পাকিস্তানে ভারি বৃষ্টি, জলাবদ্ধতা ও হড়কা বানে ১৮ মৃত্যু

শুধু করাচিতেই বৃষ্টিজনিত বিভিন্ন ঘটনায় মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জন ডুবে আর বাকিরা বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে।

নিউজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 09:35 AM
Updated : 26 July 2022, 09:35 AM

পাকিস্তানে দুই দিনের ভারি বৃষ্টিপাতে দেখা দেওয়া জলাবদ্ধতা, বন্যা ও হড়কা বানে অন্তত ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।

পাকিস্তানের সংবাদ মাধ্যম ডন জানিয়েছে, প্রবল ঢলের তোড়ে সারাদেশজুড়ে বেশ কয়েটি সেতু ভেসে গেছে এবং বহু এলাকায় ঘরবাড়ি ও বাজার পানিতে তলিয়ে গেছে।

সোমবার শুধু করাচি শহরেই বৃষ্টিজনিত বিভিন্ন ঘটনায় মোট ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ছয় জন ডুবে আর বাকি পাঁচ জন বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে।

রোববার ভোরে শুরু হওয়া বৃষ্টি সকাল ১০টা পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। দিনের প্রথমার্ধেই প্রায় ২০৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

মঙ্গলবার কিছুটা বিরতি নিলেও আরও দুদিন বৃষ্টি অব্যাহত থাকার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে পাকিস্তানের আবহাওয়া দপ্তর।

আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা সরদার সরফরাজ বলেন, ““সর্বশেষ তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, বৃষ্টি আরও দুই দিন অব্যাহত থাকবে। করাচিসহ সিন্ধুর নিম্নাঅঞ্চলজুড়ে ২৭ জুলাই পর্যন্ত মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টি হতে পারে।”

প্রবল বৃষ্টির কারণে সোমবার করাচি ও হায়দ্রাবাদে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়।

এদিকে হায়দরাবাদের তান্ডো মোহাম্মদ খান জেলার বাকার নিজামনি গ্রামে ২০ বছর বয়সী এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। তাছাড়া দাদু ও খয়েরপুর মিরসে বৃষ্টিজনিত কারণে দুজনের মৃত্যু ও ১০ জন আহত হয়।

প্রবল বৃষ্টিতে দেখা দেওয়া হড়কা বানে বেলুচিস্তান প্রদেশে কোয়েটা-করাচি জাতীয় মহাসড়কের অন্তত দুটি সেতু ভেসে গেছে। প্রদেশটির খুজদার ও লাসবেলা এলাকায় হড়কা বানে অন্তত চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার রাতে প্রবল হড়কা বানে সিন্ধু ও বেলুচিস্তান প্রদেশকে সংযোগকারী হাব সেতুর একটি অংশ ভেসে গেছে। এতে করাচি ও হাব শহরের মধ্যে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

সিন্ধু ও বেলুচিস্তানের পাশাপাশি দেশটির পাঞ্জাব ও খাইবার পাখতুন খোয়া প্রদেশেও ভারি বৃষ্টিতে বন্যা ও হড়কা বানের ঘটনা ঘটনায় অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বহু এলাকা বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক