ফেনীতে ৬৬৫ টাকায় গরুর মাংস বিক্রি

প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ কার্যক্রম চলবে বলে জানান পৌর মেয়র।

ফেনী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 21 March 2024, 12:39 PM
Updated : 21 March 2024, 12:39 PM

সরকার নির্ধারিত ৬৬৫ টাকা কেজি দরে ফেনীতে গরুর মাংস বিক্রয় শুরু হয়েছে। বাজার নিয়ন্ত্রণে রাখতে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ফেনী পৌরসভার মেয়র।

বৃহস্পতিবার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত শহরের পিটিআই স্কুল মাঠে অস্থায়ী দোকানে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন ফেনী পৌরসভার মেয়র নজরুল ইসলাম স্বপন মিয়াজি।

গরুর মাস বিক্রিতে অর্থ সহায়তা দিচ্ছেন ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী।

সরকার নির্ধারিত মূল্যে গরুর মাংস কিনতে পেরে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন সাধারণ ক্রেতারা।

পৌরসভার তত্ত্বাবধানে ঈদ পর্যন্ত এ কর্যক্রম চালু রাখার কথা জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, একজন ক্রেতা সর্বোচ্চ তিন কেজি মাংস কিনতে পারবেন; যেখানে প্রতি কেজিকে ৮০০ গ্রাম মাংস ও ২০০ গ্রাম হাড় থাকবে।

প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সাশ্রয়ী মূল্যে মাংস বিক্রি করা হবে বলে জানান তিনি।

পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর লুৎফুর রহমান খোকন হাজারী বলেন, প্রথম দিন সাতটি বড় গরু জবাই করা হয়। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত প্রায় ৩৫ মণ মাংস বিক্রি হয়েছে। 

অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে এবং মাংসের বাজার দর নিয়ন্ত্রণে রাখতে এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে বাজার মূল্যের চেয়ে কম দামে মাংস কিনতে পেরে খুশি ভোক্তারা। ঈদের পরেও এ দামে মাংস বিক্রি অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছেন তারা।

শহরের মিজান রোডের বাসিন্দা জহিরুল হক জানান, সরকার নির্ধারিত ৬৬৫ টাকায় তিন কেজি গরুর মাংস কিনেছেন তিনি; যেখানে বাজার দরের চেয়ে প্রায় ৫০০ টাকা সাশ্রয় হয়েছে।

ফেনী জেলা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ কায়সার মিয়া বলেন, “ফেনীর মত গরুর মাংসের দাম আর কোথাও নেই। স্থানীয়ভাবে ভোগ্যপণ্যের দাম বাড়ানো হয়েছে। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী অতিরিক্ত মুনাফার লোভে বাজার অস্থিতিশীল করে তুলছেন। এটা ঠেকাতে সরকার নির্ধারিত দাম মেনে চলতে হবে।”