বিএনপির উপর হামলায় ‘অতি উৎসাহী’ কেউ থাকলে ব্যবস্থা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কোনো দলকে কোনো কর্মসূচি পালনে বাধা দেওয়া হচ্ছে না বলে দাবি করেন তিনি।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Sept 2022, 03:03 PM
Updated : 18 Sept 2022, 03:03 PM

বিএনপি নেতাদের উপর হামলায় আওয়ামী লীগের ‘অতি উৎসাহী’ কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

রোববার সচিবালয়ে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ আশ্বাস দেন।

কুমিল্লায় ও ঢাকার বনানীতে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর হামলার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “কালকে (শনিবার) কুমিল্লার ঘটনায় বিএনপির এক সিনিয়র নেতা আহত হয়েছেন। আমরা সেটা শুনেছি, ইতোমধ্যে তদন্তের ব্যবস্থা করছি।

“কারা এ ঘটনাটি ঘটিয়েছেন, সেটা দুই রকমভাবে শুনেছি। যেহেতু আমি শুনেছি, তাই তদন্তের আগে কিছু বলতে পারব না। আমি একুটু বলতে পারি, যদি কেউ এ ব্যাপারে অতি উৎসাহী হয়ে কেউ কিছু করে থাকেন, কিংবা কেউ যদি ঘটনাটা ঘটিয়ে থাকেন ইচ্ছা করে, তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

কুমিল্লায় শনিবার বিএনপি নেতা বরকতউল্লাহ বুলুকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ ওঠে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। একই দিন ঢাকার বনানীতে হামলায় আহত হন তাবিথ আউয়ালসহ কয়েকজন নেতা-কর্মী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “কুমিল্লায় যে ঘটনাটি ঘটেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঠিক ওই জায়গায় উপস্থিতি ছিল না। তারা খবর পেয়েই দৌড়ে গিয়েছিল। বনানীর যে ঘটনাটা, সেটা না জেনে আমি বলতে পারব না। আপনারা বিএনপি নেতাদের উপস্থিতি মাঠে-ময়দানে হঠাৎ করেই দেখছেন।”

কোনো দলের রাজনৈতিক কার্যক্রমে সরকারের পক্ষ থেকে বাধা দেওয়া হচ্ছে না বলে দাবি করেন তিনি।

“কিন্তু সবাইকে দেশের আইন মেনে চলতে হবে। যখন কেউ ভাঙচুর করবে, রাস্তা অবরোধ করবে, কিংবা জনমালের ক্ষতি করবে বা জ্বালাও পোড়াও করবে, তখনই আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী তাদের যে অর্পিত দায়িত্ব, সেটা তারা পালন করবে। সেটা তারা করছে।”

রাজনৈতিক সহিংসতার বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “এটা (সহিংসতা) দুই দলের ক্ষেত্রেই হচ্ছে৷ আমাদের স্বেচ্ছাসেবক লীগের এক কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। কাজেই একদল মার খাচ্ছে, আর একদল ঘরে বসে আছে ঠিক সে রকম নয়। পাল্টাপাল্টি দু-এক জায়গায় হয়েছে।”

নির্বাচন সামনে রেখে সংঘাত শুরু হয়েছে কি না- প্রশ্নে তিনি বলেন, “নির্বাচনের সময় রয়েছে অনেক। তবে এখানে কার কী উদ্দেশ্য এগুলো তো আমরা পর্যবেক্ষণ না করে বলতে পারব না। অনেকেরই অনেক উদ্দেশ্য থাকতে পারে।

 “আমরা মনে করি সামনে নির্বাচন আসছে, সে নির্বাচনে আবার যদি প্রধানমন্ত্রীকে জনগণ ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেন তাহলে তিনি আসবেন। এখানে কোনো ষড়যন্ত্র করে, কিংবা ভয়-ভীতি দেখিয়ে বা কোন পেশিশক্তির ব্যবহার আওয়ামী লীগ বিশ্বাস করে না।”

“তবে যারা এগুলো করবেন তাদের জন্য অশুভ সংবাদ হলো তারা যদি এগুলো থেকে বিরত না থাকেন তাহলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের ওপর অর্পিত দায়িত্ব সেটা তারা পালন করবে”, বলেন আসাদুজ্জামান কামাল।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক