পল্লবীতে সংঘাত: সোয়া দুইশজনকে আসামি করে মামলা

এদের মধ্যে ৭৫ জনের নাম উল্লেখ করা হয়েছে আর মামলায় আটজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Sept 2022, 03:58 PM
Updated : 16 Sept 2022, 03:58 PM

ঢাকায় পল্লবীতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমাবেশ ঘিরে সংঘর্ষের ঘটনায় ৭৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরও দেড়শ জনকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ।

ওই মামলায় শুক্রবার পর্যন্ত আটজনকে গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ। আসামিদের মধ্যে বিএনপি ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীই বেশি বলে জানা গেছে।

পল্লবী থানার ওসি পারভেজ ইসলাম জানান, ওই ঘটনায় পুলিশ বৃহস্পতিবার সাতজনকে ও শুক্রবার একজনকে গ্রেপ্তার করেছে। মামলার এজাহারভুক্ত বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গত বৃহস্পতিবার পল্লবীতে কাছাকাছি দূরত্বে আওয়ামী ও বিএনপির সমাবেশকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। 

আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়; যান চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। সংঘাতে জড়িয়ে পড়ারা বাঁশের লাঠি নিয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় জড়িয়ে পড়েন। ইটের টুকরো ছোঁড়াছুঁড়ি হয়।

এ সংঘাত থামাতে গিয়ে পুলিশ ৬২ রাউন্ড রাবার বুলেট, ৬ রাউন্ড শিশার বুলেট ও ২৭ রাউন্ড গ্যাস ছুঁড়েছে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

জ্বালানি তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পল্লবী ৬ নম্বর বাজারের পশ্চিমপাশে মুকুল ফৌজ মাঠে সমাবেশ ডেকেছিল বিএনপি। অন্যদিকে সদ্য প্রয়াত নেতা সাজেদা চৌধুরীর স্মরণে পল্লবী ১২ নম্বর সেকশনের ডি ব্লকের ঈদগাহ মাঠে শোক সভার আয়োজন করেছিল আওয়ামী লীগ। দুই দলের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে সমাবেশস্থলে যাওয়ার সময় সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়।

এসময় অতিরিক্ত পুলিশ এসে সংঘাত নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। পুলিশকে টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট ছুঁড়তে দেখা যায়। দেড় ঘণ্টা পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

এ ঘটনায় পল্লবী থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) সাইফুল ইসলাম বৃহস্পতিবার রাতে ৭৫ জনের নাম উল্লেখ করে ও আরও এক থেকে দেড়শ জনকে আসামি করে মামলা করেন।

মামলায় পুলিশের কাজে বাধা ও পুলিশের ওপর হামলা, পুলিশের এপিসি ভাঙচুরসহ দাঙ্গা সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে।

এজাহারে পুলিশ বলেছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৬২ রাউন্ড রাবার বুলেট, ৬ রাউন্ড শিশার বুলেট ও তিন ধরনের ২৭ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস শেল ফায়ার করেছে। গ্যাস শেলগুলোর মধ্যে লং গ্যাস শেল ১৭টি, শর্ট (স্বল্প দূরত্বের) গ্যাস শেল আটটি এবং থ্রি বাটন দুটি ফায়ার করা হয়েছে। এর বিপরীতে আলামত হিসেবে ঘটনাস্থল থেকে নয়টি ভাঙা ইটের টুকরা, তিন হাত লম্বা চারটি ও আড়াই হাত লম্বা তিনটি বাশের লাঠি জব্দ করা হয়েছে।

Also Read: আওয়ামী লীগ-বিএনপির সমাবেশ ঘিরে রণক্ষেত্র পল্লবী

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক