বাংলাদেশের বেস্ট কুলিং পারফর্মেন্স রেফ্রিজারেইটর যমুনা

বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী যমুনা গ্রুপের অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইলস সম্প্রতি বুয়েট টেস্ট কর্তৃক স্বীকৃত বাংলাদেশের প্রথম এবং একমাত্র রেফ্রিজারেটর ব্র্যান্ড যমুনা, যার অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা মাইনাস ২৮° সেলসিয়াস থেকে ৪° সেলসিয়াস!

লাইফস্টাইল ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Sept 2022, 02:38 PM
Updated : 25 Sept 2022, 02:38 PM

বিজ্ঞাপন বার্তা

বিশ্বের যে কোনো নামী ব্র্যান্ডের তুলনায় বেস্ট কুলিং পারফর্মেন্স রেফ্রিজারেটর বিবেচনায় – যমুনা এখন দেশ সেরা। বাংলাদশের অন্য রেফ্রিজারেটর কোম্পানিগুলোর সাথে বিবেচনা করলে যমুনা রেফ্রিজারেটর যোজন যোজন এগিয়ে রয়েছে। বেস্ট কুলিং পারফর্মেন্স-এর এই রেফ্রিজারেটর ক্রেতার হাতে তুলে দিতে পেরে যমুনা ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড অটোমোবাইলস পরিবার গর্বিত।

লোডশেডিংয়ের এই ভোগান্তির সময়ে বিদ্যুৎ ছাড়াই যমুনা রেফ্রিজারেটরে ৭২ ঘণ্টা এবং যমুনা ফ্রিজারে ১২০ ঘণ্টা খাবার থাকবে ফ্রেশ এবং টাটকা। এছাড়াও যমুনা ফ্রিজ কেনার পর সার্ভিসিং নিয়ে ঝামেলা ৯৯% কম।

যমুনার সব মডেলের রেফ্রিজারেটরে R600a গ্যাস ব্যবহৃত হয়, যা পরিবেশ বান্ধব ও মানব দেহের কোনো ক্ষতি করে না। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে যমুনা রেফ্রিজারেটরে রাখা খাবারের মান ঠিক থাকে এবং ৭০ শতাংশ বিদ্যুৎ খরচ কম হয়।

সিলিকন জেল মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর। এটি খাদ্যমান নষ্ট করে। যমুনা রেফ্রিজারেটর উৎপাদন প্রক্রিয়ার কোথাও এটি ব্যবহার করে না।

অনেক ফ্রিজে মানবদেহ ও পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর R134a গ্যাস ব্যবহৃত হয়। যমুনা রেফ্রিজারেইটরের সব মডেলে ব্যবহার হয় ইকো-ফ্রেন্ডলি-গ্যাস R600a, যা পরিবেশ বান্ধব।

অত্যাধুনিক প্রযুক্তির অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল গ্যাস্কেট ব্যবহারের ফলে খাবারের মান ঠিক থাকে।

যমুনার পণ্য কিনলেই পাওয়া যাবে সবচেয়ে সহজ কিস্তি সুবিধা, ক্যাশব্যাক, নিশ্চিত ডিসকাউন্ট, ১২ মাস পর্যন্ত শূন্য শতাংশ ইন্টারেস্টে ইএমআই সুবিধাসহ আরও অনেক কিছু।

রেফ্রিজারেটর বা ফ্রিজের বাজারে যমুনা একটি অনন্য নাম। যমুনার ফ্রিজ উচ্চ প্রযুক্তির, সাশ্রয়ী ও গুণগত মান সম্পন্ন।

যমুনা ফ্রিজে রয়েছে ১০ বছরের কম্প্রেসার ওয়ারেন্টি। দীর্ঘস্থায়িত্ব, আকর্ষণীয় ডিজাইন, উন্নত কম্প্রেসার, ওয়ারেন্টি, বিক্রয়োত্তর সেবা সবদিক থেকে যমুনা ফ্রিজ সেরা।

ডিসক্লেইমার: এটি একটি বিজ্ঞাপনী বার্তা; সংবাদ প্রতিবেদন নয়। এর কোনো কনটেন্টের দায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের নয়।  
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক