বিসিসিসিআই-ইআরএফ পুরস্কার পেলেন যারা

প্রথম পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা, দ্বিতীয় পুরস্কার ৭৫ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পুরস্কার ৫০ হাজার টাকা।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 Feb 2024, 11:22 AM
Updated : 4 Feb 2024, 11:22 AM

বাংলাদেশ চায়না চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (বিসিসিসিআই-ইআরএফ) এর দেওয়া 'বেস্ট রিপোর্টিং' পুরস্কার পেয়েছেন দেশের ১৭ সাংবাদিক।

রোববার দুপুরে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে পাঁচটি শাখায় পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

পুরস্কারপ্রাপ্ত সাংবাদিকরা দেশের বিভিন্ন পত্রিকা, টেলিভিশন এবং অনলাইন নিউজ পোর্টালে কাজ করেন, যারা 'ইআরএফ'র সদস্য।

'বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ব্যবসা ও বিনিয়োগ', 'চীনের হাই-কোয়ালিটি ডেভেলপমেন্ট কনসেপ্ট বা পলিসি কীভাবে বাংলাদেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে', 'চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনেশিয়েটিভ ও বাংলাদেশের উন্নয়ন', 'আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্স', 'ফোর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল রেভ্যুলেশনসহ দ্বি-পক্ষীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি হস্তান্তর এবং অন্যান্য (ব্লু-ইকোনমি, ট্যুরিজম, কালচার, এডুকেশন, হসপিটালিটি)' শাখায় এই পুরস্কার দেওয়া হয়।

বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দিয়ে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু বলেন, “প্রতিবেদনের মাধ্যমে দেশ ও জাতির প্রকৃত অবস্থা তুলে ধরা বড় চ্যালেঞ্জ৷ এ চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করে যারা আজ পুরস্কার পাচ্ছেন এবং এর সহযোগী যারা রয়েছেন তাদের সবাইকে অভিনন্দন৷

প্রতিটি শাখায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় হিসেবে তিনজনকে পুরস্কৃত করা হয়। ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট ছাড়াও প্রথম পুরস্কারের অর্থমূল্য ১ লাখ টাকা, দ্বিতীয় পুরস্কার ৭৫ হাজার টাকা এবং তৃতীয় পুরস্কার ৫০ হাজার টাকা।

প্রথম চারটি শাখায় মোট ১২ জন পুরস্কার পেয়েছেন। আর ‘অন্যান্য’ শাখায় প্রথম ও দ্বিতীয় বিজয়ীর পর তিনজন যৌথভাবে তৃতীয় হয়েছেন। যৌথভাবে তৃতীয় হওয়া প্রত্যেকে ২০ হাজার টাকা করে পেয়েছেন।

ইআরএফের সদস্য সংবাদকর্মীরা এবার মোট ৬৮টি প্রতিবেদন জমা দেন। সেগুলো নিরপেক্ষভাবে মূল্যায়ন করতে দুই সংগঠনের পক্ষ থেকে ৬ সদস্যের জুরি বোর্ড গঠন করা হয়।

অন্যান্য শাখায় প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন নিউজ টোয়েন্টিফোর টিভির জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বাবু কামরুজ্জামান। দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছেন ইংরেজি দৈনিক দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের বিশেষ প্রতিনিধি এফ এইচ হুমায়ুন কবীর।

এ শাখায় যৌথভাবে তৃতীয় পুরস্কার বিজয়ীরা হলেন- দ্য ডেইলি স্টারের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক আহসান হাবিব, সময়ের আলো পত্রিকার বাণিজ্য সম্পাদক এসএম আলমগীর এবং দ্য রিপোর্ট ২৪ ডটকম এর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হাসান আরিফ।

'বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত' সহায়তা বিষয়ক শাখায় দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের বিশেষ প্রতিনিধি দৌলত আক্তার মালা প্রথম পুরস্কার এবং  দ্য বিজনেস পোস্টের পরিকল্পনা সম্পাদক ইব্রাহিম হোসেন অভি দ্বিতীয় পুরস্কার এবং একুশে টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক তৌহিদুর রহমান তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।

'চীনের হাই-কোয়ালিটি ডেভেলপমেন্ট কনসেপ্ট বা পলিসি কীভাবে বাংলাদেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে'-এই শাখায় বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মো. জাহিদুল ইসলাম প্রথম পুরস্কার ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের বিশেষ প্রতিনিধি জসিম উদ্দীন হারুন দ্বিতীয় পুরস্কার এবং একাত্তর টিভির বিশেষ প্রতিনিধি সুশান্ত সিনহা তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।  

'বেল্ট অ্যান্ড রোড ইনিশিয়েটিভ' (বিআরআই) শাখায় প্রথম পুরস্কার পেয়েছেন বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের প্রধান প্রতিবেদক আব্বাস উদ্দিন নয়ন, দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছেন চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের বাণিজ্য সম্পাদক ইকবাল আহসান এবং এনটিভির জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হাসানুল আলম শাওন তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।

'বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে ব্যবসা ও বিনিয়োগ' শাখায় দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জিয়াদুল ইসলাম প্রথম পুরস্কার, দৈনিক যুগান্তরের জ্যেষ্ঠ  প্রতিবেদক এস এ এম হামিদ-উজ-জামান দ্বিতীয় পুরস্কার এবং বৈশাখী টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক তানজিলা খানম সাথী তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছেন।