স্পিনের চমক দেখিয়ে মোসাদ্দেকের ৫ উইকেট

দারুণ বোলিংয়ে বিস্ময় উপহার দিলেন এই অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 July 2022, 12:42 AM
Updated : 31 July 2022, 12:42 AM

১৯ ম্যাচে ৭ উইকেট। স্রেফ একটি ম্যাচে পুরো ৪ ওভার বোলিং। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের হয়ে মোসাদ্দেক হোসেনের বোলিংয়ের চিত্র ছিল এরকমই। অলরাউন্ডার হিসেবেই তাকে নেওয়া হয় দলে, মূলত টুকটাক বোলিংয়ের কাজ চালানোর জন্য। সেই মোসাদ্দেক এবার বোলিং ওপেন করে বিস্ময় উপহার দিয়ে বেশ কয়েকটি রেকর্ড গড়ে নিলেন ৫ উইকেট!

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার ২০ রানে ৫ উইকেট নেন মোসাদ্দেক। এই সংস্করণে যা বাংলাদেশের দ্বিতীয় সেরা বোলিং কীর্তি। বোলিং ওপেন করে ৫ উইকেট নিতে পারলেন বাংলাদেশের কেউ এই প্রথথমবার।

ঘরোয়া-আন্তর্জাতিক মিলিয়ে ১১৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারে আগে কখনোই ইনিংসে দুই উইকেটের বেশি নিতে পারেননি তিনি।

তার বোলিং ওপেন করাটাই ছিল বড় এক চমক। আগে কখনোই তাকে চার নম্বরের আগে বোলিংয়ে আনা হয়নি। জিম্বাবুয়ের ওপেনিংয়ে বাঁহাতি ক্রেইগ আরভিনের জন্যই হয়তো নতুন বল মোসাদ্দেকের হাতে তুলে দেন অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান। মোসাদ্দেক এনে দেন প্রত্যাশার চেয়েও বেশি সাফল্য। প্রথম ওভারেই ফেরান দুই ডানহাতি ব্যাটসম্যানকে!

প্রথম বলে উইকেট দিয়ে শুরু হয় মোসাদ্দেকের সাফল্য যাত্রা। অনেক বাইরের বলে ব্যাট চালিয়ে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন অভিজ্ঞ রেজিস চাকাভা।

সেটিকে তিনি আরেক ধাপ এগিয়ে নিলেন ওভারের শেষ বলে। এবার তার শিকার আগের ম্যাচে ফিফটি করা ওয়েসলি মাধেভেরে। চাকাভার মতো তিনিও ব্যাট চালিয়ে দেন অনেক বাইরের বলে, কাভারে ক্যাচ নেন শেখ মেহেদি।

ইনিংসের প্রথম ওভারে জোড়া উইকেট এই প্রথম নিতে পারলেন বাংলাদেশের কেউ।

নিজের দ্বিতীয় ওভারে ফেরান তিনি আরভিনকে। রিভার্স সুইপ খেলে ঠিকমতো টাইমিং করতে পারেননি জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক, স্লিপে দারুণ রিফ্লেক্স ক্যাচ নেন লিটন দাস।

তৃতীয় ওভারে মোসাদ্দেক নেন আরও একটি বড় উইকেট। বরাবরই ইতিবাচক ব্যাটিং করা শন উইলিয়ামস এ দিনও শুরু করেছিলেন একইভাবে। উইকেটে যাওয়ার পরপরই চার মারেন তিনি দুটি। কিন্তু আগ্রাসনই কাল হয়ে আসে তার। ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে সোজা ব্যাটে খেলেন শট, গতিময় বলটি দারুণভাবে ক্যাচে পরিণত করেন মোসাদ্দেক নিজেই।

তিন ওভারে চার উইকেট শেষ পর্যন্ত রূপ নেয় চার ওভারে পাঁচ উইকেটের আনন্দে। মিল্টন শুম্বার সুইপে স্কয়ার লেগে সামনে ঝাঁপিয়ে দারুণ ক্যাচ নেন হাসান মাহমুদ।

সব মিলিয়ে ২০ রানে ৫ উইকেট। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের জার্সিতে তার চেয়ে ভালো বোলিং আছে কেবল ইলিয়াস সানির। ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে বেলফাস্টে ১৩ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন এই বাঁহাতি স্পিনার।

বাংলাদেশের হয়ে টি-টোয়েন্টিতে ৫ উইকেট আছে আর কেবল সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমানের। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন সাকিব। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কলকাতায় নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ২২ রানে ৫ উইকেট ছিল মুস্তাফিজের।

স্পিনে বোলিং ওপেন করে ৫ উইকেট নেওয়ার কীর্তি এই সংস্করণে বিশ্ব ক্রিকেটেই আছে আর কেবল চার জনের-ভারতের যুজবেন্দ্র চেহেল (৬/১৭), পাকিস্তানের ইমাদ ওয়াসিম (৫/১৪), দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির (৫/২৩) ও আফগানিস্তানের মুজিব-উর-রহমান (৫/২০)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক