ওমানের ২২ গজে সবুজ ঘাসে রান হাসে?

বিশ্বকাপ শুরুর আগের দিন মাঠে ঢুকে চোখ ছানাবড়া অনেকের। এই মাঠে উইকেট কোথায়! মাঠের সবুজ গালিচা থেকে মাঝের ২২ গজকে আলাদা করাই কঠিন। সেন্টার উইকেটে পুঁতে রাখা স্টাম্প আর পরিচর্যায় ব্যস্ত মাঠকর্মীদের দেখে অবশ্য শেষ পর্যন্ত উইকেট চেনা গেল। পাশাপাশি বিস্ময়ও জাগল তুমুল। ম্যাচের আগের দিনও উইকেটে এত ঘাস!

ক্রীড়া প্রতিবেদকমাসকাট থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 Oct 2021, 05:11 AM
Updated : 17 Oct 2021, 05:11 AM

ম্যাচে অবশ্য সেই সবুজ চেহারার উইকেট রেখে দেওয়ার সম্ভাবনা সামান্যই। আইসিসি ইভেন্টে, সেটিও টি-টোয়েন্টিতে, এসব সবুজ উইকেটে খেলা হওয়া বিরল ঘটনা। ম্যাচের দিন উইকেট পুরোপুরি ন্যাড়া না করা হলেও হয়তো অনেকটাই ছেটে ফেলা হবে ঘাস। সবুজ জমিন থেকে শেষ পর্যন্ত সবুজাভ চেহারা থাকতে পারে।

মাহমুদউল্লাহর ধারণাও অনেকটা সেরকমই। স্পোর্টিং উইকেট হবে বলেই ধারণা বাংলাদেশ অধিনায়কের। গত ৮ অক্টোবর এই মাঠে ওমান ‘এ’ দলের বিপক্ষে দুইশ ছাড়ানো স্কোর গড়ে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে না খেললেও বাইরে থেকে দেখেন মাহমুদউল্লাহ। পরে কথাও বলেন সতীর্থদের সঙ্গে। সেখান থেকে উইকেট সম্পর্কে একটি ধারণা পেয়েছেন বলে ম্যাচের আগের দিন জানালেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

“আমার মনে হয়, আমরা যে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছিলাম ওমান ‘এ দলের বিপক্ষে, পরে পিচের কন্ডিশন নিয়ে বোলার ও ব্যাটসম্যানদের সঙ্গে আলাদাভাবে আলোচনা করেছিলাম। পিচের কন্ডিশন ভালো ছিল এবং স্পোর্টিং উইকেট ছিল। আশা করি ওইরকমই কন্ডিশন থাকবে।”

শুধু বাংলাদেশের প্রস্তুতি ম্যাচই নয়, এই মাঠের অন্য অনেক ম্যাচেই দেখা গেছে রানের জোয়ার। সবশেষ সাতটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির চারটিতেই আগে ব্যাট করা দল তুলছে ১৮০ ছাড়ানো স্কোর।

তবে শেষ পর্যন্ত যদি উইকেট পেস সহায়ক থাকে কিংবা ন্যাড়া করা হয় অথবা আচরণে দেখা যায় ধীরগতির, সেসবের জন্যও দল প্রস্তুত বলে জানালেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

“আমার মনে হয় যে কোনো কন্ডিশনের জন্যই প্রস্তুত থাকা প্রয়োজন মানসিকভাবে। উইকেট যদি স্লো হয় বা বাউন্স হয়, আমরা জানি না… যদি স্পোর্টিং উইকেটও হয়, তাহলে মানিয়ে নেয়ার সামর্থ্য আমাদের থাকবে এবং ওই মানসিকতা আমাদের রয়েছে। আমি আশা করি খুব ভালো উইকেট হবে এবং আমরা ভালো করব।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক