জাতিসংঘ মহাসচিবের কাছে পরিচয়পত্র পেশ রাষ্ট্রদূত মুহিতের

জাতিসংঘ মহাসচিবকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন রাষ্ট্রদূত মুহিত।

নিউইয়র্ক প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 August 2022, 07:15 AM
Updated : 3 August 2022, 07:15 AM

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের কাছে পরিচয়পত্র পেশ করেছেন বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোহাম্মদ আব্দুল মুহিত।

মঙ্গলবার জাতিসংঘ সদর দপ্তরে পরিচয়পত্র পেশের পর তারা বৈঠকে মিলিত হন বলে বাংলাদেশ মিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

বৈঠকে জাতিসংঘ মহাসচিবকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বার্তা পৌঁছে দেন মুহিত। সেসময় মহাসচিব বাংলাদেশকে জাতিসংঘের ‘বন্ধু’ হিসেবে বর্ণনা করে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন।

গুতেরেস বলেন, “বাংলাদেশ জাতিসংঘের মর্যাদাপূর্ণ একটি সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে বৈশ্বিক পরিমণ্ডলে তাৎপর্যপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে।”

রাষ্ট্রদূত মুহিত জাতিসংঘের বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রতি বাংলাদেশের অব্যাহত প্রতিশ্রুতি ও সমর্থনের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।

গত ২৮ জুলাই জাতিসংঘের স্থায়ী মিশনের দায়িত্ব গ্রহণ করেন এক সময় অস্ট্রিয়ায় রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসা কূটনীতিক মুহিত। জাতিসংঘে বাংলাদেশের ষষ্ঠদশ স্থায়ী প্রতিনিধি হিসাবে তিনি রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমার স্থলাভিষিক্ত হয়ছেন।

বিসিএস পররাষ্ট্র ক্যাডারের একাদশ ব্যাচের কর্মকর্তা মুহিত ভিয়েনায় বাংলাদেশ মিশনের পাশাপাশি সেখানকার জাতিসংঘ মিশনগুলোতে স্থায়ী প্রতিনিধির দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

একইসঙ্গে, হাঙ্গেরি, স্লোভেনিয়া ও স্লোভাকিয়ায় বাংলাদেশের অনিবাসী রাষ্ট্রদূত হিসাবেও দায়িত্ব সামলেছেন তিনি।

ভিয়েনায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার আগে ডেনমার্কে রাষ্ট্রদূত ছিলেন মুহিত। ওই সময়ে এস্তোনিয়া ও আইসল্যান্ডে বাংলাদেশের অনিবাসী রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বও ছিল তার কাঁধে।

২৯ বছরের কূটনৈতিক ক্যারিয়ারে কুয়েত, রোম, দোহা এবং ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ মিশনে দায়িত্ব পালন করেছেন মুহিত। এক সময় নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ মিশনে কাউন্সেলর পদেও কাজের অভিজ্ঞতা আছে তার।

জাতিসংঘ মহাসচিবের কাছে পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ মিশনের উপস্থায়ী প্রতিনিধি মো. মনোয়ার হোসেন, মহাসচিবের শেফ দ্য কেবিনেট কোর্টনে র‌্যাট্রে এবং পিসবিল্ডিং সাপোর্ট বিভাগের অ্যাসিসট্যান্ট সেক্রেটারি জেনারেল এলিজাবেথ ম্যারি উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক