ভুল বুঝতে পেরেছেন এনামুল

টিভি আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে বাজেভাবে প্রতিক্রিয়া দেখালেও ভুল বুঝতে পেরে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন ফরচুন বরিশালের ব্যাটসম্যান।

ক্রীড়া প্রতিবেদক চট্টগ্রাম থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 13 Jan 2023, 03:21 PM
Updated : 13 Jan 2023, 03:21 PM

ব্যাট হাতে এবারের বিপিএলে এখনও পর্যন্ত তেমন কিছু করতে পারেননি এনামুল হক। তবে এক ম্যাচে আলোচনার জন্ম দিয়েছেন তিনি আম্পায়ারের সিদ্ধান্তে দৃষ্টিকটূভাবে প্রতিক্রিয়া দেখিয়ে। এজন্য জরিমানাও গুনতে হয়েছে তাকে। নামের পাশে যোগ হয়েছে একটি ডিমেরিট পয়েন্ট। এখন অবশ্য ফরচুন বরিশালের অভিজ্ঞ ওপেনার বুঝতে পারছেন, কাজটি ঠিক করেননি তিনি।

মিরপুর শের-ই বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে গত মঙ্গলবার রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ম্যাচে বরিশালের ইনিংসের চতুর্থ ওভারে এনামুলের আউট ঘিরে দেখা দেয় বিতর্ক। 

সিকান্দার রাজার বলে এলবিডব্লিউয়ের আবেদনে আউট দেননি আম্পায়ার। রংপুর তখন রিভিউ নেয়। রিপ্লে দেখে মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত বদলে দেন টিভি আম্পায়ার। 

পরিপূর্ণ ডিআরএস না থাকলেও, এডিআরএস দেখেই মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করার উপযুক্ত মনে করেন টিভি আম্পায়ার।


আউটের সিদ্ধান্তে এনামুল বিস্মিত হয়ে যান। ক্ষিপ্ত হয়ে আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা যায় তাকে। পরে মাঠ ছাড়ার সময় বাউন্ডারি সীমানায় বিজ্ঞাপনী টবলারে ব্যাট দিয়ে সজোরে মারেন তিনি।

আচরণবিধি ভাঙার জন্য পরে ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ জরিমানা করা হয় তাকে।

মিরপুরে তার সেদিনের আচরণের প্রতিক্রিয়া শুক্রবার জানা গেল চট্টগ্রামে। চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে দলের প্রতিনিধি হিসেবে সংবাদ সম্মেলনে এসে নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন বরিশাল ওপেনার। 

“মূলত আমরা যখন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলি তখন বেশি সুযোগ পাই না। হয়তো ২-৩টি সুযোগ পাই। বিপিএলও কিন্তু আমাদের জন্য অনেক বড় সুযোগ। এখানে ১-২টা ম্যাচ চলে যাওয়া আমাদের জন্য অনেক হতাশার। আমি মনে করি, প্রতিটা ম্যাচই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, সেটা যে ম্যাচই হোক।” 

“ওই হিসেবে একটা হতাশা কাজ করে যে কী হলো, আউট হয়ে গেলাম। নিজে নিজে তো (অন্য সব ম্যাচে) আউট হচ্ছিই, তার মধ্যে যদি আবার এগুলো হয়, তাহলে তো খারাপ লাগবেই। সেই হিসেব করে ওরকম একটা প্রতিক্রিয়া এসেছে। তবে আমার কাছে মনে হয় ক্রিকেটার হিসেবে এটা হওয়া উচিত নয়।”

সেদিন ওই মুহূর্তে মেজাজ হারিয়ে ফেললেও ভবিষ্যতে আরও সাবধান থাকার চেষ্টা করবেন ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

“অবশ্যই একটা তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া আসে, হতাশা কাজ করে। সবাই খালি চোখে কিন্তু দেখেছে আমারটা আউট হয় না। এটা কিন্তু স্বাভাবিক। কিন্তু আউট দিয়ে দিছে। টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান হিসেবে আমার খারাপ লাগাই স্বাভাবিক। ওই মুহূর্তে একটা প্রতিক্রিয়া এসেছে। আমি মনে করি পরবর্তীতে যদি এরকম হয়, চেষ্টা করব মেনে নেওয়ার।”

রংপুরের বিপক্ষে ওই ম্যাচে আউট হওয়ার আগে ১টি করে চার-ছয়ে ১৫ রান করেন এনামুল। তাকে আউট দিয়ে টিভি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল, তা মোটামুটি নিশ্চিত।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে থেকেই এডিআরএস নিয়ে হচ্ছে নানান আলোচনা। এটি নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখানো প্রথম ক্রিকেটার নন এনামুল। তার আগে আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই ঢাকা ডমিনেটর্সের তারকা সৌম্য সরকার টিভি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত মেনে না নিয়ে মাঠে দাঁড়িয়ে থাকেন। পরে ঠিকই বদলে যায় সিদ্ধান্ত। আউট থেকে ‘নট আউট’ হন সৌম্য। এডিআরএস নিয়ে যত মতামত জানা গেছে, সেখানে নেতিবাচক ভাবনাই বেশিই।

এনামুল অবশ্য ডিআরএস না থাকাকে বড় করে দেখতে চাচ্ছেন না।

“বিসিবি সবসময়ই আমাদের জন্য শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করে। আমরাও সেটা মানি। তবে একটা টুর্নামেন্ট চালাতে গেলে কিছু না কিছু ঘাটতি থাকে। প্রতিবারই এমন হয়, এগুলো উন্নত করার চেষ্টা করে। ক্রিকেটার হিসেবে স্বাভাবিকভাবেই আমরা সেরা জিনিসটা আশা করি। যখন বিসিবি শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করবে বা আমাদের সুবিধাগুলো দেবে… ঠিক আছে। যদি না থাকে এগুলো নিয়ে মন খারাপের কিছু নেই।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক