দীঘি-রেজওয়ানের ‘নয়্যার’ জনরাঁর ওয়েব ফিল্ম ‘তাম্মি’

ওয়েব সিনেমাটির প্রধান চরিত্র, পরিচালক, ভিডিওগ্রাফার ও পোশাক ডিজাইনার চারজনই নারী।

গ্লিটজ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 Sept 2022, 02:31 PM
Updated : 18 Sept 2022, 02:31 PM

শেষ হল আলোচিত অভিনেত্রী প্রার্থনা ফারদিন দিঘী ও তরুণ অভিনেতা মাসুম রেজওয়ান ওয়েবফিল্ম ‘তাম্মি’র শুটিং। যেখানে গতানগতিক প্রেম ভালোবাসার বাইরে গিয়ে সমাজের নানা অসঙ্গতিকে ব্যাঙ্গাত্মক রূপে তুলে ধরেছেন এর নির্মাতা।

 ‘নয়্যার’ জনরাঁর এ ‍ওয়েবফিল্মটি নির্মাণ করেছেন ভুঁইয়্যা মাহিয়্যা মাহমুদা। অক্টোবরে একটি ওটিটি প্লাটফর্মে এটি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। শনিবার রাতে শেষ হয়েছে ‘তাম্মি’র দৃশ্যধারণের কাজ।

মানসিকভাবে বিপর্যস্ত এক মেয়ের সংগ্রামের গল্প নিয়ে তৈরি সিনেমাটির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন শিশু শিল্পী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী দীঘি। তার বিপরীতে দেখা যাবে রহস্য, থ্রিলার আর সাসপেন্সে ঘেরা পারিবারিক ড্রামাসিরিজ ‘নিখোঁজ’-এ অভিনয় করে আলোচনায় আসা মাসুম রেজওয়ানকে।

এই সিনেমার পরিচালক, প্রধান চরিত্র, চিত্রনির্দেশক এবং  পোশাক ডিজাইনার সবাই নারী।

তাম্মিতে কাজ করা নিয়ে গ্লিটজকে দীঘি বলেন, “যখন শুনলাম এই ফিল্মের প্রধান চরিত্র, পরিচালকসহ আরও গুরুত্বপূর্ণ দুজায়গায় চারজনই নারী, তখন কাজটার ব্যাপারে আমার আগ্রহ বেড়ে যায়। যেহেতু মিডিয়া স্টাডিজ অ্যান্ড জার্নালিজমে পড়ছি আমি, ভবিষ্যতে নির্মাণ অথবা ডিওপি হিসেবে কাজের ইচ্ছা আছে, সেহেতু তাদের মাঝে আমার ভবিষ্যৎ দেখতে পেয়েছি।”

তবে সব ছাপিয়ে সিনেমার গল্পটাই তাকে টেনেছে বলে জানান অভিনেতা-অভিনেত্রীর সন্তান দীঘি।

“গল্প তো সবার আগে। গল্প ভালো বলেই কাজটাতে হ্যাঁ বলা। তারপর যদি কিছু থাকে, সেটা পরিচালক, সহশিল্পী এবং অন্যান্য বিষয়।”

তাহলে কী তাম্মি নারী সর্বেসর্বা একটি সিনেমা?

এ প্রশ্নে দীঘি বলেন, “পুরোপুরি তা না। কলাকুশলী ও প্রধান চরিত্র নারী। গল্পটা একটা নারীকে কেন্দ্র করে। তাই বলে সবই নারী বিষয়টা তা না। মাসুম রেজওয়ান খুব গুরুত্বপূর্ণ একটা চরিত্রে কাজ করছে। সেও ওটিটির জনপ্রিয় মুখ।”

“ডিরেক্টর, ডিওপি দুজনেই নারী। তাই তাম্মি চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলাটা আমার জন্য সহজ হয়েছে। সেরা কাজটার জন্য সর্বোচ্চ এফোর্ট দিয়েছেন তারা”, বললেন দীঘি।
অভিনেতা মাসুম রেজওয়ান বলেন, “খুব সুন্দর একটি গল্প পাওয়া যাবে তাম্মীতে। দীঘির সঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতা দারুণ। সহশিল্পী হিসেবে খুবই সাপোর্টিভ। একবারও মনে হয়নি দুজনে একসঙ্গে প্রথম কাজ করছি।”

নির্মাতা মাহিয়্যা মাহমুদা বলেন, “এটা আমার প্রথম পরিচালনা। চরিত্রটির বয়স, লুক, অভিনয় সব মিলিয়ে দীঘিকে পারফেক্ট মনে হয়েছে। দারুণ করেছে সে। মাসুম রেজওয়ানও দারুণভাবে মানিয়ে গেছে গল্পের সঙ্গে।”

“আমি নয়্যার জনরাঁয় কাজটা করছি। এই জনরাঁ এক্সপেরিমেন্ট, সাউন্ড, টেকনলজি, ফ্ল্যাশব্যাক, সিনেমাটোগ্রাফি, স্টোরিসহ সিনেমার সব দিকেই ফোকাস করে। আমি কিছু কি-পয়েন্টে ফোকাস করছি। তারমধ্যে একটা স্যাটায়ার। গতানগতিক প্রেম ভালোবাসার বাইরে গিয়ে সোশাল স্যাটায়ারকে ফোকাস করেছি।”

নয়্যার জনরাঁকে এক কথায় বলে ‘ডার্ক ফিল্ম’, যেখানে মূল চরিত্র ভাগ্যচক্রে জড়িয়ে পড়ে অপরাধে, অর্থাৎ পরিস্থিতি তাকে সেদিকে যেতে বাধ্য করে। আবার নিউ নয়্যার সিনেমায় ব্যাঙ্গেই হয়ে ওঠে প্রধান উপজীব্য।

মাহমুদা বলেন, “পাশাপাশি কনটেম্পরারি থিউরির উপরে মানুষের বড়সর পরিবর্তনও দেখাব। মডার্ন লাইফ এবং পোস্ট মডার্ন লাইফের মধ্যে বেসিক পার্থক্যটা এ গল্পে দেখব।”

নির্মাতা জানালেন, ‘মেন্টাল হেলথ নিয়ে দেশের মানুষ সেই অর্থে সচেতন না। এই গল্পের অনেক বড় একটা অংশ জুড়ে রয়েছে মেন্টাল হেলথ।’      

ওটিটিতে এটা দীঘির দ্বিতীয় কাজ। এর আগে ‘শেষ চিঠি’ ওয়েব ফিল্মে তার অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। অন্যদিকে গত বৃহস্পতিবার মুক্তি পাওয়া চরকির ওয়েবফিল্ম ‘নিঃশ্বাস’-এ একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন মাসুম রেজওয়ান।

এই দুজন ছাড়াও তাম্মিতে অভিনয় করেছেন সৌমিক বাগচী, নিজাম উদ্দিন তামুর, নুফা তানহা, শুভ্র সোরখেল প্রমুখ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক