পরদেশের ২৫ বছর: ভাবা হয়েছিল মাধুরীকে, কেন শেষে মাহিমা

নির্মাতা বুঝেছিলেন মাধুরীর মত একজন তারকা অভিনেত্রী ‘গঙ্গা’ চরিত্রের সারল্য ফুটিয়ে তুলতে পারবেন না, যা পেরেছিলেন মহিমা।

গ্লিটজ ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 9 August 2022, 11:41 AM
Updated : 9 August 2022, 11:41 AM

বলিউডের নির্মাতা সুভাষ ঘাই গত শতকের শেষ দিকে মাধুরী দিক্ষিতকে মাথা রেখেই তার ‘পরদেশ’ সিনেমার পরিকল্পনা সাজিয়েছিলেন, কিন্তু ‘গঙ্গা’ চরিত্রে কেন শেষ পর্যন্ত নবাগত মাহিমা চৌধুরীকে আনলেন, সেই গুমোর ফাঁস হল ২৫ বছর পর।

১৯৯৭ সালে শাহরুখ খান এবং মাহিমা চৌধুরীর ‘পরদেশ’ সিনেমা শুধু বলিউডে নয়, আলোড়ন তোলে বাংলাদেশেও। সেই সাফল্যের ২৫ বছর পূর্তিতে কিছু না বলা কথা প্রকাশ করেছেন সুভাষ ঘাই।

হিন্দুস্থান টাইমস লিখেছে, সুভাষ ঘাই ‘পরদশের’ জন্য প্রতিষ্ঠিত নায়িকার বদলে নতুন মুখ খুঁজছিলেন চিত্রনাট্যের প্রয়োজনেই।

এক সাক্ষাৎকারে সুভাষ বলেন, প্রাথমিকভাবে তার পছন্দে ছিলেন মাধুরী। তিনি গল্পটি মাধুরীকে শুনিয়েছিলেন। এবং অনেকেই তাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন, মাধুরীর মত কোনো বড় তারকাকেই ‘গঙ্গা’ চরিত্রে মানাবে। তাছাড়া মাধুরী থাকলে সিনেমা বক্স অফিসে ‘ফাটিয়ে’ দেবে।

অনেক ভেবেচিন্তে সুভাষ পরে নতুন কাউকে ওই চরিত্রে আনার সিদ্ধান্ত নেন। তার পছন্দ মাহিমাতেই আটকে যায়।

নির্মাতা বলেন, গঙ্গা চরিত্রটি ছিল এক তরুণীর, যে গ্রামের পরিবেশে বেড়ে উঠেছে। আকাশে বিমান উড়ে যাওয়া দেখলে যার মনে আমেরিকা যাওয়ার ইচ্ছা খেলে যায়। গঙ্গার অনেক বন্ধু বিয়ে করে আমেরিকায় আছে, তাই সে মনেপ্রাণে সে দেশে যেতে চায়।

সুভাষের ভাষায়, “মোট কথা, একজন সহজ সরল মেয়ে হল গঙ্গা। আমি বুঝতে পেরেছিলাম, একজন তারকা অভিনেত্রীর অভিনয় থেকে ঠিক ওই ধরনের সরলতা বের করে আনা সম্ভব হবে না। কিন্তু একজন নবাগত সহজেই সেটি ফুটিয়ে তুলতে পারবে। মাহিমা চৌধুরী সেটা পেরেছিলেন। “

তাছাড়া মাহিমার ‘নিষ্পাপ হাসি’ মুগ্ধ করেছিল নির্মাতাকে, তাই তিনি সিদ্ধান্ত নেন, গঙ্গা করবেন মাহিমাই।

সাক্ষাৎকারে সুভাষ জানান, তিনি ঠিক কেমন চাচ্ছেন, সেটা শাহরুখ খানকেও প্রথমে বোঝানো যায়নি। যেমন অর্জুন চরিত্রে শাহরুখ জিন্স বাদ দিয়ে চরিত্রের সঙ্গে মানানসই ট্রাউজার পরতে রাজি ছিলেন না।

সেই সাক্ষাৎকারটি টুইটারে শেয়ার করে সুভাষ লিখেছেন, পরদেশ সিনেমার রজত জয়ন্তীতে সিনেমার অভিনেতা নির্বাচনে তার অভিজ্ঞতা তুলে ধরার কারণ একটাই, তা হল ‘পরদেশ’ এখনও তরুণদের পছন্দের সিনেমার একটি, যেমন ছিল ২৫ বছর আগেও। সবাইকে আবারও ‘পরদেশ’ দেখার আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি।

মাহিমা চৌধুরীর একটি ভিডিও পোস্ট করে সিনেমাটির অসামান্য সাফল্যের জন্য অভিনয় শিল্পী. কলাকুশলী এবং ভক্তদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন সুভাষ ঘাই। অভিনয় থেকে দূরে থাকা মাহিমা এখন ক্যান্সারের সঙ্গে লড়াই করছেন।

১৯৯৭ সালে ৮ অগাস্ট মুক্তি পাওয়া ‘পরদেশ’ সিনেমার অভিনেতাদের মধ্যে আরও ছিলেন অমরেশ পুরি এবং অপূর্ব অগ্নিহত্রী। সেই সিনেমায় শ্রেষ্ঠ নবাগতার পুরস্কার জিতে নেন মাহিমা চৌধুরী, শ্রেষ্ঠ পরিচালক হিসেবে সুভাষ ঘাই মনোনীত হন ফিল্মফেয়ার পুরস্কারে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক