 PM
Updated : 11 Sept 2022, 07:33 PM

মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সমস্যা নিজেদের ভেতর সমাধান করার আহ্বান জানিয়ে জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেছেন, আরেকটি গুলিও যেন বাংলাদেশের ভূমিতে এসে না পড়ে।

রোববার টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বপন এই মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশে-মিয়ানমার সীমান্তের ওপারে নিয়মিত গোলাগুলির মধ্যে কখনও কখনও গুলি বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির তুমব্রু সীমান্তে এসে পড়ছে।

স্বপন বলেন, “এগুলো আপনাদের অভ্যন্তরীণ সমস্যা; এগুলো আপনারাই সমাধান করুন। আরেকটি গুলিও যেন বাংলাদেশের ভূমিতে এসে না পড়ে; এই নিয়ে মিয়ানমারকে হুশিয়ার করে দিতে চাই।”

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) স্বপন বলেন, “বাংলাদেশ-মিয়ানমারের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে; আর সরকার সেটি বজায় রাখতে চায়। ফলে আপনাদের নিজেদের সমস্যা নিজেরাই সমাধান করুন। আপনাদের সমস্যায় বাঙালি জাতিকে কেন মুখোমুখি হতে হবে! বাঙালি জানে কীভাবে বিজয় ছিনিয়ে আনতে হয়।”

এ সময় তিনি তিনি বিএনপি-জামায়াতেরও সমালোচনা করেন।

“দেশে বিএনপি-জামায়াত একটি অরাজকতা সৃষ্টি করতে চায়। কারণ তারা দেশপ্রেমহীন। আর আওয়ামী লীগ হচ্ছে মানবিক-দেশপ্রেমিক একটি দল।”

তিনি আগামী নির্বাচনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছায়ায় একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাস্টার জাহেদ হোসেনের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশর সভা পরিচালনা করেন।

সভায় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা, উপ-প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল হক, কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরোয়ার কাবেরী, রাজা শাহ আলম চৌধুরী, সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রহমান এবং কক্সবাজার যুবলীগের সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর বক্তব্য রাখেন।

২০১৩ সালের জানুয়ারিতে সর্বশেষ টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

বিকালে টেকনাফ মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে দ্বিতীয় অধিবেশন শুরু হয় জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে।

সভায় কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় সাবেক সাধারণ সম্পাদক নুরুল বশরকে সভাপতি ও সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব মোর্শেদকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

২০১৩ সালের অগাস্টে টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ আলীকে সভাপতি ও নুরুল বশরকে সাধারণ সম্পাদক করে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। ওই বছরের ১৮ অক্টোবর কক্সবাজার জেলা আওয়ামী এ কমিটি অনুমোদন দেয়। এর মধ্যে কয়েক বছরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলীসহ ৯ জন মারা যান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক