‘ফিরোজা বেগম পদক’ পেলেন ফেরদৌসী-আব্দুল হাদী

সংগীতে অবদানের জন্য ২০১৬ সাল থেকে ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক দেওয়া হচ্ছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 July 2022, 07:24 PM
Updated : 27 July 2022, 07:24 PM

নজরুল সংগীতের কিংবদন্তি শিল্পী ফিরোজা বেগমের নামে প্রবর্তিত ‘স্মৃতি স্বর্ণপদক' পেয়েছেন দেশের বরেণ্য দুই সংগীতশিল্পী সৈয়দ আব্দুল হাদী ও ফেরদৌসী রহমান।

বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাদের এই পদকে ভূষিত করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান তাদের হাতে পদক তুলেন।
ফিরোজা বেগমের জীবন ও কর্মকে স্মরণীয় করে রাখতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরোজা বেগম মেমোরিয়াল ট্রাস্ট ফান্ড করেছে এসিআই ফাউন্ডেশন। সংগীতে অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৬ সাল থেকে প্রতি বছর একজনকে ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক দেওয়া হচ্ছে।
করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে গত দু'বছর এই পুরস্কার দিতে না পারায় এবছর একই সঙ্গে ২০২০ সালের জন্য ফেরদৌসী রহমান ও ২০২১ সালের জন্য সৈয়দ আব্দুল হাদীকে এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত করা হয়।
স্বর্ণপদক গ্রহণ করে সৈয়দ আব্দুল হাদী বলেন, “জীবনের এই পর্যায়ে এসে আনন্দের উৎসগুলো খুব সংকুচিত হয়ে আসে। তবে আজকের এই মুহূর্তটির মতো এমন কিছু মুহূর্ত আছে, যা অনেক আনন্দের বার্তা নিয়ে আসে। পদক নিচ্ছি এটা আনন্দের, তবে সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে এই পদকটির গ্রহণের মধ্য দিয়ে ফিরোজা বেগমের মতো একজন শিল্পীর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে পারছি।”

তিনি বলেন, “ফিরোজা আপার সঙ্গে দ্বৈত কণ্ঠে গান গাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছিল আমার। উপমহাদেশের প্রবাদপ্রতিম সুরকার কমল দাস গুপ্ত নজরুলের উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্রের জন্য আমাকে ও ফিরোজা আপাকে দিয়ে ‘আমার সাম্পান যাত্রী না লয়’ গানটি করিয়েছিলেন। সেই স্মৃতি এখনও নাড়া দেয়।”

সৈয়দ আব্দুল হাদী ও ফেরদৌসী রহমান একই সময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিলেন। একই সময়ে এই পদক পাওয়ার অনুভূতি বর্ণনা করে সৈয়দ আব্দুল হাদী বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় আমরা একসঙ্গে গান করেছি। আজকে একই মঞ্চে দুজন পদক গ্রহণ করছি, এটিও আনন্দের।”

অনুষ্ঠানে ফিরোজা বেগমের স্মৃতিচারণ করে ফেরদৌসী রহমান বলেন, “ফিরোজা আপা আসল সাধিকা ছিলেন। তিনি জন্মেছেন তো অবশ্যই গুণাগুন নিয়ে, কিন্তু সাধনার ফল যে কতটা হতে পারে, তিনি দেখিয়েছেন। মা বলতেন- গান করছো, ফিরোজার মতো সাধনা করো।
“একটা কথা বাবা (শিল্পী আব্বাস উদ্দিন) বলতেন, গানটা তোমার মনের মধ্যে পৌঁছতে দাও। তার মানে যখন তুমি ওটার মধ্যে ডুবে যাবে, তখনই গানের সাধনা হবে। ফিরোজা বেগমের প্রতিটি গান মানুষের মনের মধ্যে গেঁথে আছে, থাকবে।"
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, একজন কিংবদন্তি শিল্পীর নামে প্রবর্তিত স্বর্ণপদক দেশের দুজন কিংবদন্তি শিল্পী লাভ করলেন।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক আবদুল বাছির বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। স্বাগত বক্তব্য দেন এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এবং ট্রাস্ট ফান্ডের দাতা এম আনিস উদ দৌলা। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন সংগীত বিভাগের চেয়ারম্যান ড. দেবপ্রসাদ দাঁ। রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক