জিম্বাবুয়ে সিরিজে যে চ‍্যালেঞ্জ দেখছেন শেখ মেহেদি

সাকিব আল হাসান কিংবা মাহমুদউল্লাহ এসে বলে দেবেন না, কোন ব‍্যাটসম‍্যানকে কীভাবে বোলিং করতে হবে।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2022, 01:11 PM
Updated : 26 July 2022, 01:11 PM

মাহমুদউল্লাহ, সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমের অনুপস্থিতিতে নতুন একটা ভাবনার জায়গা দেখছেন শেখ মেহেদি হাসান। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে কেউ এসে এখন বলে দেবে না, কোন ব‍্যাটসম‍্যানকে কীভাবে বোলিং করতে হবে। সবকিছু এখন ঠিক করতে হবে নিজেদেরই।

সাকিব, মাহমুদউল্লাহ, মুশফিকদের উপস্থিতি বোলারদের নানা সুবিধা এনে দেয়। প্রায়ই বোলারদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় তাদের। ছোটখাট পরামর্শ কাজেও লাগে।

অভিজ্ঞ এই ক্রিকেটারদের কেউই নেই জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম‍্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে। মঙ্গলবার মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গণমাধ‍্যমের মুখোমুখি হয়ে অফ স্পিনিং অলরাউন্ডার শেখ মেহেদি বলেন, ব‍্যাটিং ও বোলিংয়ের সময় তাদের অভাব অনুভব করবেন তিনি।

“এত দিন (মাহমুদউল্লাহ) রিয়াদ ভাই, মুশফিক ভাই, সাকিব ভাইরা বলে দিতেন এই ব্যাটারকে এভাবে বল কর, এই বল এভাবে খেল। এই সিরিজ থেকে কেউ বলবে না। সবাইকে নিজেরটা নিজে করতে হবে। এটা ভালো, কারণ সবাই ১-২ বছর খেলে ফেলেছে। সবাই নিজের বুদ্ধি কাজে লাগাতে পারবে।”

“পরিবারে যখন ছোট থাকেন, তখন বেড়ে ওঠার জন্য বাবা-মাই সব দায়িত্ব নেন। প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেলে নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নেন। এই সিরিজ থেকে নিজেরা নিজেদের সিদ্ধান্ত নিতে পারব, যেহেতু সিনিয়ররা নেই। তারা এতদিন বাংলাদেশের ক্রিকেটের মা-বাবা ছিলেন বা অভিভাবক হিসেবে ছিলেন।”

মুনিম শাহরিয়ার কিছু দিন ধরে আছেন টি-টোয়েন্টি দলে। একেবারেই নতুন মুখ বাঁহাতি ওপেনার পারভেজ হোসেন ইমন। এই দুই জন ছাড়া বাকি সবারই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কয়েক বছর হয়ে গেছে। তাই অভিজ্ঞতার অনেক ঘাটতি হবে, এমনটা মনে করছেন না শেখ মেহেদি।

“এই দলের প্রায় সবাই ৩-৪-৫ বছর খেলে ফেলেছে। ১০ বছর ক্রিকেট খেলা কোনো খেলোয়াড় নেই। ৬-৭-৮ বছর খেলা খেলোয়াড় আছে। তাই বেশিরভাগই তরুণ না। তরুণ বলতে মুনিম শাহরিয়ার আর পারভেজ ইমন, যারা একদমই নতুন। সবাই পরিপক্ক, মোটামুটি অভিজ্ঞ। সবার বোঝার সামর্থ্য আছে, সবাই সামর্থ্যবান।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক