জ্যাজ কিংবদন্তি ফ্যারোহ স্যান্ডার্সের জীবনাবসান

আরেক জ্যাজ শিল্পী অরনেট কোলম্যান বিশ্বের সেরা ‘টেনর বাদক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন স্যান্ডার্সকে।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Sept 2022, 02:12 PM
Updated : 25 Sept 2022, 02:12 PM

স্যাক্সোফোন বাদনকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়া মার্কিন জ্যাজ সংগীতের কিংবদন্তি ফ্যারোহ স্যান্ডার্স মারা গেছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, শনিবার লস অ্যাঞ্জেলসে নিজের বাড়িতেই মারা যান ৮১ বছর বয়সী স্যান্ডার্স। পরিবার ও বন্ধুদের মাঝেই তার ‘স্বাভাবিক’ মৃত্যু হয়।

এশিয়া ও আফ্রিকার ঐতিহ্যে প্রভাবিত জ্যাজের যে ধারা ‘আধ্যাত্মিক জ্যাজ’ হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে, তার অন্যতম পথীকৃতি বলা হয় স্যান্ডার্সকে। অভিব্যক্তি ও বাজনা ভঙ্গির কারণে অনেকেরই প্রিয় বাদক হয়ে উঠেছিলেন তিনি।

১৯৪০ সালে আরকানসার লিটল রক শহরে ফ্যারোহ স্যান্ডার্সের জন্ম। ষাটের দশকে নিউ ইয়র্ক যাওয়ার আগে ক্যালিফোর্নিয়ার ওকল্যান্ডে তার কর্মজীবন শুরু হয়।

সেখানে তিনি সুরকার সান রা’র সঙ্গে কাজ করেন। বলা হয়, সানই তাকে ফ্যারোহ নামটি নিতে উত্সাহিত করেছিলেন। পরে তিনি জন কোলট্রেইনের ব্যান্ডে যোগ দিয়ে মঞ্চ এবং স্টুডিওতে নিয়মিত হন।

আরেক জ্যাজ শিল্পী অরনেট কোলম্যান স্যান্ডার্সকে বিশ্বের সেরা টেনর বাদক হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন।

এক সাক্ষাত্কারে স্যান্ডার্স বলেছিলেন, “আমি চাই আমার সুর হোক সুবাসের মত, যা সবাই পছন্দ করে। এই সুর হোক তেমন সজীব, যেন সেটা দাদির হাতে বানানো কেকের ঘ্রাণের মত মনে হয়।”

তার প্রথম অ্যালবাম প্রকাশিত হয় ১৯৬৫ সালে। ২০২১ সালে তিনি ব্রিটিশ ইলেকট্রনিক সংগীতশিল্পী স্যাম শেফার্ডের সঙ্গে কাজ করেন। শেফার্ডের গায়কী নাম ফ্লোটিং পয়েন্ট।

তার সঙ্গেই স্যান্ডার্স তার ‘প্রমিজেস’ অ্যালবাম প্রকাশ করেন। লন্ডন সিম্ফনি অর্কেস্ট্রায় রেকর্ড হওয়া এ অ্যালবাম মার্কারি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছিল।

স্যান্ডার্সের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে টুইটারে শেফার্ড লেখেন, "এই মানুষটির সঙ্গে কাজ করতে পেরে আমি নিজেকে ভাগ্যবান মনে করি। তার রেখে যাওয়া শিল্প আমাদের সঙ্গে চিরকাল থাকবে। আপনাকে ধন্যবাদ ফ্যারোহ।"

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক