থিরিমান্নের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংসের পর বিপদে বাংলাদেশ

এক সময় তার মাঝে ভবিষ্যৎ সাঙ্গাকারার ছবি দেখত শ্রীলঙ্কা। সেই ছবি ফিকে হয়ে গেছে অনেক আগেই। এখন জায়গাই পান না জাতীয় দলে। ফর্ম ফিরে পেতে পাঠানো হয়ছে ‘এ’ দলে। ফেরার অভিযানের শুরুটা অবশ্য দুর্দান্ত করলেন লাহিরু থিরিমান্নে। বাংলাদেশ সফরে প্রথম ম্যাচেই খেললেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 June 2018, 01:19 PM
Updated : 27 June 2018, 01:19 PM

প্রথম আনঅফিসিয়াল টেস্টে চট্টগ্রামে থিরিমান্নের দুর্দান্ত ইনিংসে ৮ উইকেটে ৪৪৯ রান তুলে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দল। বাংলাদেশ ‘এ’ শুরুতেই হারিয়েছে দুই ওপেনারকে। দ্বিতীয় দিন শেষ করেছে ২ উইকেটে ৪৪ রানে।

বৃ্ষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিনে খানিকটা এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু থিরিমান্নের ব্যাটে দ্বিতীয় দিনে রাজত্ব করেছেন লঙ্কানরা। তাকে দারুণ সঙ্গ দিয়েছেন ২০ বছর বয়সী দুই প্রতিভাবান তরুণ চারিথ আসালাঙ্কা ও শাম্মু আশান।

৪ উইকেটে ১৭১ রানে দিন শুরু করেছিল শ্রীলঙ্কা। ৫ম উইকেট হারানোই আগেই জুটি পেরিয়ে যায় তিনশ। থিরিমান্নে ও আসালাঙ্কা গড়েন ১৫৬ রানের জুটি।

এই জুটিও ভাঙতে পারেননি কোনো বোলার। ৯০ রানে আসালাঙ্কাকে রান আউট করেন সৌম্য সরকার।

অটল থিরিমান্নে পরের উইকেটেও গড়ে তোলেন শতরানের জুটি। এবার শাম্মু আশানের সঙ্গে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে আসে ১১৯ রান।

সেঞ্চুরি করতে পারেননি আশানও। ৮ চার ও ১ ছক্কায় ৯৭ বলে ৭০ রান করে কিপার জাকিরের হাতে ধরা পড়েছেন আবু হায়দারের বলে।

থিরিমান্নে তবু হাল ছাড়েননি। এগিয়ে নিয়েছেন দলকে। শেষ পর্যন্ত তার ৯ ঘণ্টা ১৮ মিনিটের ম্যারাথন ইনিংস শেষ হয়েছে নাজমুল অপুর বাঁহাতি স্পিনে। ১৪ চার ও ২ ছক্কায় ৩৩৯ বলে করেছেন ১৬৮ রান।

প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে থিরিমান্নের আগের সর্বোচ্চ ইনিংস ছিল ১৬৬ রানের। এই বাঁহাতি আউট হওয়ার পরই ইনিংস ঘোষণা করে লঙ্কানরা।

আগের দিন ৩ উইকেট নেওয়া পেসার খালেদ এদিন যোগ করতে পেরেছেন আর একটি উইকেট। খারাপ করেননি আরেক পেসার আবু হায়দার। তবে মূল দুই স্পিনার নাঈম হাসান ও নাজমুল অপু ছিলেন বিবর্ণ।

ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের শুরুটা হলো অদ্ভুত। সৌম্য সরকার শুরু করেছিলেন ওয়ানডের গতিতে। থামলেন দ্রুতই। ১৭ বলে ২১ রানে যখন বোল্ড হলেন নিসালা থারাকার বলে, দলের রানও তখন ২১।

আরেক ওপেনার সাদমান ইসলামের শুরুটা ছিল উল্টো। পরিণতি একই। মন্থর শুরু করেও টিকতে পারেননি। ২৫ বলে ১ রান করে বোল্ড আসালাঙ্কার অফ স্পিনে।

তুষার ইমরান ও অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেন কাটিয়ে দিয়েছেন পরের সময়টুকু। ঘরোয়া ক্রিকেটে অনেক রেকর্ড গড়ে ‘এ’ দলে সুযোগ পাওয়া তুষার তিনে নেমে অপরাজিত আছেন ১২ রানে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

শ্রীলঙ্কা ‘এ’ ১ম ইনিংস: ১৩১.১ ওভারে ৪৪৯/৮ (ডি.) (আগের দিন ১৭১/৪)(থিরিমান্নে ১৬৮, আসালাঙ্কা ৯০, শাম্মু ৭০, থারাকা ২০, মাদুশাঙ্কা ০*; আবু হায়দার ১৯-৩-৬৯-২, খালেদ ২৭-৬-৯২-৪, নাঈম ২৫-২-৮২-০, সাইফ উদ্দিন ১৭-৩-৪১-০, নাজমুল অপু ১৯.১-১-৭৩-১, মোসাদ্দেক ১২-২-৪৪-০, সৌম্য ১২-১-৪১-০)।

বাংলাদেশ ‘এ’ ১ম ইনিংস: ১৭ ওভারে ৪৪/২ (সাদমান ১, সৌম্য ২১, তুষার ১২*, মোসাদ্দেক ৮*; থারাকা ১/১৩, মাদুশাঙ্কা ০/১৯, আসালাঙ্কা ১/১০, জয়াসুরিয়া ০/২)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক