‘ম্যায় হু না’: কাকে দেখে সুম্মিতার চোখ কপালে উঠেছিল?

পরিচালক ফারাহ খান চাইছিলেন, শাহরুখ-সুস্মিতাকে মুখোমুখি করে দুজনকে চমকে দিতে।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 Feb 2024, 10:29 AM
Updated : 9 Feb 2024, 10:29 AM

বিনোদন আর অ্যাকশনে ভরা দুই দশক আগের সিনেমা ‘ম্যায় হু না’ মানেই শাহরুখ খান ও সুস্মিনা সেনের সতেজ রসায়ন। অনেকের কাছে নস্টালজিয়ায় ভাসানো এক সিনেমা, বলিউডি সমালোচকদের কাছে 'দারুণ' কাজ। সেই সিনেমা নিয়ে এর নায়িকা এক সময়ের বিশ্ব সুন্দরী সুস্মিতা সেন জানালেন নতুন এক তথ্য।

আনন্দবাজার লিখেছে, পিংকভিলাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সুস্মিতা বলেছেন, চিত্রনাট্য, বা এর গল্পের প্রেক্ষাপট, এমনকি নায়ক কে- সেসবের কিছু না জেনেই সিনেমাটি করতে রাজি হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

এর কারণ এক সময়ের কোরিগ্রাফার ফারাহ খান ‘দিলবার দিলবার’ গানের শুটিংয়ের সময় সুস্মিতাকে বলেছিলেন, “যখন আমি সিনেমা বানাব, আমার প্রথম কাজের নায়িকা হবে তুমি।”

সে সময় ফারাহ কথায় সুস্মিতা সায় দিয়েছিলেন। এরপর এই কোরিওগ্রাফার যখন 'ম্যায় হু না' দিয়ে প্রথমবার নির্মাণে হাত দিলেন এবং ডাকলেন সেই সুস্মিতাকেই, এই অভিনেত্রীও তার দেওয়া কথা রাখতে, কিছুই না জেনে চলে যান শুটিং সেটে।

সেটে গিয়ে সুস্মিতা দেখেন, সেখানে বসে আছেন শাহরুখ খান।

চোখ কপালে তুলে সুস্মিতার প্রশ্ন, “ফারাহ, শাহরুখ এখানে কেন?”

বিস্মিত হয়েছিলেন কিং খানও। কারণ তার কাছেও নায়িকার নাম পরিচয় গোপন রেখেছিলেন ফারাহ।

পরিচালক চাইছিলেন, নায়ক-নায়িকাকে একেবারে মুখোমুখি করে দুজনকে চমকে দিতে। সেই কাজে তিনি সফলও হয়েছিলেন বলে ভাষ্য সুস্মিতার।

২০০৪ সালে মুক্তি পাওয়া 'ম্যায় হু না'র চিত্রনাট্য নিয়ে অনেক অভিনয়শিল্পীর দরজা থেকে ফিরে আসতে হয় ফারাহকে।

ঐশ্বরিয়া রাই, হৃতিক রোশান, কমল হাসান, ফারহান আখতারসহ অনেককেই এই সিনেমায় অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়। কেউ সময়ের অভাবে, কেউ চিত্রনাট্য পছন্দ না হওয়ায় প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

‘ম্যায় হু না’ সিনেমায় খল চরিত্রে অভিনয় করেন সুনীল শেঠি। কিন্তু সুনীলেরও প্রথমে চরিত্রটি পছন্দ হয়নি। কমল হাসান ও নাসিরউদ্দিন শাহকে শুরুতে এ চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব দেওয়া হলে তারা ফিরিয়ে দেন। নাসিরুদ্দিন শাহ অবশ্য অন্য একটি চরিত্র করেন এই সিনেমায়।

এরপর প্রস্তাব যায় নানা পাটেকরের কাছে। কিন্তু তার শর্ত ছিল চিত্রনাট্যে কিছু বদল করতে। কিন্তু পরিচালক রাজি হননি। শেষ পর্যন্ত খলনায়ক হতে রাজি হন সুনীল শেঠি।

মাত্র ২৫ কোটি রুপি বাজেটের সিনেমাটি পরে ৮৯ কোটি রুপি আয় করে বক্স অফিসে দারুণ ব্যবসা করে।