স্কটল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডে প্রাতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের প্রমাণ মিলেছে

তদন্ত কমিটি ৪৪৮টি উদাহরণ পেয়েছে, যা সংস্থাটির বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের অভিযোগটি প্রমাণ করে।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 July 2022, 12:17 PM
Updated : 25 July 2022, 12:17 PM

প্রাতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের যে অভিযোগ উঠেছিল স্কটল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের বিরুদ্ধে, স্বাধীন তদন্তে তার প্রমাণ মিলেছে। তদন্ত কমিটি সোমবার তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

এর একদিন আগেই অবশ্য দায় মাথায় নিয়ে স্কটল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সব পরিচালক পদত্যাগ করেন।

তদন্ত কমিটি ৪৪৮টি উদাহরণ পেয়েছে, যা প্রতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের বিষয়টি প্রমাণ করে। সমীক্ষায় ৬২ শতাংশ মানুষ বলেন, তারা নিজেরা বর্ণবাদ বা বৈষম্যের ভুক্তভোগী হয়েছেন, দেখেছেন বা এমন অভিযোগ পেয়েছেন।

স্পোর্টস্কটল্যান্ড দ্বারা গঠিত কমিশন ‘প্ল্যানফোরস্পোর্ট’ গত বছর ডিসেম্বরে তদন্ত শুরু করে। গত কয়েক মাস ধরে সংস্থাটি স্কটিশ ক্রিকেটের বিভিন্ন স্তরের এক হাজারের বেশি লোকের সঙ্গে এ নিয়ে কাজ করে।

প্ল্যানফোরস্পোর্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লুইস টাইডসওয়েল বিবৃতিতে পরিষ্কারভাবে বলেন, স্কটল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড বর্ণবাদ ও বৈষম্য রুখতে পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে।

“ক্রিকেট স্কটল্যান্ডের পরিচালন প্রক্রিয়া ও নেতৃত্ব প্রাতিষ্ঠানিকভাবেই বর্ণবাদের ঠাসা। তদন্তের সময়কালে আমরা অনেকের সাহসিকতা দেখেছি, যারা আমাদের কাছে তাদের অভিজ্ঞতাগুলো বলেছেন এবং ওইসব ঘটনা তাদের জীবনে স্পষ্টভাবে প্রভাব ফেলেছিল। বাস্তবতা হলো, সংগঠনের নেতৃত্বে যারা ছিলেন তারা সমস্যাগুলো দেখতে বা সমাধান করতে ব্যর্থ হয়েছেন।”

যারা বর্ণবাদ ও বৈষম্যের শিকার হয়েছেন, তাদের কাছে ক্ষমা চেয়ে আগের দিন স্কটল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালকরা পদত্যাগ করেন।

সাবেক স্কটিশ অফ স্পিনার মজিদ হক ২০২১ সালের নভেম্বরে স্কাই স্পোর্টসে আলাপচারিতায় স্কটল্যান্ড বোর্ডের বিরুদ্ধে প্রাতিষ্ঠানিক বর্ণবাদের অভিযোগ আনার পর স্বাধীন তদন্ত শুরু হয়। ইয়র্কশায়ার কাউন্টি দলে থাকাকালীন সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার আজিম রফিক বর্ণবাদের শিকার হওয়ার অভিযোগ আনার পরে এই অভিযোগ করেন মজিদ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক