শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর নীতি বাস্তবায়ন জরুরি: ঢাবি উপাচার্য

“শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব যে পথ দেখিয়েছেন, সেটি কিন্তু আমরা এখনও বাস্তবায়ন করতে পারি নাই “ বলেন অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 August 2022, 12:19 PM
Updated : 15 August 2022, 12:19 PM

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার শাসনামলে শিক্ষাখাতকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন উল্লেখ করে তার সেই নীতি বাস্তবায়ন জরুরি বলে মনে করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান।

তিনি বলেছেন, “শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব যে পথ দেখিয়েছেন, সেটি কিন্তু আমরা এখনও বাস্তবায়ন করতে পারি নাই।

“তার নীতি ছিল জাতীয় বাজেটের ২০ ভাগ এবং জিডিপির ৪ ভাগ বরাদ্দ, যেটি ইউনেস্কো স্বীকৃত মূলনীতি; যেটির পথ দেখিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ১৯৭২-৭৩ সময়টির মধ্যে। শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুর প্রদর্শিত সেই নীতি বাস্তবায়ন এখন সময়ের দাবি।”

বঙ্গবন্ধুর ৪৭তম মৃত্যুবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সোমবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় উপাচার্য এ কথা বলেন।

অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, “মুজিবীয় দর্শন আজকে অনেক শক্তিশালী। কারণ বঙ্গবন্ধুর একটি অসাধারণ স্বপ্ন ছিল যে অসাম্প্রদায়িক মানবিক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ। এর জন্য তার যে নানা উদ্যোগ ও পরামর্শ ছিল, সেগুলোই কিন্তু বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা একটির পর একটি বাস্তবায়ন করছেন।

“যতক্ষণ পর্যন্ত আমরা সেই ধারাটি অব্যাহত রাখব, ততদিন পর্যন্ত এই বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃত থাকবে। জাতির ভাগ্য উন্নয়ন ও সামগ্রিকভাবে আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর অনুসৃত যে নীতিসমূহ- সেগুলো বাস্তবায়ন যদি করতে চাই, তাহলে শিক্ষাক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু প্রদর্শিত নীতি বাস্তবায়ন এখন সময়ের দাবি।”

জাতির পিতার জীবনদর্শন নতুন প্রজন্ম ও যুবসমাজের কাছে পৌঁছে দিতে ‘বঙ্গবন্ধু চর্চা’ বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে উপাচার্য বলেন, “তাহলেই অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক মূল্যবোধসম্পন্ন এক সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়া সম্ভব হবে।”

আলোচনা সভার শুরুতে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের উপর একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হয়।

দিবসটি উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান ভবন ও হলগুলোতে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়, উত্তোলন করা হয় কালো পতাকা। সকালে উপাচার্য আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সকালে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রে (টিএসসি) শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। উপাচার্য এ প্রতিযোগিতা পরিদর্শন করেন।

এছাড়া উপাচার্য টিএসসিতে উপস্থিত থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি আয়োজিত ‘মহাকালের খেরোখাতায় বঙ্গবন্ধু’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন।

বাদ যোহর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ মসজিদুল জামিয়াসহ প্রত্যেক হল ও আবাসিক এলাকার মসজিদে বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহীদের রূহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল এবং বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার অন্য ধর্মীয় উপাসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনার আয়োজন করা হয়।

আলোচনা সভায় উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. নিজামুল হক ভূইয়া, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আনোয়ার-উল আলম চৌধুরী পারভেজসহ অফিসার্স অ্যাসোসিয়েশন, কর্মচারী সমিতি, কারিগরি কর্মচারী সমিতি ও চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী ইউনিয়নের নেতারা বক্তৃতা করেন। রেজিস্ট্রার প্রবীর কুমার সরকার অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক